প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] চট্টগ্রামে এমএলএম এর মাধ্যমে প্রতারণা ও ক্ষতিকর ওষুধ বিক্রয় করায় অর্থদণ্ড ও বিপুল ওষুধ জব্দ

জুয়েল বড়ুয়া, চট্টগ্রাম প্রতিনিধি : [২] মানুষের সরলতার সুযোগ নিয়ে এমএলএম এর মাধ্যমে প্রতারণা ও ক্ষতিকর ওষুধ বিক্রয় করায় অর্থদণ্ড ও বিপুল ওষুধ জব্দ করেছে চট্টগ্রাম জেলা প্রাশাসন।

[৩] সোমবার (২২ জুন) সকালে নগরীর পাঁচলাইশ থানাধীন মুরাদপুর এলাকার আইকন টাওয়ারের ৭ম তলায় অবস্থিত এক্সিলেন্ট ওয়ার্ল্ড নামক প্রতিষ্ঠানকে বিভিন্ন অনিয়মের জন্যে ৫০০০০( পঞ্চাশ হাজার) টাকা অর্থদণ্ড করা হয়।

[৪] জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ উমর ফারুকের নেতৃত্বে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

[৫] উমর ফারুক বলেন, প্রতিষ্ঠানটি মাল্টি লেভেল মার্কেটিং পদ্ধতিতে বিভিন্ন ধরনের ওষুধ ও কসমেটিক্স বিক্রয় করে আসছে যা ডাক্তারে পরামর্শ ব্যতিরেকে মানব দেহের জন্য বিপদজনক।

[৬] ওষুধগুলোর মধ্যে পাওয়ার সোর্স কিং, ভিটা পাওয়ার, ওমেগা ৩-৬-৯, হার্ট কেয়ার ও গ্যানো মরিং ফুড ক্যাপসুল যা যৌন উত্তেজক, শক্তিবর্ধক, হৃদ রোগ কমায় বলে দাবি করে এমএলএম এর মাধ্যমে ব্যবসা করে আসছে।

[৭] তিনি আরও বলেন, একজন কাস্টমারকে সদস্য হতে হলে ৭০০০( সাত হাজার) টাকার ওষুধ সামগ্রী কিনতে হয় ফলে নতুন কেউ যদি তার মাধ্যমে যোগ দেয় তাহলে তিনি কমিশন ৫০০ টাকা পায়। অর্থাৎ সাইক্লিং পদ্ধতিতে এ ব্যাবসা পরিচালনা করা হয়।ম্যাজিস্ট্রেট বলেন এক্সিলেন্ড ওয়ার্ল্ডের ব্যবসার জন্যে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের কোন অনুমোদন নেই।

[৮] ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক হোসাইন মোহাম্মদ ইমরান বলেন, ওষুধগুলির কোন রেজিষ্ট্রেশন নেই। ওষুধ গুলিতে থেরাপিউডিক দাবী করা হয়েছে যে বিভিন্ন রোগের চিকিৎসা রোগের চিকিৎসায় এই ওষুধ সমুহ কাজ করছে।

[৯] প্রকৃতপক্ষে এসব ঔষধের সরকারের কোন অনুমোদন নেই এসব যৌন শক্তি বর্ধক জাতীয় ওষুধ প্রেস্ক্রিপশন করার কোন নিয়ম নেই।এসব ওষুধ সেবনে জনগনের স্বাস্থ্যের অনেক ক্ষতির করতে পারে।

[১০] অভিযানে কোম্পানির বিপুল পরিমান ওষুধ ও কাগজপত্র জব্দ করা হয়। এ ধরনের অনিয়মের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান জেলা প্রশাসনের এই কর্মকর্তা। সম্পাদনা: জেরিন আহমেদ

সর্বাধিক পঠিত