প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সুয়েজ খালে জাহাজ আটকে যাওয়ায় মারওয়াকে দোষারোপ

রাশিদ রিয়াজ : মিসরের সুয়েজ খালে জাপানি মালিকানাধীন জাহাজ এভার গিভেন আটকে যাওয়ার জন্যে দোষারোপ করা হচ্ছে মিসরের প্রথম নারী ক্যাপ্টেন মারওয়া এলসেলহদারকে। অথচ ঘটনার সময় তিনি সুয়েজ খাল থেকে শত শত মাইল দূরে ছিলেন। আলেকজান্দ্রিয়ায় মারওয়া এলসেলহদার আইদা নামের একটি জাহাজে নাবিক হিসেবে এখন দায়িত্ব পালন করছেন। কিন্তু অনলাইনে তার বিরুদ্ধে সুয়েজ খালে এভার গিভেন জাহাজ আটকে যাওয়ার ব্যাপারে দোষী করে তুমুল অপপ্রচার চলছে। মারওয়া প্রথম কনিষ্ঠ নারী নাবিক হিসেবে কোনো জাহাজ নিয়ে সুয়েজ খাল পাড়ি দেন। মারওয়া বলেন নারী হওয়ার কারণেই তার বিরুদ্ধে এধরনের ভিত্তিহীন অপপ্রচার ছড়ানো হচ্ছে। অথচ ভিন্ন একটি জাহাজ নিয়ে আমি সুয়েজ থেকে শতশত মাইল দূরে অবস্থান করছি। ডেইলি মেইল

মারওয়া মনে করেন এধরনের গুজব অনলাইনে ছড়ানোর ফলে বিষয়টি তার পেশাগত ভাবমূর্তি বিনষ্ট হচ্ছে। ২৯ বছরের এই নারী নাবিককে নিয়ে আরব নিউজ সম্প্রতি এক প্রতিবেদনে তার সফলতা তুলে ধরে। বিবিসি’কে মারওয়া বলেন, এধরনের অপপ্রচারে আমি ক্ষুব্ধ। আমি মিসরীয় নাকি নারী হওয়ার কারণে আমার বিরুদ্ধে এ অপপ্রচার তা আমি বুঝছি না। ইন্টারন্যাশনাল মেরিটাইম অর্গানাইজেশনের হিসেবে সমুদ্রগামী জাহাজ চলাচলে মাত্র ২ শতাংশ নারী পেশাগত দায়িত্ব পালনের সুযোগ পাচ্ছে। মারওয়া তার জাহাজ আইদা নিয়ে মিসরের পণ্য সরবরাহের কাজে লোহিত সাগরে ব্যস্ত থাকেন। মার্চেন্ট নেভি হিসেবে তার ভাই তাকে পেশাগত কাজে অনুপ্রেরণা যুগিয়েছেন। মিসরে শুধুমাত্র পুরুষরাই জাহাজের ক্যাপ্টেন হতে পারতেন। আইনী পর্যালোচনার পর প্রেসিডেন্ট হোসনি মোবারক আইনী তাবে পেশাগত কাজে যোগদেওয়ার সুযোগ করে দেন। মারওয়া বলেন তার নাবিক হওয়ার পথে নারী হিসেবে একা অনেক লিঙ্গ বৈষম্যের বিরুদ্ধে লড়তে হয়েছে। আমাদের সমাজে এখনো নারীরা পরিবার ছেড়ে দীর্ঘসময় সমুদ্রে কাজ করবে তা গ্রহণযোগ্য নয়। কিন্তু যখন আপনি কিছু করতে ভালবাসবেন তখন এটা সবার অনুমোদনের কোনো প্রয়োজন পড়ে না। ২০১৫ সালে মারওয়া প্রথম তার জাহাজ নিয়ে সুয়েজ খাল পার হন। আগামী মাসে মারওয়া চূড়ান্ত পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছেন ক্যাপ্টেন হওয়ার জন্যে। তিনি মনে করেন তার এ কাজ প্রতিটি নারীকে অনুপ্রাণিত করবে। ২০১৭ সালে বিশ^ নারী দিবস উপলক্ষে মিসরের প্রেসিডেন্ট আব্দেল ফাত্তা সিসি তাকে সম্বর্ধনা দেন।

এদিকে ১০০ কোটি ডলার না দিলে ছাড়া পাচ্ছে না সুয়েজে খালে জট লাগানো জাহাজ এভারগিভেন। ফলে নতুন জটিলতায় পড়ল সুয়েজ খালে আটক দশা থেকে মুক্ত হওয়া এভার গিভেন জাহাজটি। প্রায় এক সপ্তাহ হল চালু হয়েছে সুয়েজ খাল। পুরোদমে চলছে পণ্য পরিবহন। কিন্তু এখনও খাল পার হতে পারেনি এভার গিভেন। জাপানের মালিকানাধীন পণ্যবাহি জাহাজটির কারণে কোটি কোটি ডলার ক্ষতি হয়েছে খাল কর্তৃপক্ষের। তাই শত কোটি ডলারের ক্ষতিপূরণ ছাড়া মুক্তি মিলবে না বলে সাফ জানিয়েছে মিসর।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত