প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জেনারেল মইন ইউ আহমেদের স্মৃতিচারণ, সেদিন মৃত্যুর প্রস্তুতি নিয়ে বঙ্গভবনে গিয়েছিলাম

সালেহ্ বিপ্লব : ২. গতকাল ছিলো বহুল আলোচিত ওয়ান ইলেভেনের ১৩ বছর পূর্তি। ২০০৭ সালের ১১ জানুয়ারি দেশের রাজনীতিতে বিরাট পরিবর্তন এনেছিলো। সেদিনের ঘটনাপ্রবাহ উঠে এসেছে সে সময়কার সেনাপ্রধান জেনারেল মইনের স্মৃতিচারণমূলক ‘শান্তির স্বপ্নে’ গ্রন্থে, যা প্রকাশিত হয় ২০০৯ সালে।
৩. তিনি লিখেছেন, সশস্ত্র বাহিনীর অন্যান্য প্রধান ও ডিজিএফআইয়ের একজন শীর্ষস্থানীয় কর্মকর্তাকে নিয়ে সেদিন বঙ্গভবনে গিয়েছিলেন প্রেসিডেন্ট ইয়াজউদ্দিন আহমেদকে পরিস্থিতি বোঝানোর জন্য।

৪. তারা আড়াইটার সময় বঙ্গভবনে প্রবেশ করেন। ভেতরে গিয়ে শোনেন, প্রেসিডেন্ট মধ্যাহ্নভোজ করছেন। তাদের একটি কামরায় অপেক্ষা করিয়ে রাখা হয়। ঘণ্টা দেড়েক অপেক্ষা করবার পর প্রেসিডেন্টের দেখা মেলে। প্রেসিডেন্টকে তারা ‘মহা-সংকটময় পরিস্থিতি’ থেকে দেশকে উদ্ধার করার অনুরোধ জানান।
৫. প্রেসিডেন্ট বিষয়টি ভেবে দেখার সময় নেন। দীর্ঘ নীরবতার পর প্রেসিডেন্ট জরুরী অবস্থা জারীর পক্ষে মত দেন। সেই সঙ্গে তিনি নিজে প্রধান উপদেষ্টার পদ থেকে সরে দাঁড়িয়ে উপদেষ্টা পরিষদ ভেঙে দেবেন বলে জানান।

৬. মইন ইউ আহমেদ লিখেছেন, তিনি এমন কিছু প্রস্তাব নিয়ে যাচ্ছিলেন, যার কারণে তৎক্ষণাৎ রাষ্ট্রপতি তাদের বরখাস্ত করতে পারেন, গ্রেপ্তারের নির্দেশ দিতে পারেন, এমনকি হত্যার নির্দেশও দিতে পারেন। তার ভাষায়, “আমি জানতাম হতে পারে এ যাত্রাই সেনাবাহিনী প্রধান হিসেবে আমার শেষ যাত্রা কিংবা কে জানে হয়তো জীবনের শেষ যাত্রা।”
৭. বঙ্গভবনে রওয়ানা হওয়ার আগে মেজর জেনারেল ইকবাল করিম ভূঁইয়াকে তিনি বলেছিলেন, “আমি না ফিরলে পরবর্তী পরিস্থিতি সিজিএস হিসেবে প্রাথমিকভাবে তাকেই সামাল দিতে হবে।”সম্পাদনা : খালিদ আহমেদ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত