প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘সাজিদ খান আমাকে ওর সামনে নগ্ন হতে বলেছিল!’

ডেস্ক রিপোর্ট : হলিউড থেকে মিটু আন্দোলনের ঝড় এসেছিল বলিউডেও। তার রেশ ফিরিয়ে পরিচালক সাজিদ খানের বিরুদ্ধে যৌন নিগ্রহের অভিযোগ করলেন ভারতীয় মডেল পওলা। ফের মিটু তীরে বিদ্ধ বলিউড পরিচালক সাজিদ খান। নাবালিকা মডেল-অভিনেত্রীকে ছবিতে কাজ পাইয়ে দেওয়ার নামে নগ্ন হওয়ার প্রস্তাব দেওয়ার অভিযোগ তাঁর বিরুদ্ধে।

২০১৮ সালে বলিউড পরিচালক সাজিদ খানের বিরুদ্ধে একাধিক যৌন হেনস্থার অভিযোগ তুলেছিলেন বলিউডে একাধিক অভিনেত্রী,মডেল। সেই সময় মিটু আন্দোলনের ঝড় হলিউড থেকে আছড়ে পড়েছিল আবর সাগর পারেও। মিটু অভিযোগের জেরে সেই সময় হাউজফুল ৪ ছবির পরিচালকের আসন থেকে বাদ দেওয়া হয় সাজিদ খানকে। তারপর থেকে জনসমক্ষে সেভাবে দেখা মেলেনি ৪৯ বছর বয়সী এই পরিচালকের। নতুন করে পরিচালকের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থার অভিযোগ এনে ফের একবার বিতর্ক উস্কে দিলেন এই ভারতীয় মডেল।

নিজের ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডেলে পওলা লিখেছেন, ‘যখন #মিটু ঝড় ওঠে তখন ইন্ডাস্ট্রির অনেকেই সাজিদ খানের বিরুদ্ধে মুখ খোলেন। আমি কিছু বলার সাহস পাইনি। কারণ ইন্ডাস্ট্রিতে আমার কোনও গডফাদার ছিল না। আর পরিবারের জন্য রোজগার করার প্রয়োজন ছিল আমার। এখন আমার সঙ্গে আমার পরিবার নেই। তাই আজ বলতে দ্বিধা নেই মাত্র ১৭ বছর বয়সে ওই পরিচালক আমায় শারীরিক নির্যাতন করেছিল।’ এখানেই থামেননি পওলা, লিখেছেন সাজিদ খানের ছবি ‘হাউজফুল’-এ একটি চরিত্র পাইয়ে দেওয়ার নামে ওই পরিচালক তাঁকে নোংরা কথা বলেন। ইচ্ছার বিরুদ্ধে শরীরের নানা জায়গায় স্পর্শ করার চেষ্টাও করেন। পাওলার কথায়, ‘এখানেই শেষ নয়। সাজিদ আমাকে তার সামনে স্ট্রিপ করার প্রস্তাব দেয়। জানায়, তার সামনে বিবস্ত্র হলে সে আমায় রোল পাইয়ে দেবে।’

বছর দশেক আগে অর্থাৎ ২০১০ সালের ৩০ এপ্রিল মুক্তি পেয়েছিল ‘হাউজফুল’। দশ বছর ধরে তবে চুপ ছিলেন কেন পওলা? সে প্রশ্নের উত্তর পওলা নিজেই দিয়েছেন পোস্টে। তাঁর কথায়, ‘মাথার উপর কেউ ছিল না। আমার সাহস ছিল না সাজিদের বিরুদ্ধে কথা বলার।’ পওলা মেনে নেন সে সময় চুপ থেকে তিনি ভুল করেছিলেন। তিনি লিখেছেন, ‘ওর জায়গা জেল। শুধু কাস্টিং কাউচের অপরাধই নয়। এক নবাগতার স্বপ্নকে ছিনিয়ে নিয়েছিল ও। জানি না আর কত মেয়ের সঙ্গে এমন করেছে ওই ব্যক্তি।’ পাওলা থামেননি। তিনি পোস্টের ক্যাপশনে লিখেছেন, ‘গণতন্ত্র শেষ হয়ে যাওয়ার আগে আমার মনে হল এ বার আমার মুখ খোলা দরকার।’

পওলার ওই পোস্টে সাজিদের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায় একাংশ। ট্যুইটারে ট্রেন্ড উঠেছে #অ্যারেস্ট সাজিদ খান। যদিও সাজিদ এ নিয়ে এখনও পর্যন্ত কোনও মন্তব্য করেননি।এই সময়

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত