প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মিন্নির পক্ষে লড়বেন ৪০ আইনজীবী

নিউজ ডেস্ক : বরগুনার আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যা মামলার এক নম্বর সাক্ষী ও তাঁর স্ত্রী আয়শা সিদ্দিকা মিন্নি এখন ওই মামলায় গ্রেফতার হয়ে পাঁচ দিনের রিমান্ডে আছেন। আগামী ২৩ জুলাই তাঁর রিমান্ড শেষে বরগুনা মুখ্য বিচারিক হাকিমের আদালতে হাজির করা হবে। সেইদিন মিন্নির পক্ষে ওসি মোয়াজ্জেমের আইনজীবী ফারুক আহম্মেদসহ ঢাকা আইনজীবী সমিতির ৪০ জন আইনজীবী ঢাকা থেকে বরগুনা আদালতে শুনানির জন্য যাবেন। আওয়াজবিডি

আইনজীবী ফারুক আহম্মেদ বলেন, দুপুরে আইনজীবী সমিতির নির্বাহী সদস্য ইব্রাহিম খলিলের সাথে মিন্নির বাবা মোজাম্মেল হোসেন কিশোরের সাথে ফোনে যোগাযোগ করেন। তখন মিন্নির বাবা আইনজীবী নিয়োগের জন্য অনুরোধ করেন। সে অনুরোধের পরে আমরা হাইকোর্ট ও জজকোর্ট মিলিয়ে ৪০ সদস্যের আইনজীবী টিম যাব।

ইব্রাহিম খলিল বলেন, আমরা আগামী ২৩ জুলাই বরগুনা আদালতে শুনানিতে যাব। আজ দুপুরে মিন্নির বাবার সাথে আমার ফোনে কথা হয়েছে। তাকে আইনি সহায়তা দেওয়ার কথা বলায়, তিনি আবেগে আপ্লুত হয়ে আমাদের যেতে অনুরোধ করেছেন। অনেক আইননজীবী ও হিউম্যান রাইটস সংগঠনের সদস্য শুনানিতে যেতে ইচ্ছুক। আদালতে দুই পক্ষে আইনজীবী থাকলে ন্যায় বিচার নিশ্চিত করা যায়। অনেক আইননজীবী ও হিউম্যান রাইটস সংগঠনের সদস্য শুনানিতে যেতে ইচ্ছুক। আদালতে দুই পক্ষে আইনজীবী থাকলে ন্যায় বিচার নিশ্চিত করা যায়।

গত বুধবার বিকেলে বরগুনার জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম মিন্নির ৫ দিনের রিমাণ্ড মঞ্জুর করেন। ওইদিন তার পক্ষে কোন আইনজীবী লড়েননি। এ বিষয়ে মিন্নির বাবা বলেছিলেন, মঙ্গলবার রাতে পুলিশের পক্ষ থেকে মিন্নিকে গ্রেফতারের বিষয়টি আমাকে জানানো হয়। সাক্ষী থেকে আসামি হওয়ার পরই আমি মিন্নির পক্ষে আইনজীবী নিয়োগের প্রক্রিয়া শুরু করি। রাতেই পরিচিত ৩জন আইনজীবীর সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করি। তারা তিনজনই মিন্নির পক্ষে আদালতে দাঁড়াতে অপারগতা প্রকাশ করেন। তারা জানিয়েছেন, আইনজীবী সমিতির সিদ্ধান্ত অনুযায়ী তারা মিন্নির পক্ষে আইনি লড়াইয়ে থাকবেন না।

তবে মিন্নির পক্ষে বরগুনার কোনো আইনজীবী না দাঁড়ালেও ফেনীর সোনাগাজী থানার আলোচিত সাবেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোয়াজ্জেম হোসেনের আইনজীবী ফারুক আহম্মেদ মিন্নির পক্ষে বিনামূল্যে আইনগত সহায়তা দিতে ইচ্ছুক বলে সকালে জানিয়েছেন।

এছাড়া আলোচিত সমাজকর্মী ও সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমন বলেছেন, সমাজে যখনই কোনো অসংগতি দেখতে পাই তা তুলে ধরার চেষ্টা করি। আইনগত কোনো সমস্যা নিয়ে যদি কেউ হাইকোর্টে আসেন, যদি আমার সহযোগিতার প্রয়োজন পড়ে, তাহলে আমি অবশ্যই পাশে দাঁড়াবো। মিন্নির মামলাও যদি হাইকোর্টে আসে, আমার সহযোগিতা দরকার পড়ে, সেটা আমি করবো।

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত