প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

গণমানুষের অধিকার আদায়ের নেতা ছিলেন, বললেন চিত্রশিল্পী হাশেম খান

রফিক আহমেদ : বরেণ্য চিত্রশিল্পী হাশেম খান বলেছেন, বঙ্গবন্ধু বৈষম্যহীন ও অসাম্প্রদায়িক সমাজ গড়তে কাজ করেছিলেন। তিনি গণমানুষের অধিকার আদায়ের নেতা ছিলেন। তিনি তখন কার রক্ষণশীল সমাজ ব্যবস্থায়ও নারীদের এগিয়ে নিতে কাজ করেছেন। ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের উদ্যোগে গতকাল বেগম সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে শোক ও স্মরণ সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

হাশেম খান বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মাধ্যমে সেই সংবিধানকে হত্যা করা হলো যে সংবিধানে এক অসাম্প্রদায়িক, সমতাপূর্ণ, ও মুক্তিচেতনায় একটি দেশ গড়ে তোলার আহ্বান ছিল। বঙ্গবন্ধুর মৃত্যুতে যে অপূরণীয় ক্ষতি হলো তার খেসারত এখনও দিচ্ছে বাংলাদেশ। আজ বাংলাদেশ অনেক ক্ষেত্রে সমৃদ্ধি অর্জন করেছে কিন্তু অসাম্প্রদায়িক, গণতান্ত্রিক ও সমতাপূর্ণ সমাজ গঠনের যে স্বপ্ন বঙ্গবন্ধু দেখেছিলেন তার থেকে বাংলাদেশ এখনও পিছিয়ে।

তিনি বলেন, স্বাধীনতার পরে দেশকে গুছিয়ে নিতে তিনি বৈজ্ঞানিক ও বৈপ্লবিকভাবে পরিবর্তনের উদ্যোগ নিলেন সেটি হলো বাকশাল। বাকশালের কারণেই তাকে হত্যা করা হয়েছিলো। বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে যারা দেশ পরিচালনার দায়িত্ব নেয় তারা বাংলাদেশের ঐতিহ্যকে, ভাষাকে আর সংস্কৃতিকে টিকিয়ে রাখতে চায়নি। বাংলাদেশের মাটিকে যদি আমাদের পায়ের নিচে রাখতে হয় তাহলে এই শোকসভার মাধ্যমে আমাদের বঙ্গবন্ধুকে স্মরণ করে যেতে হবে। তার আদর্শ অনুসারে আমাদের কাজ করতে হবে।

সংগঠনের সভাপতি আয়শা খানম বলেন, স্বাধীনতার পরে প্রথম যে রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস তা হঠাৎ হয়নি। দেশী ও বিদেশীদের সূক্ষ পরিকল্পনা ছিল। একটি সংগ্রামের যে আদর্শিক লড়াই বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মধ্য দিয়ে মুক্তিযুদ্ধের বিরুদ্ধ শক্তি সেই লড়াইকে থামাতে চেয়েছিলো। তিনি হত্যার রাজনীতি বন্ধ করার জন্য সকলকে সচেতন থাকার আহ্বান জানান।

সভায় সঙ্গীত পরিবেশন এবং কবিতা আবৃত্তি করা হয়। সঙ্গীত পরিবেশন করেন শিল্পী মুহিত খান ও শিল্পী সুস্মিতা আহমেদ। কবিতা আবৃত্তি করেন লায়লা আফরোজ এবং আহ্কাম উল্লাহ।

আয়শা খানমের সভাপতিত্বে স্মরণ সভায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মহিলা পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক মালেকা বানু, সহ-সভাপতি ডা. ফওজিয়া মোসলেম, সাধারণ সম্পাদক মালেকা বানু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. রাখী দাশ ও সীমা মোসলেম, সংগঠন সম্পাদক উম্মে সালমা বেগম, লিগ্যাল এইড সম্পাদক সাহানা কবির, প্রশিক্ষণ-গবেষণা ও পাঠাগার সম্পাদক রীনা আহমেদ প্রমুখ। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সীমা মোসলেম।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ