প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] মে. জে. (অব.) আবদুর রশিদ বললেন, রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলো অস্থিতিশীল করতে সক্রিয় মিয়ানমার সেনাবাহিনীর ক্রীড়ানকরা

ভূঁইয়া আশিক : [২] এই নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ বলেন, রোহিঙ্গা ক্যাম্পে এসেও মিয়ানমার সেনাবাহিনীর সঙ্গে তাদের এজেন্টদের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়নি।

[৩] মিয়ানমার সেনাবাহিনীর কথামতো কাজ করেছে এজেন্টরা। এখন রোহিঙ্গা শিবিরে আশ্রয় নিয়েছে। এই এজেন্টরা মাদক চোরাচালানের সঙ্গে জড়িত, মিয়ানমার সেনাবাহিনীও যুক্ত মাদক কারবারের সঙ্গে।

[৪] ] মিয়ানমার সেনাবাহিনীর ক্রীড়নকদের খোঁজে বের করা জরুরি

[৫] নিরীহ রোহিঙ্গাদের থেকে তাদের আলাদা করতে হবে।

[৬] আন্তর্জাতিক চাপ থেকে বের হয়ে আসার জন্য সীমান্তে সৈন্যসমাবেশ ঘটানো কিংবা রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোতে অস্থিতিশীলতা তৈরি করে পরিস্থিতি ভিন্ন দিকে প্রবাহিত করতে চায় মিয়ানমার। [৮] রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ভেতরে যাতে কোনো মাস্তানি না হয়, সিন্ডিকেট গড়ে তুলতে না পারে নিরাপত্তা বাহিনীকে আরও সতর্ক হতে হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত