প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] শিক্ষা অর্জনে শরিফুলের পাশে দাঁড়ালেন ময়মনসিংহের পুলিশ সুপার

আব্দুল্লাহ আল আমীন: [২] “শিক্ষা অর্জনে দারিদ্রতা বাধা, থেমে নেই শরিফুল” শিরোনামে গত ২০ সেপ্টেম্বর আমাদের সময় ডটকম এ সংবাদ প্রকাশের পর ময়মনসিংহের পুলিশ সুপার মোঃ আহমার উজ্জামান সেই শিক্ষার্থীর পাশে দাঁড়ালেন।

[৩] মঙ্গলবার (২২ সেপ্টেম্বর) মঙ্গলবার দুপুরে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে এইচ এস সি শিক্ষার্থী মোঃ শরিফুল ইসলামের হাতে নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান করেন। শিক্ষা উপকরণসহ সবরকমের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে এবং শিক্ষার্থী পরিবারের পাশে থাকার ঘোষণা দেন।

[৪] এসময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ শাহজাহান, জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ওসি শাহ কামাল আকন্দ, ট্রাফিক ইন্সপেক্টর(প্রশাসন) সৈয়দ মাহবুবুর রহমান,আমাদের নতুন সময়ের প্রতিনিধি আব্দুল্লাহ আল আমীন প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

[৫] গত ২০ সেপ্টেম্বরে সেই শিক্ষার্থী বিবরণ প্রকাশ করা হয় আমাদের সময় ডটকমে। সদর উপজেলার দাপুনিয়া ইউনিয়নের হাড়গুজির পাড় গ্রামের দরিদ্র বাবা বেলাল হোসেনের ঘরে এক ছেলে ও এক মেয়ের সংসার। বড় ছেলে মোঃ শরিফুল ইসলাম ২০১৮ সালে ডি.কে কাওয়ালটি উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এস.এস.সি পরীক্ষায় উর্ত্তীণ হয়ে ডি.কে.জি.এস ইউনাইটেড কলেজে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে ২০২০ সালে এইচ.এস.সি পরীক্ষায় অর্থের অভাবে অংশগ্রহণ করতে পারেনি। বাধ্য হয়ে সংসারের হাল ধরতে ও লেখাপড়ার খরচ চালানোর জন্য অটো-বাইক নিয়ে অর্থ উপার্জনের জন্য রাস্তায় নামে। বাবা বেলাল হোসেনের ছোট মেয়ে মোছাঃ রিনা প্রতিবন্ধী। বাবা ভ্যান চালিয়ে কষ্টে সংসার চালাচ্ছে। ছেলেকে লেখাপড়া করানোর জন্য ইচ্ছা শক্তির অভাব নেই। ছেলেরও লেখাপড়া অর্জনে মনোবল দৃঢ়। উচ্চ শিক্ষা অর্জন করে কর্মের মাধ্যমে সংসারের হাল ধরতে চায় শরিফুল ইসলাম। সম্পাদনা: হ্যাপি

সর্বাধিক পঠিত