প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ‘আইনপ্রণেতাদের মৃত্যুমুখে ঠেলে দিয়ে দাঙ্গা উপভোগ করছিলেন ট্রাম্প’, সিনেটে অভিশংসনের শুনানিতে বললেন ডেমোক্রেটরা

লিহান লিমা: [২] সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সিনেটে অভিশংসনের বিচারের শুনানিতে গত ৬ জানুয়ারি ক্যাপিটল হিলে দাঙ্গা ও সহিংসতার জন্য তাকে সরাসরি দায়ী বলে মন্তব্য করেছেন ডেমোক্রেট আইনপ্রণেতারা। তারা বলেন, ওই দাঙ্গায় ৫জনের প্রাণহানিসহ আইনপ্রণেতাদের মৃত্যুমুখে ঠেলে দেয়ার ঝুঁকির পেছনের ‘প্রধান মদদদাতা’ ছিলেন ট্রাম্প। সিএনএন, ডেইলি মেইল, বিবিসি

[৩] ডেমোক্রেট আইনপ্রণেতারা প্রমাণ হিসেবে ট্রাম্পের সমর্থক ওয়েবসাইট গুলোর ক্রিনশট, তার পূর্ব মন্তব্য, ভিডিও ও টুইট বার্তা এবং ক্যাপিটলে হামলার সময়কার নানা ফুটেজ তুলে ধরেন।

[৪]অপ্রকাশিত এসব ফুটেজে দেখা যায়, ট্রাম্প সমর্থকরা আগ্রাসীভাবে ক্যাপিটলে হানা দিয়ে নির্বাচনের ফলাফল অনুমোদন করা আইনপ্রণেতাদের খুঁজছিলেন। ফুটেজে দেখা যায়, এক নিরাপত্তারক্ষী রিপাবলিকান সিনেটর এবং সাবেক প্রেসিডেন্ট প্রার্থী মিট রমনিকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। আরেক ভিডিওতে দেখা যায়, নির্বাচনের ফল অনুমোদনে বাধা না দেয়ায় ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের ফাঁসির দাবী তুলেছিলেন দাঙ্গাকারী ট্রাম্প সমর্থকরা। নিরাপত্তারক্ষীরা দ্রুত প্রেসিডেন্ট পেন্স এবং তার পরিবারের সদস্যদের সরিয়ে নেন। দাঙ্গাকারীরা হাউস স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি অফিসে ঢুকে পড়ে তার অনুসন্ধান চালায়।

[৫] ডেমোক্রেট জেমি রাসকিন বলেন, ‘ট্রাম্প সহিংসতা উস্কে দিয়ে রিয়েলিটি শো দেখার মতো টিভিতে এটি উপভোগ করছিলেন।’ প্রতিনিধি স্টেইসি প্যাসকেট বলেন, সাবেক প্রেসিডেন্ট ইচ্ছাকৃতভাবে উস্কানি দিয়েছেন যা জ্যেষ্ঠ আইনপ্রণেতাদের তার সমর্থকদের হামলার লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করে, ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সও যার শিকার হন। সিনেটর জোয়াকুইন ক্যাস্ট্রো বলেন, ‘ট্রাম্প সবাইকে ক্যাপিটলে মারা যাওয়ার জন্য রেখে গিয়েছিলেন।’

[৬]অভিশংসন বিচারের এ পর্বে ডেমোক্রেটদের পাশাপাশি ট্রাম্পের আইনজীবীরা নিজেদের পক্ষ রাখার জন্য ১৬ঘণ্টা সময় পাবেন। এরপর ট্রাম্পের অভিশংসনের রায় হবে। ১০০ আসনের সিনেটে তাকে দোষী সাব্যস্ত করতে হলে ৫০হন ডেমোক্রেটসহ কমপক্ষে ১৭জন রিপাবলিকান সদস্যের সমর্থন প্রয়োজন হবে। এখন পর্যন্ত বেশিরভাগ রিপাবলিকান সদস্য তার পক্ষে থাকায় ট্রাম্প খালাস পাবেন বলেন মনে করা হচ্ছে।

[৭]এদিন ১২০জনেরও বেশি সাবেক রিপাবলিকান আইনপ্রণেতা ‘নতুন দল’ গঠনের ঘোষণা দিয়েছেন। তারা বলেন, বর্তমান রিপাবলিকান দল যেহেতু আনুষ্ঠানিকভাবে ট্রাম্পের সংবিধানবিরোধী কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে কিছু বলছে না তাই তারা একটি ‘মধ্য-ডানপন্থি’ দল গঠনের কথা ভাবছেন।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত