প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১]লিবিয়ায় কর্মী পাঠানো বন্ধ পাঁচ বছর, তবুও এতো লোক কিভাবে গেলো সেই তদন্ত করা উচিত

কূটনৈতিক প্রতিবেদক : [২] সিভিল সোসাইটি ফর গ্লোবাল কমিটমেন্টস অন মাইগ্রেশন যৌথ বিবৃতিতে এ প্রশ্ন তুলে লিবিয়ায় ২৬ বাংলাদেশি হত্যাকারী চক্রকে বিচারের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছে।

[৩] এ ব্যাপারে প্রয়োজনে বাংলোদেশকে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংস্থার সহযোগিতা নিতে হবে।

[৪] কারণ লিবিয়ার এই পাচারকারী চক্র ইউরোপে পাঠানোর নামে দীর্ঘদিন ধরে অভিবাসীদের জিম্মি ও নিপীড়ন করছে।

[৫] বিবৃতিতে বলা হয়, লিবিয়ার গৃহযুদ্ধ চলার সুযোগ নিয়ে গত প্রায় এক দশক ধরে মানবপাচারকারী চক্র সেখানে সক্রিয়।

[৬] তারা ইউরোপে লোক পাঠানোর নামে এককজনের কাছ থেকে গড়ে তিন থেকে চারলাখ টাকা নিচ্ছে। প্রায়ই সেখানে দুর্ঘটনায় বাংলাদেশিরা প্রাণ হারাচ্ছেন।

[৭] এভাবে যেন আর কোন অভিবাসী সেখানে প্রাণ না হারায় আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংস্থাকে সেই দায়িত্ব নিতে হবে।

[৮] এ ব্যাপারে বাংলাদেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়কে জোর ভূমিকা পালন করতে হবে।

[৯] ইউএনএইচসিআরের তথ্য অনুযায়ী, ২০১৪ থেকে এ বছরের এপ্রিল পর্যন্ত প্রায় সাড়ে বিশ লাখ মানুষ ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়েছেন।

[১০] এভাবে সাগরপথ পাড়ি দিতে গিয়ে ১৯ হাজারেরও বেশি মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন, যার মধ্যে অনেক বাংলাদেশি রয়েছেন।

[১১] চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে এপ্রিলেই শুধু ৬৯৩ জন বাংলাদেশি এভাবে ইউরোপে প্রবেশ করতে গিয়ে আটক হয়েছেন।

[১২] যৌথ বিবৃতি প্রদানকারী সংস্থাগুলো হলো ব্র্যাক, বিএনএসকে, আইআইডি, ওকুপ, ওয়ারবী, বিএনপিএস, আসক, বিলস, বিএনডব্লিউএলএ, বোমসা, এসিডি, আওয়াজ, ফিল্মফরপিস, কর্মজীবি নারী, ডেভকম, ইমা, মাইগ্রেশন নিউজ এবং এসএনএ।

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত