প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পুলিশ হেফাজতে নির্যাতন: বিমানবন্দর থানার ওসি-এসআই’র বিরুদ্ধে মামলা

ডেস্ক রিপোর্ট: পুলিশ হেফাজতে নির্যাতনের অভিযোগে রাজধানীর বিমানবন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিএম ফরমান আলী এবং উপপরিদর্শক (এসআই) মাহবুব হোসাইনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন সালেহা সুলতানা সোমা নামে এক নারী।

বুধবার (১৪ অষ্টোবর) ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কেএম ইমরুল কায়েশের আদালতে হেফাজতে নির্যাতন নিবারণ আইনের এ মামলা করেছেন তিনি। বিচারক বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করে পরে আদেশ দেবেন বলে জানিয়েছেন। যা ওই আদালতের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর তাপস কুমার পাল নিশ্চিত করেছেন।

মামলায় বাদী অভিযোগ করেন, গত ১০ অক্টোবর বিমানবন্দর থানার একটি মামলায় বাদিনীর স্বামী শামীম হোসাইন ও জনৈক আসাদ নামের একজনকে গ্রেপ্তার করে রাত ৯টায় থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। পরবর্তীতে ফরমান আলীর নির্দেশে মাহবুব হোসাইন তাদের স্বীকারোক্তি আদায়ের জন্য শরীরের বিভিন্ন স্থানে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে অমানবিক নির্যাতন করেন। এতে তারা মারাত্মকভাবে আহত হন। পরদিন তাদের আদালতে পাঠানো হলে তাদের পক্ষে আইনজীবী নির্যাতনের কথা বর্ণনা করে নির্যাতন এবং মৃত্যু (নিবারণ) আইন ২০১৩ এর বিধি মোতাবেক ভুক্তভোগীদের বিবৃতি রেকর্ড করার আবেদন করেন।

বাদী আরও অভিযোগ করেন, আদালত ভুক্তভোগীদের খাসকামড়ায় নিয়ে পরনের কাপড় খুলে শরীরের নিচের দিকে মারধর এবং আঘাতের চিহ্ন দেখতে পান। তবুও আদালত বিএম ফরমান আলীর সুপারিশ করা মাহবুব হোসাইনের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে শামীম ও আসাদের এক দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এরপর ওই দুই জনকে হেফাজতে নেওয়ার পরপরই শামীম হোসাইন এই নির্যাতনের কারণে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরে তাকে উত্তরা ১ নম্বর সেক্টরে অবস্থিত মহিলা মেডিকেল কলেজে নেওয়া হয়। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় ১২ অক্টোবর তাকে আদালতে পাঠানো হয় এবং আসাদকে ওইদিন আদালতে না পাঠিয়ে নির্যাতন করে জোরপূর্বক স্বীকারোক্তি আদায়ের জন্য পরদিন আদালত নেওয়া হয়।

শামীম হোসাইন গত ১০ থেকে ১২ অক্টোবর ফরমান আলী এবং মাহবুব হোসাইনের হেফাজতে থাকা অবস্থায় নির্যাতনের শিকার হয়ে জেল হাজতে মানবেতর জীবন যাপন করছেন বলে মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়। এ অবস্থায় তৃতীয় ব্যক্তি হয়ে আদালতে শামীমের স্ত্রী মামলাটি দায়েরের আবেদন করেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত