প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

হার্ট অ্যাটাকের লক্ষণ জানা জরুরী

মারুফুল আলম: হৃদযন্ত্রের মেজাজমর্জি বোঝা কঠিন। হঠাৎই এক দিন বুকে চিনচিনে ব্যথা দিয়ে শুরু কিংবা শ্বাসকষ্ট, বুকে চাপ থেকে হার্ট অ্যাটাকের কবলে ঢলে পড়া। চিকিৎসকদের মতে, হার্ট দুর্বল হয়ে পড়ার ঘটনা রাতারাতি হয় না, বরং বেশ আগে থেকেই সঙ্কেত দিতে থাকে হার্ট।

হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ প্রকাশ হাজরা বলেন, ওবেসিটি, উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবিটিস, ধূমপানে আসক্তি, হাই কোলেস্টেরল, হাইপার টেনশন ইত্যাদি হার্টের রোগকে টেনে আনতে ওস্তাদ। প্রথমে ধূমপান বাদ দিতে হবে। তারপর লাইফস্টাইলের কারণে হওয়া অসুখগুলো ঠেকাতেও যত্নশীল হতে হবে। যাদের পরিবারে হার্টের অসুখের ইতিহাস আছে, তাদের বেশি সতর্ক থাকতে হবে।

হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ দেবব্রত রায় বলেন, বেশ কিছু উপসর্গ দেখলেই সচেতন হওয়া খুব প্রয়োজন। হাঁটাচলার সময় বুকে কোনও রকমের চাপ বা অস্বস্তি হচ্ছে কিনা খেয়াল রাখুন। তবে অনেকের ক্ষেত্রে বুকে চিনচিনে ব্যথা থেকে জ্বালাও হয়। তেমনটা হলে তাই সাবধান হতে হবে।

হার্ট দুর্বল হলে ব্যথা কেবল হৃদযন্ত্রেই সীমাবদ্ধ থাকে না। হাঁটাহাঁটির সময় চোয়াল বা হাতেও ব্যথা ছড়িয়ে পড়তে পারে। সাধারণত হাঁটাচলা করলে এই ব্যথা জানান দেয়। তবে অনেকের ক্ষেত্রে বিশ্রামের সময়েও ব্যথা টের পাওয়া যায়। মাঝে মাঝেই শরীর হালকা হয়ে পড়া বা ব্ল্যাক আউট হলে তা যে শুধুই মস্তিষ্কের কোনও অসুখ বা রক্তচাপজনিত সমস্যা তেমনটা নাও হতে পারে। তাই এমন হলে অবশ্য হার্টেরও পরীক্ষা করান। হৃদস্পন্দনের দিকে খেয়াল রাখুন। অনিয়ন্ত্রিত ও ঘন ঘন গতি বদলালে সচেতন হোন। সামান্য পরিশ্রমেই হাঁপিয়ে গেলে বা বুকে চাপ লাগলে হার্টের অবস্থা জেনে নিন। হাঁটাহাঁটি বা শরীরচর্চা— হার্ট ভাল রাখার অব্যর্থ দাওয়াই। আনন্দবাজার

তবে কেবল লক্ষণ জানলেই হবে না, অসুখ ঠেকিয়ে রাখার পাঠ নিয়েও স্পষ্ট ধারণা থাকা জরুরি। তাই ছোটবেলা থেকেই শিশুর হার্টের যত্ন নিন, সঙ্গে নিজেদেরও। সার্বিকভাবে হার্ট ভাল রাখতে গেলে নিয়ম মেনে চলুন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত