প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] মাটিরাঙ্গায় ইউপিডিএফ’র হামলায় ক্ষতিগ্রস্থ্যদের অনুদান দিলো খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ

মোবারক হোসেন: [২] খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গার তবলছড়ির লাইফু কুমার কার্বারী পাড়ায় বাঙালী কৃষকদের উপর ইউপিডিএফ’র সশস্ত্র হামলায় আহত কৃষকদের পাশে দাঁড়িয়েছে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ।

[৩] বুধবার বিকেলে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মংসুইপ্রু চৌধুরী অপু’র পক্ষে পরিষদের সদস্য হিরন জয় ত্রিপুরা মাটিরাঙ্গা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এম হুমায়ুন মোরশেদ খান ও সাধারণ সম্পাদক সুবাস চাকমার হাতে আহতদের জন্য চিকিৎসা সহায়তা হিসেবে দুই লক্ষ টাকা তুলে দেন।

[৪] এসময় মাটিরাঙ্গা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. রফিকুল ইসলাম, মাটিরাঙ্গা পৌরসভার মেয়র মো. শামছুল হক, মাটিরাঙ্গা পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি মো. হারুনুর রশীদ ফরাজী ও মাটিরাঙ্গা পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আলাউদ্দিন লিটন ছাড়াও বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

[৫] গত ৪ এপ্রিল রোববার সীমান্তবর্তী মাটিরাঙা উপজেলার তবলছড়ির লাইফু কার্বারী পাড়া এলাকায় কচু চাষের জন্য টিলা ভুমিতে কাজ করতে গেলে প্রসীত বিকাশ খিসা সমর্থিত ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট-ইউপিডিএফের ৩০/৩৫ জন সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা বাঙালী কৃষকদের উপর হামলা চালায়। এ ঘটনায় ১৫/২০ জন বাঙালী কৃষক আহত হয়। একপর্যায়ে সন্ত্রাসীরা ৬০/৭০ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে আতঙ্ক তৈরী করে। এসময় বাঙালী চাষীরা নিজেদের পাহাড় ছেড়ে পালিয়ে আত্মরক্ষা করে।

[৬] খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য হিরন জয় ত্রিপুরা বলেন, মঙ্গলবার (৮ এপ্রিল) ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মংসুইপ্রু চৌধুরী অপু। এসময় তিনি স্থানীয় ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকদের সাথে কথা বলেন। তারই ধারাবাহিকতায় আহতদের চিকিৎসায় আর্থিক সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। ভবিষ্যতেও খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ যেকোন নিপীড়িত মানুষের পাশে দাঁড়াবে বলেও জানান তিনি।

সর্বাধিক পঠিত