প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জন্মদিনের ছবিতে মেলানিয়া একা থাকায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিদ্রুপের ঝড়

রাশিদ রিয়াজ : মার্কিন ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্প তার ৪৯তম জন্মদিনে যে আনুষ্ঠানিক ছবি তুলেছেন তা হোয়াইট অফিসিয়াল টুইটারে প্রকাশের পর তার পাশে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে দেখা না যাওয়ায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিতর্কের ঝড় উঠেছে। ট্রাম্পের অনুপস্থিতিতে মেলানিয়াকে হাসিখুশ তো নয়ই রীতিমত মনমরা লাগছে। মার্কিন নাগরিকরা এ ছবির ওপর মন্তব্য করে বলছেন, এটি মেলানিয়ার শুভ জন্মদিনের ছবির প্রতিফলন নয়। কারণ তিনি মার্কিন ফার্স্ট লেডি। এবং ‘পাবলিক ফিগার’ হিসেবেও মেলানিয়ার পাশে তার স্বামীর অবস্থান সম্পদ তুল্য। মিরর

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মেলানিয়াকে লক্ষ্য করে অনেক মার্কিনী মন্তব্য করে বলছেন, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প যখন আপনার পাশে নেই তো তার একটা ডামি বা মু-ু সোফায় রেখে ছবি তোলা উচিত ছিল। আবার কেউ রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিনের ছবি মেলানিয়ার ওই ছবির সঙ্গে জোড়া দিয়ে কৌতুক করতে ছাড়েননি। মেলানিয়ার জন্মদিনের ছবি তোলার সময় চেক রিপাবলিকের প্রধানমন্ত্রী আন্দ্রেজ বাবিজ হোয়াইট হাউজে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সঙ্গে সাক্ষাত করতে যান। হয়ত সেজন্যেই প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প মেলানিয়ার পাশে এসে বসার ফুরসত পাননি। কিন্তু মার্কিনীরা তা মানতে নারাজ। এক মার্কিনী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মন্তব্য করেছেন, ট্রাম্প ছাড়া মেলানিয়ার এ ছবি খুবই অস্বস্তিকর যা আগে কখনো দেখিনি। আরেক নারীর মন্তব্য হচ্ছে, এটি একটি খুঁতখুঁতে ছবি। কেন মেলানিয়াকে এক উচ্ছল পরিবেশে কোনো কাজ করার মধ্যে দিয়ে তার জন্মদিনের ছবিটি তোলা হয়নি। আরেক ব্যক্তি টুইট করেছেন, ছবিটি মার্জিত হলেও এর পিছনে নির্মম ভাবনা কাজ করেছে। আরেকটি মন্তব্য হচ্ছে, কি এক আশ্চর্য ভয়ানক ছবি এটি। এধরনের ছবি অনেককে গভীরভাবে মর্মাহত করছে। এধরনের ছবি তুলে টুইটারে দেওয়ার দায়িত্ব আসলে কার? এমন প্রশ্ন তুলেছেন আরেক মার্কিন নাগরিক।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত