প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] কোভিড-১৯ প্রেক্ষাপটে শিশুর কল্যাণে অর্থ বরাদ্দ ও ব্যয়ের আহবান শিশু অধিকার বিষয়ক সংসদীয় ককাসের

মনিরুল ইসলাম: [২] কোভিড পরস্থিতি বিবেচনা করে বিভিন্ন মন্ত্রনালয়ে বরাদ্দকৃত অব্যাবহৃত অর্থ শিশু কল্যানের জন্য ব্যয় করার আহবান জানিয়েছেন জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার ও শিশু অধিকার বিষয়ক সংসদীয় ককাসের উপদেষ্টা মো: ফজলে রাব্বী মিয়া এম.পি।

[৩] রোববার রাজধানীতে শিশু অধিকার বিষয়ক সংসদীয় ককাসের একটি বিশেষ সভায় তিনি এ আহবান জানান।

[৪] প্রত্যেক মন্ত্রনালয়ে বরাদ্দকৃত অর্থের কত ভাগ শিশুর জন্য ব্যয় করা হচ্ছে সে বিষয়ে স্ব স্ব মন্ত্রনালয়ের কাছে অর্থ মন্ত্রনালয়কে জবাবদিহিতা চাওয়ার দাবিও জানান তিনি। কোভিড পরিস্থিতি বিবেচনা করে বিভিন্ন মন্ত্রনালয়ের অব্যবহৃত বা উদ্বৃত্ত অর্থ প্রয়োজনে শিশুদের শিক্ষাখাতে ব্যয়ের সুপারিশও করেন তিনি। সেক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা ও স্বাস্থ্য বিধি রক্ষার জন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অবকাঠামো সম্প্রসারণ করার প্রস্তাবও করেন যাতে করে তারা নিরাপদ শারিরীক দুরত্ব বজায় রেখে পাঠ গ্রহন করতে পারে ।

[৫] কোভিড-১৯ প্রেক্ষাপটে শিশুদের বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় করনীয় নিয়ে রাজধানীর একটি হোটেলে শিশু অধিকার বিষয়ক সংসদীয় ককাসের এ বিশেষ সভা অনুষ্ঠিত হয় ।

[৬] শিশুকেন্দ্রিক আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্থা ওয়ার্ল্ড ভিশনের আমন্ত্রনে এই বিশেষ সভায় অংশ নেন সংসদ সদস্যরা। শিশু অধিকার বিষয়ক সংসদীয় ককাসের সভাপতি শামসুল হক টুকু এম.পি’র সভাপতিত্বে ককাসের উপদেষ্টা জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পিকার মো: ফজলে রাব্বী মিয়া প্রধান অতিথি ছিলেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ককাসের কো-চেয়ারম্যান অ্যারমা দত্ত এবং ওয়ার্ল্ড ভিশনের ন্যাশনাল ডিরেক্টর সুরেষ বার্টলেট।

[৭] এছাড়া সভায় ককাসের সদস্য প্রায় ১০ জন সংসদ সদস্য উপস্থিত ছিলেন । সভাটি পরিচালনা করেন ওয়ার্ল্ড ভিশনের ডিরেক্টর ( অ্যাডভোকেসি এন্ড কমিউনকিশেনস) টনি মাইকেল গমেজ। তিনি ককাস সদ্যেদের সামনে মন্ত্রনালয় ভিত্তিক বাজেট বরাদ্দের বিশ্লেষন ও শিশুদের জন্য করনীয় নিয়ে একটি উপস্থাপনা তুলে ধরেন ।

[৮] ককাস সভাপতি শাসসুল হক টুকু এম.পি বলেন ‘ সরকারের সাথে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা সমন্বয় করে শিশু উন্নয়নে কাজ করে যেতে হবে।’ শিশু অধিকার বিষযক ককাসকে এক্ষেত্রে জোরালো ভুমিকা রাখার আহবান জানান তিনি।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত