প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বার্সেলোনাকে আটকে দিল লিওঁ

স্পোটস ডেস্ক: শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত রক্ষণ জমাট রেখে বার্সেলোনাকে আটকে দিয়েছে অলিম্পিক লিওঁ। উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে শেষ ষোলোর প্রথম লেগে লা লিগার চ্যাম্পিয়নদের সঙ্গে গোলশূন্য ড্র করেছে লিগ ওয়ানের দলটি।
মঙ্গলবার রাতের ড্রয়ে ইউরোপ সেরা আসরে লিওঁর বিপক্ষে অজেয় যাত্রা ধরে রাখল বার্সেলোনা। আগের ছয় ম্যাচের চারটিতে জিতেছিল লা লিগার অন্যতম সফল দলটি।
এই নিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে নকআউট পর্বের শেষ ছয়টি অ্যাওয়ে ম্যাচে জয়হীন থাকলো বার্সেলোনা। এর চারটিতেই হেরেছে তারা। এর মধ্যে পাঁচ ম্যাচে আবার গোলের দেখাই পায়নি স্পেনের অন্যতম সফল দলটি।
আর চলতি মৌসুমে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে শেষ পাঁচ ম্যাচের চারটিতে ড্র করল বার্সেলোনা। টানা তিন ড্রয়ের পর গত শনিবার লা লিগায় রিয়াল ভাইয়াদলিদের বিপক্ষে ঘরের মাঠে ১-০ গোলে জিতেছিল কাতালান ক্লাবটি।
প্রতিপক্ষের মাঠে ম্যাচের তৃতীয় মিনিটে ডি-বক্সের বাইরে লিওনেল মেসি ফাউলের শিকার হলে ফ্রি কিক পায় বার্সেলোনা। আর্জেন্টাইন এই ফরোয়ার্ডের শট ক্রসবারের ওপর দিয়ে যায়। পরের মিনিটে প্রতিআক্রমণ থেকে হোসেমের শট ঝাঁপিয়ে ফেরান বার্সেলোনা গোলরক্ষক মার্ক-আন্ড্রে টের স্টেগেন।
নবম মিনিটে বড় বাঁচা বেঁচে যায় বার্সেলোনা। ডি-বক্সের বাইরে থেকে ফরাসি মিডফিল্ডার তেয়ায়ির জোরালো শট ঝাঁপিয়ে পড়া টের স্টেগেনের গ্লাভসে ছুঁয়ে ক্রসবারে লেগে ফিরে। আক্রমণ-প্রতিআক্রমণে জমে ওঠা ম্যাচের ১৯তম মিনিটে বাঁ দিক দিয়ে একাধিক ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে বার্সেলোনার উসমান দেম্বেলে গোলরক্ষকের গায়ে মেরে সুযোগ নষ্ট করেন।

প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে বার্সেলোনার সের্হিও বুসকেতসের শট প্রতিপক্ষের এক খেলোয়াড়ের গায়ে লেগে দিক পাল্টে একটুর জন্য পোস্টের বাইরে দিয়ে যায়।
দ্বিতীয়ার্ধেও নিজেদের রক্ষণ জমাট রেখে মাঝে মধ্যে পাল্টা আক্রমণে উঠছিল লিওঁ। তবে বার্সেলোনার পোস্টের নিচে আস্থার দেয়াল হয়ে ছিলেন টের স্টেগেন। প্রতিপক্ষের ডি-বক্সে সুবিধা করে উঠতে না পারা বার্সেলোনার হতাশা বাড়ে ৬২তম মিনিটে লুইস সুয়ারেসের শট গোলরক্ষক কর্নারের বিনিময়ে ফেরালে।
শেষ দিকে একাধিক আক্রমণ করলেও কাঙক্ষিত গোলের দেখা পায়নি বার্সেলোনা। ৭০তম মিনিটে সুয়ারেসের আরেকটি শট দূরের পোস্ট ঘেঁষে বেরিয়ে যায়। পাঁচ মিনিট পর জর্দি আলবার বাড়ানো বলে উরুগুয়ের এই ফরোয়ার্ডের স্লাইড করার প্রচেষ্টাও ব্যর্থ হয়।
৮৫তম মিনিটে মেসির কাট ব্যাকে বুসকেতসের শটও ঠিকানা খুঁজে না পেলে ড্রয়ে নিষ্পত্তি হয় ম্যাচটি।
দশ বছর আগে সর্বশেষ চ্যাম্পিয়ন্স লিগে দেখা হয়েছিল দুই দলের। দুই লেগ মিলিয়ে ৬-৩ গোলে লিওঁকে ছিটকে দিয়ে ২০০৮-০৯ মৌসুমে কোয়ার্টার-ফাইনালে উঠেছিল বার্সেলোনা।
আগামী ১৩ মার্চে ফিরতি লেগে নিজেদের মাঠ কাম্প নউয়ে হওয়াতে এবারও শেষ আটের আশা ভালোভাবে টিকে আছে এরনেস্তো ভালভেরদের দলের।
শেষ ষোলোর প্রথম লেগে একই সময়ে শুরু হওয়া আরেক ম্যাচে লিভারপুলের মাঠ থেকে গোলশূন্য ড্র করে ফিরেছে বুন্ডেসলিগা চ্যাম্পিয়ন বায়ার্ন মিউনিখ। -বিডি নিউজ২৪

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত