প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন
[১] ডেমোক্রেট দলের ভার্চুয়াল সম্মেলনের প্রথম দিনে নজর কেড়েছেন মিশেল ওবামা, বার্নি স্যান্ডার্স ও অ্যান্ড্রু কুমেও

লিহান লিমা: [২] মার্কিন অভিনেত্রী ও কনভেনশনের মডারেটর ইভা লরেঞ্জিয়া ‘ঐক্যবদ্ধ আমেরিকা’র ঘোষণা দিয়ে সোমবার রাতে(বাংলাদেশ সময় সকাল ৭টায়) শুরু করেন মার্কিন নির্বাচনে ডেমোক্রেট দলের জাতীয় ভার্চুয়াল সম্মেলন। প্রথম দিনের থিম ঘোষণা করা হয় ‘উই দ্য পিপলস’। সিএনএন

[৩] ভিডিওর শুরুতেই যুক্তরাষ্ট্রের প্রত্যেক অঙ্গরাজ্যের একজন করে শিশু সম্মিলিত কণ্ঠে গান দেশটির জাতীয় সঙ্গীত। সাধারণ আমেরিকানরা ভিডিও বার্তায় বলেন, ‘ডেমোক্রেটরা সত্যিকারের আমেরিকাকে তুলে ধরেছে।’ করোনা ভাইরাসে বাবাকে হারানো এক কন্যা বলেন, ‘আমেরিকা এখন দুইটি, যে আমেরিকায় আমার বাবা মারা গিয়েছেন এবং যে আমেরিকায় ডোনাল্ড ট্রাম্প বাস করেন। আমার বাবা ট্রাম্পকে ভোট দিয়েছিলেন, আর তাকে বিশ্বাস করেই তিনি মারা গিয়েছেন। আমি অবশ্যই জো বাইডেনকে ভোট দেবো।’

[৪] নিজের রেকর্ডকৃত ভিডিও বার্তায় প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের তীব্র সমালোচনা করেন সাবেক ফার্স্ট লেডি মিশেল ওবামা। তিনি বলেন, ‘ট্রাম্প যুক্তরাষ্ট্রের জন্য ভুল প্রেসিডেন্ট। তিনি হোয়াইট হাউসে স্থিতিশীলতা আনার বদলে বিশৃঙ্খলা, বিভক্তি সৃৃষ্টি করেছেন। তার সহানুভূতির পুরোপুরি অভাব রয়েছে।’ সাবেক এই মার্কিন ফার্স্ট লেডি আমেরিকানদের নভেম্বরের নির্বাচনে জো বাইডেনকে ভোট দেয়ার আহ্বান জানিয়ে বলেন, এর ওপর আমাদের জীবন নির্ভর করছে।

[৫] ডেমোক্রেট দলে বাইডেনের প্রথম প্রতিদ্বন্দ্বী বার্নি স্যান্ডার্স বলেন, ‘এই নির্বাচন আমাদের দেশের আধুনিক ইতিহাসে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। আমরা নজিরবিহীন সংকটের মুখে পড়েছি, আমাদের নজিরবিহীন ভাবে প্রতিক্রিয়া জানাতে হবে। গণতন্ত্রের ভবিষ্যত ঝুঁকিতে রয়েছে। গণতন্ত্র এবং শালীনতার সুরক্ষায় আমাদের লড়াই করতে হবে। রুখে দাঁড়াতে হবে লোভ ও কর্তৃত্ববাদের বিরুদ্ধে।’ স্যান্ডার্স নিজের সমর্থকদের বাইডেনকে ভোট দেয়ার আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘রোম যখন আগুনে পুড়ছিলো, নিরো তখন বেহালা বাজাচ্ছিল, আর ট্রাম্প গলফ খেলছেন। ট্রাম্প শুধু গণতন্ত্রের জন্যই হুমকি নন, বিজ্ঞানকে প্রত্যাখ্যান করে তিনি আমাদের জীবন এবং স্বাস্থ্যকে ঝুঁকিতে ফেলে দিয়েছেন। এই পরিস্থিতি থেকে উত্তরণে আমাদের জো বাইডেনকে প্রেসিডেন্ট নির্বাচন করতে হবে।’

[৬] ওহাইওর সাবেক গর্ভনর ও ২০১৬ সালে রিপাবলিকান দল থেকে প্রেসিডেন্ট পদে মনোনায়ন প্রার্থী জন কেচিস বলেন, ‘আমি সারাজীবন রিপাবলিকান ছিলাম। কিন্তু দেশের প্রতি আমার দায়িত্ব থেকে এটি বড় নয়। স্বাভাবিক সময়ে আমি কখনোই ডেমোক্রেট দলের সম্মেলনে আসতাম না কিন্তু এখন সময় স্বাভাবিক নয়।’

[৭] নিউইয়র্কের গর্ভনর অ্যান্ডু কুমো বলেন, ‘করোনা একটি উপসর্গ, অসুস্থতা নয়। আমাদের দেশ সংকটে রয়েছে, এবং কোভিড এক্ষেত্রে একটি রুপক । ভাইরস তখই আক্রমণ করে যখন শরীর দুর্বল থাকে এবং প্রতিরোধ করতে পারে না। গত কয়েক বছর ধরে যুক্তরাষ্ট্রে প্রশাসন দুর্বলতর হয়েছে, বিভক্তি চরমে পৌঁছেছে। মহামারীকালীন সংকট থেকে উত্তরণের জন্য আমাদের নেতৃত্ব প্রয়োজন, যে নেতৃত্ব আমাদের ঐক্যবদ্ধ করবে, বিভক্ত নয়। আর সেটি জো বাইডেনই করতে পারেন।’

[৮] পুলিশি নির্যাতনে মৃত কৃষ্ণাঙ্গ জর্জ ফ্লয়েডের ভাই ফিলোনিস ফ্লয়েড বলেন, ‘তার আজকের দিনের বেঁচে থাকার প্রয়োজন ছিলো। বর্ণবাদী হামলায় নিহতদের স্মরণ করা কখনোই বন্ধ করবো না। আমাদের ন্যায় বিচারের জন্য লড়তে হবে।’ এই সময় ঘৃণা ও বিচারহীনতার কারণে নিহত ফ্লয়েড ও অন্যান্যদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে কিছুক্ষণ নিরবতা পালন করেন তিনি।

[৯] ডিস্ট্রিক অব কলম্বিয়ার মেয়র মুরিয়েল বোসার ওয়াশিংটন ডিসির ‘ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার’ ম্যুরালের সামনে দাঁড়িয়ে বর্ণবাদী আন্দোলনে ট্রাম্পের ভূমিকার নিন্দা জানিয়ে বলেন, ‘আমরা যখন আন্দোলন করছিলাম ট্রাম্প তখন ষড়যন্ত্র করছিলো। ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার কথাটি শুধুই একটি শব্দ নয়, এটি এমন একটি বিষয় যা আমরা ধারণ করেছি এবং এটি নিয়ে বেঁচে আছি।’

[১০] অটো ওয়ার্কাস ইউনিয়ন হল থেকে দেয়া ভিডিওবার্তায় মিশিগানের গর্ভনর গ্রেচেন হুইটমার বলেন, ‘জো বাইডেন ও সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা নিজেদের দায়িত্বকে পাশ কাটিয়ে বা অন্যকে দোষারোপ করে সময় নষ্ট করেন না।’

[১১] নেভাদার সিনেটর ক্যাথরিসন কোর্তেজ বলেন, ‘ট্রাম্প একজন হিপোক্রেট, তিনি নিজে ফ্লোরিডা থেকে মেইলে ভোট দিচ্ছেন অথচ মেইল-ইন ভোটের বিরোধীতা করছেন।’

[১২] চার দিনের এই সম্মেলনে আনুষ্ঠানিকভাবে মনোনায়ন গ্রহণ করবেন জো বাইডেন ও তার রানিংমেট কমলা হ্যারিস। সম্পাদনা: ইকবাল খান

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত