প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১]‘শেক্সপিয়র দেখতে কেমন’ রহস্যের সমাধান মিললো নতুন গবেষণায়

লিহান লিমা: [২] জগদ্বিখ্যাত নাট্যকার উইলিয়াম শেক্সপিয়ারের সত্যিকারের চেহারা দেখতে না পাওয়ার আক্ষেপ সাহিত্যপ্রেমীদের দশকব্যাপী। তবে সম্প্রতি এক যুগান্তকারী গবেষণায় শেক্সপিয়র দেখতে কেমন এটি নিয়ে রহস্য ও বির্তকের সমাধান হচ্ছে মনে করছেন শেক্সপিয়র বার্থপ্লেস ট্রাস্ট (এসবিটি) এর গবেষকরা। গার্ডিয়ান, ডেইলি মেইল

[৩] সাহিত্য সমালোচকদের মধ্যে অনেকেরই দাবী ছিলো সারে হ্যান্ডসল্যান্ড পার্কে থাকা তার অন্যতম জনপ্রিয় ‘কোবো প্রতিকৃতি’টি সম্ভবত ইংরেজ কবি ও সাহিত্যিক স্যার টমাস ওভারবারির।

[৪]এছাড়া ১৬০০ থেকে ১৬১০ সালের মধ্যে আঁকা আরেকটি ছবি ‘চান্ডোস প্রতিকৃতি’তে শেক্সপিয়ারকে যথাযথভাবে দেখানো হয় নি বলে মনে করেন গবেষকরা।

[৫]স্ট্যাটফোর্ড আপঅন অ্যাভনের হলি ট্রিনিটি চার্চে অবস্থিত তার সমাধির সামনে থাকা প্রতিলিপির ওপর ভাস্কর্যটি এতোদিন ১৬১৬ সালে তার মৃত্যুর পরে তৈরি করা হয়েছিলো বলে মনে করা হতা। কিন্তু নতুন গবেষণা বলছে, এটি তার জীবদ্দশায়ই তার চেনাজানা একজন ভাস্কর তৈরি করেছিলেন।

[৬]পূর্বে মনে করা হতো এই প্রতিকৃতিটি এঁকেছিলেন ১৭’শতকের জ্যাকোবিয়ান ভাস্কর গেরার্ড জনসন। জর্জটাউন বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক অরলিন মনে করেন, এই ভাস্কর্যটি গেরার্ডের ভাই সমাধি নির্মাতা নিকোলাস জনসন তৈরি করেছেন। তিনি বলেন, নিকোলাস হলি ট্রিনিটি চার্চে শেক্সপিয়ারের বন্ধু জন কোম্বের প্রতিকৃতি নিয়েও কাজ করেছিলেন। কোম্বে ১৬১৫ সালে মারা যান। তিনি আরো বলেন, নিকোলাসের কাজের ধরণ ছিলো নিজ হাতে মূল স্থানে ভাস্কর্য স্থাপন করা, তার মানে তিনি শেক্সপিয়ারের মৃত্যুর পূর্বে স্ট্যার্টফোর্ডেই ছিলেন। তাছাড়া তার ওয়ার্কশপ ছিলো গ্লোবি থিয়েটারের কাছেই, যা তার শেক্সপিয়ারকে দেখার বিষয়টিকে আরো দৃঢ় করে।

[৭]অরলিন বলেন, স্মৃতিস্তম্ভের ফলকে যে লেখাটি রয়েছে তার নিচে মৃত্যুপরবর্তী তথ্য লিপিবদ্ধ করার জন্য খালি জায়গা রাখা হয়েছিলো। অর্থাৎ এটি মৃত্যুপূর্ববর্তী সময়ে তৈরি। আর এই কারণেই শেক্সপিয়ার তার উইলে তার সময়ের অন্যান্যদের মতো নিজেদের স্মৃতিস্তম্ভ নিয়ে কোনো নির্দেশনা দেন নি। কারণ তিনি নিজেই নিজের স্মৃতিস্তম্ভের নকশা করেছিলেন বা দেখেছিলেন।

সর্বাধিক পঠিত