প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জনবান্ধব পুলিশিং সেবার প্রত্যয়ে এএসপি আনিছুর রহমান

আরিফুল ইসলাম : ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সরাইল নাসিরনগর ও আশুগঞ্জ এই তিন থানা এলাকায় একটি জনবান্ধব পুলিশিং ব্যবস্থা গড়ে তোলার দৃঢ় প্রত্যয়ে কাজ করে চলছেন সরাইল সার্কেল-এর সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) আনিছুর রহমান।

এই কর্মকে বাস্তবায়িত করতে এই তিন থানা এলাকায় টিম সঙ্গে নিয়ে দিনরাত ছুটে বেড়াচ্ছেন তিনি। ঘটনা ঘটার দ্রুত সময়ের মধ্যে সেখানে উপস্থিত হয়ে নিজেই কাজ শুরু করেন ঘটনার পেছনের ঘটনা তুলে নিয়ে আসার কাজে। আর এই কাজে তাঁর টিম ও সাধারণ মানুষ এক হয়ে হাত বাড়িয়ে তাঁকে তথ্য উদঘাটনেও সাহায্য করে থাকেন।

এএসপি আনিছুর রহমান একটি স্লোগান ধারণ করে কাজ করছেন ‘মুজিববর্ষের অঙ্গীকার, পুলিশ হবে জনতার’। তিনি এটি শুধু স্লোগানের মধ্যে রাখতে চান না, এটি বাস্তবায়নে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ।

এএসপি আনিছুর রহমান অপরাধ দমনে সাহসী ভূমিকা রেখে আসছেন সরাইল, আশুগঞ্জ ও নাসিরনগর থানা এলাকায়। যৌন হয়রানি, জঙ্গিবাদ, মাদক বাণিজ্য, হত্যা, সড়কে ডাকাতি মামলাসহ সব ধরনের অপরাধ দমনে তাঁর সাহসী ভূমিকা নজর কেড়েছে পুলিশ বিভাগ সহ স্থানীয় সচেতন লোকজন অনেকের।

এই তিন থানা এলাকায় সাম্প্রতিক সময়ে বড় বড় সব ক্লুলেস হত্যাসহ অপরাধের যেকোনো বিষয় প্রযুক্তির সহযোগিতায় অতিদ্রুত সময়ের মধ্যে এএসপি আনিছুর রহমান সামনে তুলে নিয়ে এসেছেন। এ ক্ষেত্রে সরাইল সদর ইউনিয়নের সৈয়দটুলা নোয়াহাটি গ্রামের শিশু কাশফিয়া হত্যা, নোয়াগাঁও ইউনিয়নের আখিতারা গ্রামের শিশু মহিউদ্দিন হত্যা, আশুগঞ্জে ব্যাংকের নৈশপ্রহরীকে খুন করে ব্যাংক লুটের ঘটনা, আশুগঞ্জ সার কারখানার আবাসিক কলোনিতে যুবক বোরহান উদ্দিন হত্যাসহ বিভিন্ন ঘটনায় খুব দ্রুত সময়ে উদঘাটন করে অপরাধ দমনে সাহসী ভূমিকা রেখেছেন।

এছাড়াও তিনি আর্তমানবতার সেবায় অসহায়ের পাশে দাঁড়ানোর জন্য সবাইকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানানোর নানা উদ্যোগ নিয়েছেন ইতোমধ্যে। এখানকার যুবকদের মধ্যে দেশপ্রেমবোধ জাগ্রত করতে নানা কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি। দায়িত্ব পালনের সঙ্গে যুবকদের মধ্যে দেশপ্রেম জাগিয়ে তুলতে এএসপি আনিছুর রহমানের নেতৃত্বে থানা পুলিশে কর্মরতরা কাজ করছেন। একই সঙ্গে মাদকের ভয়াবহতা থেকে কীভাবে তারা দূরে থাকবে, সেই বিষয়টিতে নজর দিয়েছেন পুলিশের এই এএসপি।

থানায় পুলিশ ক্লিয়ারেন্স ও পাসপোর্ট ভেরিফিকেশন দুটি প্রক্রিয়াই ছিল একশ্রেণীর দালালের বাণিজ্য; যা এএসপি আনিছুর রহমান সেই বাণিজ্য ব্যবস্থাকে দূর করে এ সেবা সহজ ও দ্রুততর করেছেন। এখন একটি পুলিশ ক্লিয়ারেন্স পেতে একজন মানুষকে আর ঘুরতে হয় না।

এএসপি আনিছুর রহমান যোগ দেওয়ার পর থেকে এখানকার থানা গুলোতে স্থাপিত ডেস্কে নারী, শিশু, প্রতিবন্ধী ও বয়স্কদের প্রতি বিশেষ নজর দিয়ে তাদের সমস্যাগুলো সমাধান করা হচ্ছে। সেখানে তারা কোনো রকম ঝামেলা ছাড়া অতিদ্রুত সেবা নিতে পারছে।

পুলিশই জনতা, জনতাই পুলিশ এই স্লোগান বাস্তবায়ন সহ এখানকার বিট পুলিশিং এবং গ্রাম পুলিশিং কার্যক্রমকে আরো গতিশীল করতে দিনরাত কাজ করেছেন সহকারী পুলিশ সুপার আনিছুর রহমান। এসব প্রচেষ্টার কারণে বিট পুলিশিং ও গ্রাম পুলিশিং কার্যক্রম আগের চেয়ে অনেক বেশি গতিশীল বলে মনে করে সরাইল, আশুগঞ্জ ও নাসিরনগর উপজেলার সচেতনমহল।

এখন থানায় এসে একটি অভিযোগ ও সাধারণ ডায়েরি করতে কোনো ঘুষ বা প্রভাব খাটাতে হয় না। এখন যেকোনো সাধারণ মানুষ থানায় এসে অভিযোগ ও সাধারণ ডায়েরি করতে পারেন। এ ব্যবস্থায় বিশেষ নজর রাখছেন তিনি।

এএসপি আনিছুর রহমান। সরাইল সার্কেল-এ যোগ দেওয়ার পর থেকেই তিনি শক্ত হাতে নিয়ন্ত্রণে রেখেছেন এই সার্কেল-এর আওতাধীন থানা গুলোর আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত