প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ইউরোপের কোনো দেশেই অবৈধভাবে থাকার সুযোগ নেই : ইইউ রাষ্ট্রদূত

তরিকুল ইসলাম : ঝুঁকি থাকা সত্বেও বাংলাদেশ থেকে অভিবাসী হওয়ার আগ্রহ নিয়ে অবৈধ উপায়ে বিভিন্ন দেশে যাচ্ছেন বাংলাদেশীরা। যদিও এদের বেশিরভাগেরই ইউরোপের যুক্তরাজ্য, জার্মানি ও ইতালিতে যাওয়ার প্রবণতা রয়েছে। তারা মূলত চোরাকারবারী বা মাদক পাচারকারীদের সহায়তায় ইউরোপের এসব দেশে প্রবেশ করে থাকেন। অথচ ইউরোপের কোনো দেশেই অবৈধভাবে থাকার সুযোগ নেই।

শনিবার সিক্স সিজন হোটেলে ‘বাংলাদেশ ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের সম্পর্কের ভবিষ্যৎ’ শীর্ষক এক সংলাপে যোগ দিয়ে এ কথা বলেন ঢাকায় ঢাকায় নিযুক্ত ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত রেনসে তিরিঙ্ক। কসমস ফাউন্ডেশন সংলাপের আয়োজন করে। কসমস ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান এনায়েতউল্লাহ খানের সভাপতিত্বে এতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সিঙ্গাপুর ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির দক্ষিণ এশিয়া স্টাডিজ ইনস্টিটিউটের প্রধান রিসার্চ ফেলো ড. ইফতেখার আহমেদ চৌধুরী।

অবৈধ অভিবাসীদের ফিরিয়ে আনা একটি জটিল প্রক্রিয়া জানিয়ে রাষ্ট্রদূত বলেন, ইউরোপীয় ইউনিয়ন নিরাপদ অভিবাসন চায়। নিরাপদ অভিবাসনের লক্ষ্যে বাংলাদেশ ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন কাজ করছে। শুধুমাত্র অভিবাসী শর্তপূরণ হলেই ইউরোপীয় ইউনিয়নের দেশগুলোতে থাকা সম্ভব।

এ সময় পররাষ্ট্র সচিব এম শহীদুল হক বলেন, শুরু থেকেই আমরা অবৈধ অভিবাসনকে নিরুৎসাহিত করে আসছি। বাংলাদেশেও অনেক অবৈধ অভিবাসী বসবাস করছেন। এছাড়া বাংলাদেশ প্রায় ১২ লাখ রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দিয়েছে। তবে আমরা চাই না বিশ্বের কোনো দেশে বাংলাদেশি নাগরিকরা অবৈধভাবে থাকুক।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত