প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

দীপু তৌহিদুল: বেগম জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে বিএনপির বক্তব্যের সঙ্গে সরাসরি দ্বিমত পোষণ করছি

দীপু তৌহিদুল: বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎসা নিয়ে বিএনপির বক্তব্যের সাথে সরাসরি দ্বিমত পোষণ করছি, যুক্তিসঙ্গত কারণগুলো:

[১] কারা আইন সবার জন্য এক সমান এটা রাজনৈতিক নেতাদের বুঝতে হবে। যদি অতীত রেফারেন্স থাকে সেটা ভিন্ন কথা।

[২] বিএনপির স্থায়ী কমিটি সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন এই প্রশ্নে বলেছেন, ‘আমরা মনে করি না যে সরকার দলীয় সমর্থক চিকিৎসকদের দিয়ে খালেদা জিয়ার উপযুক্ত চিকিৎসা হবে। এটা আমরা বিশ^াস করতে পারছি না।’ এটা কোনো গ্রহণযাগ্য বক্তব্য হতে পারে না। কারণ কোনো ডাক্তার রোগীর ক্ষতি করে দেবেন তার রাজনৈতিক দৃষ্টি ভঙ্গির স্বার্থে, ভাবাটা আসলেই কঠিন।

[৩] ‘বিএসএমএমইউ’ই বাংলাদেশের একমাত্র বিশেষায়িত হাসপাতাল। এটাকে মন্দ বলার কোনো সুযোগ নেই। এখানেই দেশের সকল বরেণ্য ডাক্তার রয়েছে। প্রয়োজনে সরকার বিএসএমএমইউতে অন কল বিশেষ ডাক্তারকে ডেকেও আনতে পারে।

[৪] বিএনপির পক্ষ থেকে খালেদা জিয়াকে ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তির দাবি জানানো হচ্ছে। অবশ্য সরকার বলছে, বিএসএমএমইউ কিংবা সিএমএইচে চিকিৎসা দেওয়া হবে। বিএনপির ইউনাইটেড হসপিটাল আগ্রহ ভুল কিংবা ভিন্ন কারণে। তাদের ব্যাখ্যা করা উচিত কী জন্য ইউনাইটেড হসপিটালকে তারা পছন্দ করছে। অথচ আমাদের জানা ইউনাইটেড হসপিটাল কোনোভাবেই বিএসএমএমইউ ধারের কাছে দূরে থাক নখেরও যোগ্য নয়। এমনকি সিএমএইচকে বিএসএমএমইউ র সাথে তুলনা করলে অন্যায় হবে।

[৫] বিএনপি এবং বেগম খালেদা জিয়া সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা গ্রহণ করে নিয়ে ভালো নজির স্থাপন করতে পারেন, পাশাপাশি এতে তিনি আমাদের সাধারণের চিকিৎসা চাহিদা বুঝতে পারবেন। পিএম হিসেবে হাসপাতাল দেখা আর রোগী হিসেবে হাসপাতাল দেখার মাঝে তফাত রয়েছে। বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎসা ও তার মামলাগুলো নিয়ে যা হচ্ছে। তা খুব ভালো নজীর স্থাপনে সক্ষম হয়নি। ভালো নজির দেশকে এগিয়ে নিয়ে যায়, মন্দ নজির দেশকে পিছিয়ে দেয়। দেশের রাজনীতি সুস্থ পথে চলবে, তাই দেখার আশা রাখি আমরা। ফেসবুক থেকে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত