প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রাজশাহীতে সংবাদ প্রচারের নামে স্কুলে গিয়ে চাঁদাবাজির অভিযোগ ‘আরডিটিভি টুয়েন্টিফোর’ নামের একটি সংবাদ মাধ্যমের

মুসবা তিন্নি : [২]স্কুলে স্কুলে গিয়ে নানান সমস্যার কথা তুলে ধরে সংবাদ প্রচারের নামে অর্থ হাতিয়ে নিচ্ছে একটি প্রতারক চক্র। ‘আরডিটিভি টুয়েন্টিফোর’ প্রতিদিনের খবর নামের একটি সংবাদ মাধ্যমের পরিচয় দিয়ে তারা স্কুলে স্কুলে গিয়ে কৌশলে চাঁদাবাজি করছে। সম্প্রতি এমন চাঁদাবাজির ঘটনা ঘটেছে রাজশাহী মহানগর ও তার আশাপাশসহ জেলার মোহনপুর উপজেলার মৌগাছী উচ্চ বিদ্যালয়ে।

[৩]বুধবার অত্র বিদ্যালয়ে উপস্থিত হয় ‘আরডিটিভি টুয়েন্টিফোর’ প্রতিদিনের খবর নামের রাজশাহী জেলা করোসপনডেন্ট রেজাউল করিম ও তার ক্যামেরা পারসন। শিক্ষকগণ আরটিভি চ্যানেলের লোকজন মনে করে প্রধান শিক্ষক তাদেরকে প্রতিষ্ঠানে উপস্থিতির কারণ জানতে চান।

[৪]রেজাউল করিম বলেন, গত দুইদিন এসে প্রতিষ্ঠান খোলা পাওয়া যায়নি। প্রধান শিক্ষক প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার আগেই রেজাউল করিম বলেন, এই স্কুলে শেখ রাসেল কম্পিউটার ল্যাব আছে? উত্তরে প্রধান শিক্ষক বলেন, নাই। এরপরেই রেজাউল করিম বলেন, আর কি কি নাই। স্কুলে প্রাচীরতো নেই। দেখছি স্কুলে অনেক কিছুই নেই। এই স্কুলেতো অনেক ছাত্র-ছাত্রী। আপনাদের চেয়ে অনেক দুর্বল স্কুলে ল্যাবসহ অনেক কিছুই আছে। আপনারা মিডিয়ার সাথে সম্পর্ক না রেখে চলায় পিছিয়ে আছেন। চ্যানেলে এসব সমস্যার বিষয় তুলে ধরলে খুব শীঘ্রই সমাধান হয়ে যাবে। বিভিন্ন শ্রেণিকক্ষে ঢুকে ভিডিও ক্যামেরা দিয়ে শিক্ষার্থীদের সচিত্র ও বুম দিয়ে কথোপকথন নিতে থাকেন। এতে নির্ধারিত ক্লাসগুলো এলোমেলো হয়ে যায়। ক্যামেরা পারসন হিসেবে সাথে ছিলেন রফিকুল ইসলাম।

[৫]এরপর তারা অফিস কক্ষে আসেন। শেষে প্রধান শিক্ষকের নিকট চার হাজার টাকা দাবি করেন। প্রধান শিক্ষক তাদের দাবিকৃত টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানান। এতে রেজাউল করিম প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন অনিয়ম আছে সাংবাদিকরা পিছনে লাগলে প্রতিষ্ঠানের খারাপ হবে বলে জানান। অনেক কিছুর পরে শেষে প্রধান শিক্ষক এক হাজার দিতে চায়। কিন্তু তারা নানা অজুহাতে দেখিয়ে দুই হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়।

[৬]চাঁদাবাজির বিষয়টি অস্বীকার করে রেজাউল করিম বলেন, আমাদের কাজে সন্তুষ্ট হয়ে প্রধান শিক্ষক দুই হাজার টাকা দিয়েছেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত