প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

২৬ ও ২৭ মার্চ সাময়িক বন্ধ থাকবে রাজধানীর প্রধান ও গুরুত্বপূর্ণ সড়ক

অনলাইন ডেস্ক : শুক্রবার (২৬ মার্চ) ও শনিবার (২৭ মার্চ) আগত বিদেশি ভিভিআইপিদের গমনাগমনের জন্য রাজধানীর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়কে যান চলাচল বিঘ্নিত হবে বলে জানিয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)। বাংলানিউজ, ডেইলিস্টার

ডিএমপি ট্রাফিক বিভাগ জানায়, বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে আগত ভিভিআইপিদের গমনাগমনের জন্য ২৬ ও ২৭ মার্চ রাজধানীর বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ও প্রধান সড়কে যান চলাচল নিয়ন্ত্রিত থাকবে। এমনকী কিছু কিছু সময়ের জন্য সেসব সড়কে যান চলাচল পুরোপুরি বন্ধ থাকবে।

ডিএমপি সূত্র জানায়, মুজিব শতবর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর অনুষ্ঠানে যোগ দিতে শুক্রবার (২৬ মার্চ) ঢাকায় আসছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। প্রথম দিনে বিমানবন্দর থেকে সড়কপথে সাভার, ধানমন্ডি ৩২, হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টাল ও জাতীয় প্যারেড স্কয়ারে তার যাতায়াত থাকবে। এর ফলে ভারতের প্রধানমন্ত্রীসহ ভিভিআইপিদের চলাচলের আগে-পরে সেসব সড়কে যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা হবে। এবং চলাচলের সময় সেসব সড়কে যান চলাচল বন্ধ থাকবে।

২৬ মার্চ সকাল থেকে রাত পর্যন্ত নরেন্দ্র মোদীসহ ভিভিআইপিদের ব্যবহৃত সম্ভাব্য সড়কগুলো হচ্ছে- বিমানবন্দর সড়ক, গাবতলী-আমিনবাজার-সাভার, ধানমন্ডি-মিরপুর সড়ক হয়ে হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টাল। এরপর ইন্টারকন্টিনেন্টাল থেকে প্যারেড স্কয়ার, সবশেষে প্যারেড স্কয়ার থেকে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্র হয়ে হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টাল।

ডিএমপির অতিরিক্ত উপ-কমিশনার (এডিসি) ইফতেখায়রুল ইসলাম জানান, ২৬ ও ২৭ মার্চ একাধিক ভিভিআইপি চলাচলের কারণে সারাদিনে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ ও ভিআইপি সড়কে যান চলাচল নিয়ন্ত্রিত থাকবে ও কিছু সময়ের জন্য বন্ধ থাকবে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা যায়, মুজিব শতবর্ষের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে আগামী শুক্রবার (২৬ মার্চ) ঢাকায় আসছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এদিন সকাল সাড়ে ১০টায় মোদী হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করবেন। বিমানবন্দরে ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে লাল গালিচা সংবর্ধনা ও গার্ড অব অনার দেওয়া হবে। এরপর যথারীতি সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে ফুল দিয়ে শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাবেন।

বিকেলে জাতীয় প্যারেড স্কয়ারে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে অভ্যর্থনা জ্ঞাপন ও ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী’ এবং ‘স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী’ উদযাপনের লক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করবেন। অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রপতি মো. আব্দুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উপস্থিত থাকবেন।

এরপর রাত ৮টা ১০ মিনিটে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে যৌথভাবে ‘বঙ্গবন্ধু-বাপু ডিজিটাল এক্সিবিশন’ উদ্বোধন এবং মোদীর সঙ্গে সৌজন্যে আয়োজিত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও নৈশভোজে অংশ নেবেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত