প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বিএসএফ-এর গুলিতে ফেলানি হত্যার ৯ বছর পার হয়েছে
৫ বছর পর ভারতের সুপ্রিম কোর্টে শুরু হলো মামলার শুনানি

আসিফুজ্জামান পৃথিল : শুক্রবার বিচারপতি ওয়াই চন্দ্রচূড় ও কে এম যোশেফের আদালতে ফেলানির পিতা মোহাম্মদ নুরুল ইসলাম ও ভারতের মানবাধিকার সংস্থা বাংলার মানবাধিকার সুরক্ষা মঞ্চের (মাসুম) সম্পাদক কিরীটি রায়ের করা রিট পিটিশনের শুনানিতে সরকার পক্ষ থেকে বক্তব্য পেশ করা হয়েছে বলে গণমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে।

১৮ মার্চ পরবর্তী শুনানির দিন বাদীপক্ষ যুক্তি উপস্থাপন করবে বলে জানিয়েছেন, মামলার অন্যতম আবেদনকারী কিরীটি রায়।

২০১৫ সালের ২ জুলাই সুপ্রিম কোর্টে এই আবেদন জানানো হয়েছিল। আদালত পিটিশনটি গ্রহণ করলেও গত ৫ বছরে একাধিকবার দিন ধার্যের কথা জানা গেলেও কোনও শুনানি হয়নি।

আবেদনে ফেলানি হত্যার নিরপেক্ষ তদন্ত দাবি করার পাশাপাশি অভিযুক্তদের শাস্তির দাবি জানানো হয়েছে।

ভারতের জাতীয় মানবাধিকার কমিশন ফেলানি হত্যার তদন্ত করে ৫ লক্ষ রুপি ক্ষতিপূরণ দেবার নির্দেশ দিয়েছিলেন। কিন্তু সেই ক্ষতিপূরন আজও দেওয়া হয়নি।

২০১১ সালের ৭ জানুয়ারি পিতার সঙ্গে ভারত থেকে দেশে ফিরছিলো কিশোরী ফেলানি খাতুন। সীমান্তের কাঁটাতারের বেড়া পার হওয়ার সময় কিশোরী ফেলানির জামা কাঁটাতারে আটকে যায়। এসময় নিরস্ত্র ফেলানির উপর গুলি চালায় বিএসএফ। মৃত্যুর পরেও তার লাশ এক দিনের বেশি সময় কাঁটাতারে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছিলো। সম্পাদনা : সালেহ্ বিপ্লব

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত