প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ‘দেশ সত্যিটা জানতে চায়’, দাবি সুশান্তের দুই প্রাক্তন বান্ধবী অঙ্কিতা ও কৃতী

তন্নীমা আক্তার : [২] দু’মাস হয়ে গেল চলে গিয়েছেন সুশান্ত সিং রাজপুত। কিন্তু সেদিন ঠিক কী হয়েছিল তা এখনো মানুষের কাছে স্পষ্ট নয়। মৃত্যুর খবর ছড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে মুম্বই পুলিশ জানিয়েছিল যে সুশান্ত আত্মঘাতী হয়েছেন এবং তিনি বহু দিন ধরে অবসাদে ভুগছিলেন। কিন্তু ক্রমশ এই ঘটনা অন্য দিকে মোড় নিতে থাকে। প্রত্যেক দিনই তদন্তে উঠে আসছে নতুন নতুন কিছু তথ্য। আর তাই সত্যিটা জানার জন্য লড়াই করছে প্রয়াত অভিনেতা পরিবার। সুশান্তের দিদি আজ টুইট করে জানিয়েছেন তারা সত্যিটা জানতে চান এবং সুবিচার পেতে চান। সেই একই দাবিতে সরব হলেন সুশান্তের ২ প্রাক্তন বান্ধবী অঙ্কিতা লোখন্ডে এবং কৃতি সানন।

[৩] সুশান্তের বোন টুইট করেছেন,”সত্যিটা জানার এবং সুবিচার পাওয়ার সময় হয়েছে। দয়া করে আমাদের পরিবার এবং সারা বিশ্বকে সাহায্য করুন সত্যিটা জানতে। না হলে আমরা কখনই শান্তিতে বেঁচে থাকতে পারবো না। সুশান্তের সুবিচারের জন্য আপনারা সবাই সরব হোন। #justiceforSushantSinghRajput”

[৪] একই হ্যাশট্যাগ ব্যবহার করে অঙ্কিতা লোখান্ডে একটি ভিডিও পোস্ট করেন তাঁর ইনস্টাগ্রামে। সেখানে অঙ্কিতা বলেন, “দেশ জানতে চায় সুশান্ত সিং রাজপুত এর সঙ্গে কী হয়েছিল। #justiceforSushantSinghRajput #CBIforSushant”

[৫] কৃতি সানন ইনস্টাগ্রম স্টোরিতে এই বিষয়ে একটি পোষ্ট করেন। কৃতি লেখেন, “আমি প্রার্থনা করছি যাতে সত্যিটা তাড়াতাড়ি সামনে আসে। সুশান্তের পরিবার, বন্ধুবান্ধব, অনুরাগী এবং সমস্ত প্রিয়জনদের সত্যিটা জানার অধিকার আছে। আমি আশা করছি এবং প্রার্থনা করছি, সিবিআই এর ঘটনার তদন্ত করুক জাতির এই মামলায় কোন রাজনৈতিক দাগ না লাগে। জাতি সত্যিটা জানা যায় এবং পরিবার সুবিচার পেতে পারে। এবার সত্যিই ওর আত্মার শান্তি পাওয়া উচিত। #justiceforSushantSinghRajput #CBIforSushant”

প্রসঙ্গত, ১৪ জুন বান্দ্রা ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হয় সুশান্তের দেহ। মুম্বই পুলিশ জানিয়ে দেয় তিনি আত্মঘাতী হয়েছেন এবং অবসাদে ভুগছিলেন। তার এক মাস পর বিহার পুলিশের দ্বারস্থ হন সুশান্তের বাবা কে কে সিং। অভিনেতার বান্ধবী তথা অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেন তিনি। রিয়ার বিরুদ্ধে ওঠে প্রতারণা, আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়া, সুশান্তের টাকা বেআইনিভাবে তোলা, ওষুধের ওভারডোজ সহ নানা অভিযোগ। তারপরেই এই তদন্তে নামে বিহার পুলিশ। কিন্তু মুম্বই পৌঁছে তাঁদের সঙ্গে দ্বন্দ্ব লাগে মুম্বই পুলিশের। দুই রাজ্যের পুলিশের মধ্যে এমন দ্বন্দ্বের পর এই তদন্ত তুলে দেওয়া হয় সিবিআই এর হাতে। এই মুহূর্তে সিবিআই এই ঘটনার তদন্ত করছে।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত