প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

উত্তর-ইতিহাসের তিন সাক্ষী

দেবদুলাল মুন্না

হেগেলিয়ান
পথটি নেমে গেছে লালচে মাটির খাদে। তার উপরের ভাসমান মেঘদলে লেগে আছে গোলাপি আভা। সেই আভার ভেতরে আবছা একটা বেড়ালের চোখ যেন জন্ম নিচ্ছে। বেড়ালের চোখে দুটো মার্বেল গড়িয়ে পড়ার অপেক্ষায়। তার মনে হলো কোথাও থেকে অনুসরণ করা হচ্ছে তাকে। গির্জার ঘণ্টা বাজছে অদূরে। সে কী ভেবে মাথার ওপর ভর করে পা দুটো‍ুউপরে তুলে অদ্ভুত ভঙ্গিতে খাদের দিকে যেতে লাগল। এ না দেখলে বিশ্বাস করার নয়। তার গল্প এতটুকুই। এর শত বছর পর ফুকুয়ামা নামের এক ফিলোসফার আমেরিকাতে তার অবস্থান বোঝাতে গিয়ে বলেছিলেন এন্ড অফ দ্য হিস্ট্রি, ইতিহাসেরই শেষ হলো।

লেভেলার জাগিতেছে ধীরে ধীরে
সে একজন লেভেলার। মানে মনে করে ‘ল অফ নেচার’ই সব। আসল নাম আমাদের জানা নেই। তার বাবা সাধারণ অনাবাদি জমি দখল করে চাষ করতেন, খনন করতেন। তার বাবাকে লোকজন ডাকত ডিগার। তো একদিন লেভেলার বাড়ি ফেরার আগে শেষ বিকালে দেখল রেললাইনের ওপর ঝরাপাতা কুড়িয়ে এক সুন্দরী তরুণী আগুন পোহাচ্ছে। রেললাইনের ওপারে বেশ কিছু দূরে সাগর। ওখানে মেরামতের জন্য ডকে রাখা তিনটি ভাঙা জাহাজ। হিমহাওয়া আসছিল ওদিক থেকে। লেভেলারের মনে হলো এদিকে কোনো বাড়িঘর নেই, জনমানবশূন্য, ওই তরুণী নিশ্চয়ই সাগর থেকে উঠে এসেছে। সে একপা দুপা করে এগোয় ওদিকে।

ঝড় এলো। ওই তরুণী দৌড়াচ্ছে। আগুন নিভে গেছে। পিছু পিছু লেভলারও।

তারপর আমরা আবিষ্কার করি রাত গড়ানোর পর দুজনকে। একটা কর্তন করা গাছের মোটা গুড়ির ওপর সেই তরুণী বসা। তরুণীর পায়ের কাছে লেভেলার বসে তার তরুণীর আঙুল জড়িয়ে আছে। তরুণী বলছে, ভাষা নেই আমার যেগুলো বলতে চাই। কোনো মুখের অপেক্ষায় দিন কাটে আমার। খুব বিষাদের এই জীবন।’
লেভেলার বলে, চলো আমরা একদম ছেলেবেলা থেকে শুরু করি।
তরুণী জানতে চায়, এও কি সম্ভব?

এরপর আরো কিছু কথা হয় হয়তো, কিন্তু আমরা শুনি না। আমরা শুধু দেখি রাতের রুপালি আলো আঁধারিতে নগ্ন লেভেলার নগ্ন ওই তরুণী হাতে হাত ধরে ছুটে চলেছে দূর থেকে দূরে। এ ঘটনার সাড়ে চারশো বছর পর শাহবাগের পাবলিক পাঠাগারে এক তরুণ তার বান্ধবীকে বলল, কালচারই সব। কালচারের বাইরে যা, তা হলো নেচার। নেচার আর কালচারের বাইরে কিছু নেই। সো ‘ল অফ নেচার’-কে মেনে নেওয়া মানে রেপকেও বৈধতাদান।

প্লেটোর রিপাবলিক
আমার বাবা ও মাকে আমি চিনি না। চিনব না কোনোদিন। আমাকে জন্ম দেওয়া হয়েছে উন্নত সভ্যতার জন্য। কিন্তু এখন আমি “রুটলেস পিপল” নিজেকে ভাবতে শুরু করেছি। বলেন আমি আপনাদের কী দিতে পারি?

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত