প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘পাকিস্তানের আসল রূপ এটাই’, কানেরিয়ার পাশে দাঁড়িয়ে ইমরানকে তোপ গম্ভীরের

রাশিদ রিয়াজ : পাকিস্তানের মতো দেশে যে সত্যিই হিন্দুরা ধর্মীয় কারণে নিপীড়ণের শিকার তা চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছেন প্রাক্তন ক্রিকেটার শোয়েব আখতার। একদা সতীর্থ প্রাক্তন ক্রিকেটার দানিশ কানেরিয়াকে কীভাবে দলের মধ্যেই হেনস্তা করা হত তা ফাঁস করে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছেন রাওয়ালপিণ্ডি এক্সপ্রেস। বিস্ফোরক সেসব তথ্য সামনে আসতেই এবার পাকিস্তানকে একহাত নিলেন প্রাক্তন ভারতীয় ওপেনার গৌতম গম্ভীর।

পাকিস্তানের হয়ে ৬১টি টেস্ট ম্যাচ খেলে ২৬১টি উইকেট নিয়েছেন লেগস্পিনার কানেরিয়া। দেশের জার্সিতে খেলেছেন ১৮টি ওয়ানডে। বহু টেস্ট ম্যাচ জিতিয়েছেন তিনি। কিন্তু স্রেফ ধর্মের জন্য দলের মধ্যে কয়েকজন সতীর্থের কাছে ব্রাত্য ছিলেন কানেরিয়া। অনেকেই তাঁর সঙ্গে এক টেবিলে বসে খেতে চাইতেন না। সতীর্থের পাশে দাঁড়িয়ে বোমা ফাটিয়েছেন শোয়েব। বৃহস্পতিবার এক পাক টিভি চ্যানেলের অনুষ্ঠানে বিস্ফোরক মন্তব্য করেছেন শোয়েব। বলেন, ‘আমার কেরিয়ারে কয়েকজনের সঙ্গে আমি লড়াই করেছি, যখন তাঁরা ধর্ম নিয়ে কথা বলত। কখনও কখনও তাঁরা বলত, কে করাচির, কে লাহোরের কে পেশোয়ারের! শুনে রাগ হত। কোনও ক্রিকেটার যদি হিন্দু হয়, আর সে যদি পাকিস্তানের হয়ে পারফর্ম করে, তাহলে ধর্মের প্রশ্ন ওঠে কীভাবে?’

প্রাক্তন ক্রিকেটার আরও বলেছেন, ‘যাঁরা বলত, স্যর ওই ছেলেটা এখান থেকে খাবার নিচ্ছে কেন? তাঁরা ভাবত না, এই ছেলেটাই ইংল্যান্ডে আমাদের টেস্ট জিতিয়েছিল। সাবই আমার নাম নেয়, কিন্তু আমি তো জানি কানেরিয়া দুর্দান্ত বল না করলে আমরা জিততে পারতাম না। অনেকেই ওকে ক্রেডিট দিতে চায় না।’

এবার এই প্রসঙ্গে ইমরান খান তথা পাকিস্তানকে তীব্র বাক্যবাণে বিঁধলেন গৌতম গম্ভীর। প্রাক্তন তারকা বলেন, “এটাই পাকিস্তানের আসল চেহারা। আমাদের দলের অধিনায়ক ছিলেন মহম্মদ আজহারউদ্দিন। ৮০-৯০টা টেস্টে দলকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। এটাই পাকিস্তানের সত্যিকারের রূপ। ওই দেশের প্রধানমন্ত্রী একজন ক্রিকেটার (ইমরান খান)। তারপরও সেখানকার মানুষদের এসব সহ্য করতে হয়েছে। পাক দলের হয়ে ৬০টি ম্যাচ খেলেছেন কানেরিয়া। তাই এ ঘটনা অত্যন্ত লজ্জার।” সঙ্গে জুড়ে দেন, “মহম্মদ কাইফ, ইরফান পাঠান, মুনাফ প্যাটেলকে ভারত অনেক সম্মান দিয়েছে। প্যাটেল তো আমার খুব ঘনিষ্ঠ বন্ধু। আমরা সবসময় দেশকে জেতাতে দলগতভাবে খেলেছি। কিন্তু পাকিস্তানের থেকে যা খবর এল, তা অত্যন্ত দুঃখজনক।”

এই ব্যাপারে কানেরিয়ার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে প্রাক্তন ক্রিকেটার সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘শোয়েব ভাই একজন লেজেন্ড। ওঁর বলের মতো ওঁর কথাবার্তা ক্ষুরধার। যখন পাকিস্তানের হয়ে খেলতাম, তখন এই কথাগুলি প্রকাশ্যে বলার সাহস ছিল না। কিন্তু শোয়েবের বক্তব্যের পর এবার মুখ খোলার সময় এসেছে। সেইসময়ে আমার হয়ে লড়েছে ইনজি ভাই (ইনজামাম উল হক), মহম্মদ ইউসুফ ও ইউনিস ভাই (ইউনিস খান)। যাঁরা আমার সঙ্গে এমন ব্যবহার করত তাঁদের নাম জানাব। তবে এটাও বলব পাকিস্তানের হয়ে খেলার সুযোগ পেয়ে আমি সম্মানিত।’ এমনকী, পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের কাছে তাঁর আরজি, এমন পরিস্থিতি থেকে যেন তাঁকে বের করা হয়। তিনি ভাল নেই। সংবাদ প্রতিদিন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত