প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পুরস্কারের কৃতিত্ব মা মধু চোপড়াকেই দিলেন প্রিয়াঙ্কা

মুসবা তিন্নি : শিশুদের অধিকার নিয়ে কাজ করার জন্য সম্প্রতি হিউম্য়ানিটোরিয়ান পুরস্কারে সম্মানিত করা হয়েছে প্রিয়াঙ্কা চোপড়াকে। আর এই পুরস্কারের কৃতিত্ব নিজের মা মধু চোপড়াকেই দিলেন দেশি গার্ল প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। জি নিউজ বাংলা

প্রিয়াঙ্কার লিখেছেন, '' মা এটা সেটাই, যে শিক্ষা তুমি আমায় জীবনের শুরু থেকেই দিয়েছিলে আশাকরি আমি তোমার গর্বিত করতে পেরেছি। মাকে গর্বিত করে তোলার মতো খুশি আর কিছুতে নেই।'' নিজের ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে মা মধু চোপড়ার সঙ্গে ছবি পোস্ট করে এ কথা লিখেছেন প্রিয়াঙ্কা।

প্রিয়াঙ্কাকে শুভেচ্ছা জানিয়ে তার স্বামী নিক জোনাস লিখেছেন, ''তোমার জন্য গর্ব হচ্ছে। তুমি UNICEF-এর গুডউইল অ্যাম্বাসাডর হিসাবে কাজ করছ গত ১৫ বছর ধরে। তোমার কাজ প্রতিদিনই আমাকে অনুপ্রেরণা দিয়েছে। তোমার জন্য শুভেচ্ছা রইল।''

বহুদিন হলো UNICEF-এর গুডউইল অ্যাম্বাসাডর হিসাবে কাজ করছেন দেশি গার্ল প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে গিয়ে কাজ করছেন শিশুদের অধিকার নিয়ে সম্প্রতি UNICEF বার্ষিক স্নোফ্লেক বল বিশেষ সম্মানে সম্মানিত হন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। শিশুদের অধিকারে নিয়ে কাজ করার জন্য ড্যানি কায়ে হিউম্য়ানিটোরিয়ান পুরস্কারে সম্মানিত করা হয় প্রিয়াঙ্কাকে। আর এই কৃতিত্বই প্রিয়াঙ্কা তার মাকে দিয়েছেন।

এ বছর মেয়ে প্রিয়াঙ্কার জন্মদিন তাকে নিয়ে মুখ খুলেছিলেন মধু চোপড়া। প্রিয়াঙ্কার জন্মের সময় কিছু ঘটনা সকলের সঙ্গে ভাগ করে নিয়ে মধু চোপড়া জনিয়েছিলেন, ''প্রিয়াঙ্কার জন্মের সময় ওর বাবা শহরে ছিলেন না। আমাকে তড়িঘড়ি হাসপাতালে দৌঁড়াতে হয়েছিলো। ও সিজারিয়ান বেবি। ওর জন্মের আগে এক নার্স আমায় জিজ্ঞেস করেছিলেন যে আমি কী চাই। আমি বলেছিলাম মেয়ে। তিনি অবাক হয়ে বলেছিলেন সকলে ছেলে চায়, আর আপনি মেয়ে। আমি দৃঢ়তার সঙ্গে বলেছিলাম, না আমি মেয়েই চাই। আর ওর চার মাস আগে থেকেই এক ঘনিষ্ঠ বন্ধুর পরামর্শে আমি মেয়ে হলে নাম প্রিয়াঙ্কা রাখব ঠিক করেই রেখেছিলাম। ও ছোট থেকে টম বয় ছিলো । ক্লাসে বরাবর প্রথম কিংবা দ্বিতীয় হতো। ও যখন কলেজে পড়ে তখন মিস ইন্ডিয়া প্রতিযোগিতা জিতেছে। এখন আমার আদরের মেয়ে অন্য কারোর হয়ে গেছে। সম্পাদনা : এইচএ/এসবি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত