প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

লোকেশনে সাহস ও ছায়াবাজি নামে দুই ছবি

ইমরুল শাহেদ: চলচ্চিত্র দর্শকের কাছে অপরিচিত, কিন্তু টিভি দর্শকের কাছে পরিচিত ও আলোচিত কিছু অভিনেতা-অেিনত্রী নিয়ে এই মুহূর্তে নির্মিত হচ্ছে বেশ কয়েকটি ছবি। তার মধ্যে সাহস ও ছায়াবাজি নামে দুটি ছবির শুটিং চলছে। ছবিগুলো সিনেমা হলেই মুক্তি পাবে বলে সংশ্লিষ্ট পরিচালকরা বলছেন। তারা এমন কথাও বলছেন, তাদের ছবিতে অনেক বাণিজ্যিক উপাদান রয়েছেন। কিন্তু প্রদর্শকরা সিনেমা দর্শকের কাছে পরিচিত ও বাণিজ্যিক ছবি ছাড়া প্রদর্শন করতে আগ্রহী হন না।

এ শ্রেণীর নির্মাতাদের সামনে দৃষ্টান্ত হয়ে আছে মনপুরা ও আয়নাবাজি ছবি দুটি। আয়নাবাজির অনুকরণেই ছায়াবাজি নামটি দেওয়া হয়েছে বলে ধারণা করা যায়। নাজিয়া হক অর্ষা অভিনীত ও সাজ্জাদ খান পরিচালিত নারী নির্যাতন বিরোধী বক্তব্য নিয়ে ‘সাহস’ নামের ছবিটির শুটিং হচ্ছে বাগেরহাটে। ছবির পরিচালক গণমাধ্যমকে বলেছেন, ‘ছবিটির কাজ শেষ করেই সেন্সরে জমা দেব।’ সাহস ছবিটি প্রথমে সিনেমা হলে এবং পরে ওটিটি প্ল্যাটফর্মে মুক্তি দেওয়া হবে।

অর্ষার বিপরীতে আছেন মোস্তাফিজুর নূর ইমরান। অর্ষা এর আগে রাইয়ান ও অর্পিতা নামে দুটি ছবিতে অভিনয় করেছেন। অন্যদিকে ইমপ্রেস টেলিফিল্মের ব্যানারে নির্মিত হচ্ছে ছায়াবাজি নামে একটি ছবি। এ ছবিতে অভিনয় করছেন শারমীন জোহা শশী, মডেল-অভিনেতা সাঞ্জু জন ও মৌসুমি হামিদ। ছবিটি নির্মাণ করছেন সোলায়মান জুয়েল। ছবিটি নিয়ে তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশে সাইকোলজিক্যাল থ্রিলার সিনেমা খুব একটা দেখা যায় না। ছায়াবাজি সেই তালিকার একটি ছবি হতে যাচ্ছে। গল্পটি দর্শককে বিনোদিত করবে। চেষ্টা করছি নির্মাণের মুন্সিয়ানা বজায় রাখতে।’ পরিচালকের এটি প্রথম ছবি। প্রযোজনা করছেন রাজু আলিম। তিনি এর আগে পপিকে নিয়ে ভালোবাসার প্রজাপতি নামে একটি ছবি নির্মাণ করেছেন। সে ছবিতে তিনি অভিনয়ও করেছেন। এ শ্রেণীর নির্মাতাদের মাধ্যমে ভিন্ন একটি ধারার সূত্রপাত হচ্ছে বলে মনে হচ্ছে। মিডিয়া জগত থেকে আসা এসব নির্মাতারা চলচ্চিত্রের মূলধারা থেকে বিচ্ছিন্ন।

সর্বাধিক পঠিত