প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জঙ্গি সংগঠন আনসার আল ইসলামের সামরিক শাখার সদস্যসহ আটক ৬

সুজন কৈরী: রাজধানীর কল্যাণপুরসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় অভিযান চালিয়ে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন আনসার আল-ইসলামের ৬ সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব-৪। আটকরা হলো- শাকিল ইসলাম (১৯), আশিকুর রহমান (১৮), আবু ওবায়দুল্লাহ (১৭), তৌকির হোসেন (১৬), আরাফাত হোসেন নাঈম (১৯), আফসানুর রহমান রুবেল (৩১)। তাদের মধ্যে দুজন জঙ্গি সংগঠনটির সামরিক শাখার সদস্য বলে জানিয়েছে র‌্যাব।

বুধবার রাত থেকে বৃহস্পতিবার ভোর পর্যন্ত ঢাকা, নারায়নগঞ্জ, ময়মনসিংহ, সিরাজগঞ্জ ও রাজশাহীতে পৃথক অভিযান চালিয়ে ওই ৬ জনকে আটক করে র‌্যাব-৪ এরর পৃথক তিন টিম।

ব্যাটালিয়নের সহকারী পুলিশ সুপার মো. জিয়াউর রহমান চৌধুরী বলেন, আটকদের কাছ থেকে জঙ্গি সংগঠনটির বিভিন্ন ধরনের উগ্রবাদী বই, লিফলেটসহ ব্যাগ ও মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন। তাদের অন্য সহোযোগীদের গ্রেপ্তারে গোয়েন্দা নজরদারি অব্যাহত রয়েছে।

ব্যার-৪ জানিয়েছে, আটক শাকিল পেশায় একটি দোকানের সেলস্ম্যান। কিছুদিন ধরে আনসার আল ইসলামের সদস্য হিসেবে তিনি ও তার সহযোগীরা গোপনে অন্যদের উদ্ধুদ্ধকরণের জন্য বিভিন্ন কার্যক্রম চালাচ্ছিলেন। এছাড়া তিনি জঙ্গি সংগঠনটির সামরিক শাখার সদস্য বলে জিঙ্গাসাবাদে জানিয়েছেন। তার কাছ থেকে বোমা তৈরীর ম্যানুয়াল পাওয়া গেছে।

আশিকুর একটি দোকানের সেলস্ম্যান হিসাবে কাজ করেন। কয়েক বছর ধরে সদস্য হিসেবে জঙ্গি সংগঠনের সঙ্গে জড়িত থেকে অন্যদের সাথে গোপন বৈঠকের পাশাপাশি চাঁদা ও নতুন সদস্য সংগ্রহ করছিলেন। তিনিও জঙ্গি সংগঠনটির সামরিক শাখার সদস্য। তার কাছ থেকেও বোমা তৈরীর ম্যানুয়াল পাওয়া গেছে। বোমা তৈরীর কাঁচামাল ক্রয় করতে যাওয়ার প্রস্তুতির সময় শাকিল ও আশিককে রাজধানীর কল্যাণপুর থেকে আটক করা হয়।

ওবায়দুল্লাহ কলেজ ছাত্র। সংগঠনের সাথে জড়িত থেকে অন্যদের সঙ্গে গোপন বৈঠকের পাশাপাশি বন্ধুত্ব তৈরীকরে নতুন সদস্য সংগ্রহ করছিলেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তার আইডি থেকে বিভিন্ন উগ্রবাদী পোস্ট, ভিডিও আপলোডের প্রমাণ পাওয়া গেছে। তাকে নারায়নগঞ্জের ফতুল্লা থেকে আটক করা হয়েছে।

ময়মনসিংহের গফরগাঁও থেকে আটক তৌকির স্থানীয় একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র। তিনি বেশ কিছুদিন ধরে আনসার আল-ইসলামেন সঙ্গে জড়িত থেকে সামাজিক মাধ্যমে বেনামে একাউন্টে বিভিন্ন সময় উগ্রবাদী পোস্ট লেখা ও ভিডিও আপলোড করে উগ্রবাদী কার্যক্রম চালাচ্ছিলেন। এছাড়াও বিভিন্ন মাধ্যমে বিভিন্ন উগ্রবাদী লেখালেখি, ভিডিও এবং লিফলেট প্রচার করছিলেন।

সিরাজগঞ্জের কামারখন্দ এলাকা থেকে আটক আরাফাত স্থানীয় একটি কলেজের ছাত্র। জঙ্গি সংগঠনের সদস্য হিসেবে সহযোগীদের নিয়ে গোপনে অন্যদের উদ্ধুদ্ধ করণের জন্য বিভিন্ন কার্যক্রম চালাচ্ছিলেন।

রাজশাহীর চন্দ্রিমা এলাকা থেকে আটক আফসানুর পেশায় ইলেকট্রিক মিস্ত্রি। বেশ কিছুদিন ধরে আনসার আল-ইসলামের সঙ্গে জড়িত। পাশাপাশি নতুন নতুন সদস্য সংগ্রহ করছিলেন।

 

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত