প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] সুনামগঞ্জে বিজিবি ও গ্রামবাসীর সংঘর্ষে ৩৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের

আল-হেলাল:[২] সুনামগঞ্জের বনগাঁও সীমান্তে বিজিবি ও গ্রামবাসীর মধ্যে গরু নিয়ে সংঘর্ষের ঘটনায় বিজিবির গুলিতে ১জনের মৃত্যু ও বিজিবির এক সদস্য আহত হয়। এ ঘটনার প্রেক্ষিতে ৩৯ জনকে আসামী করে থানায় একটি মামলা দায়ের করছে বিজিবি।

[৩] সোমবার (৮ই মার্চ) দুপুর ১২টায় সুনামগঞ্জ মডেল থানার সূত্রে জানা যায়-বনগাঁও সীমান্তে বিজিবির ওপর হামলা চালানো ও বিজিবির এক সদস্য আহত হওয়ার ঘটনায় বনগাঁও বিজিবি ক্যাম্প কমান্ডার মোজাম্মেল হোসেন বাদী হয়ে ৯ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো ৩০ জনকে আসামী করে সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। তবে বিজিবির গুলিতে নিহত কামাল মিয়ার পক্ষ থেকে এখনও পর্যন্ত কোন মামলা দায়ের করা হয়নি।

[৪] গত শনিবার দুপুরে বনগাঁও সীমান্ত দিয়ে ভারত থেকে গরু পাচাঁরের খবর পেয়ে বিজিবি কামাল মিয়ার গরু আটক করে ক্যাম্পে নিয়ে যেতে চাইলে ইসলামপুর গ্রামের লোকজন বাঁধা দেয়। ওই সময় কামাল মিয়া, তার বোন আমেনা আক্তার ও বোন জামাই মোস্তফা মিয়া গরুটি তাদের পৃহপালিত বলে দাবী করে। এ নিয়ে বিজিবির সাথে কথা কাটাকাটি করার কারণে কামাল মিয়াকে লক্ষ্য করে গুলি চালায় বিজিবি।

[৫] পরে গ্রামবাসী উত্তেজিত হয়ে অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে বিজিবিকে ধাওয়া করে। এ ঘটনায় বিজিবির এক সদস্য আহত হয়। তাকে সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আর গুলিবিদ্ধ কামাল হোসেনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর তাঁর মৃত্যু হয়।

[৬] জাহাঙ্গীরনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মকসুদ আলী বলেন,নিহত কামাল মিয়ার পরিবার বর্গরা এতটাই শোকাহত ও আতংকগ্রস্থ যে,তারা এখনও শোক কাটিয়ে উঠতে পারেনি। তবে তারা মামলা দায়েরের জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে শুনা যাচ্ছে। এছাড়া বিজিবি কর্তৃক নিহত কৃষককে চোরাকারবারী বলায় এলাকায় বিজিবির বক্তব্য নিয়ে জনমনে উত্তেজনা অব্যাহত রয়েছে।

[৭] সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি শহীদুর রহমান সাংবাদিকদের বলেন,বিজিবির পক্ষ থেকে ৩৯ জনকে আসামী করে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। নিহত কামাল মিয়ার পক্ষ থেকে কেউ মামলা নিয়ে আসেনি। বর্তমানে এলাকার পরিবেশ শান্ত রয়েছে।সম্পাদনা:অনন্যা আফরিন

 

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত