প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

চাঁদপুরে আ’লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে আহত-৩০

মিজান লিটন, চাঁদপুর: চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় দু’গ্রুপের সংঘর্ষে কমপক্ষে ৩০জন আহত হয়েছে। এ সময় সাবেক সংসদ সদস্য ড. মোহাম্মদ শামছুল হক ভুঁইয়ার গাড়ী ভাংচুর করে বিক্ষুব্ধরা। পুলিশ রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। গুরুতর আহতরা ফরিদগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি রয়েছে। মঙ্গলবার (২৯ জানুয়ারি) দুপুর ১২টা থেকে ১টা পর্যন্ত উপজেলা বিআরডিবি কার্যালয় সম্মুখে দফায় দফায় এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

ফরিদগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মাহবুব আলম সোহাগ জানান, সকালে বিআরডিবি কার্যালয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের বার্ধিত সভা শুরু হয়। সভায় উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আবুল খায়ের পাটওয়ারী, সাধারণ সম্পাদক আবু সাহেদ সরকার, সাবেক সংসদ সদস্য ড. মোহাম্মদ শামছুল হক ভুঁইয়া, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি অ্যাড. জাহিদুল ইসলাম রোমানসহ উপজেলা নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

তিনি আরো বলেন, সভার শেষ পর্যায়ে জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি অ্যাড. জাহিদুল ইসলাম রোমান বক্তব্য দিচ্ছিল। এ সময় বর্তমান সংসদ সদস্য শফিকুর রহমানের সমর্থকরা একটি মিছিল নিয়ে বর্ধিতসভায় প্রবেশ করে সবাইকে এলোপাতাড়ি মারতে থাকে। একপর্যয়ে বর্ধিতসভা ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। এ সময় সাবেক এমপি শামসুল হক ভূইয়ার গাড়ীসহ বেশ কয়েকটি গাড়ী ভাংচুর করে বর্তমান সাংসদ শফিকুর রহমানের সমর্থকরা।

ফরিদগঞ্জ থানা পুলিশ জানায়, উভয় পক্ষের সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণে আনতে প্রথমে টিআরসেল নিক্ষেপ করা হয়। কিন্তু উভয় পক্ষ এ সময় গাড়ী ভাংচুর শুরু এবং ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ায় লীপ্ত হলে পুলিশ কয়েক রাউন্ট রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে।

পুলিশের গুলিতে আহতরা হচ্ছেন: উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সোহাগ, জেলা পরিষদের সদস্য সাইফুল ইসলাম রিপন, ছাত্রলীগ নেতা রিপন, এ্যাড. মাহবুবুল আলম, শরিফসহ ১০জন। গুলিবিদ্ধ আহতদের ফরিদগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। ফরিদগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতির সোহাগের দাবী পুলিশ কারো ইন্ধনে বর্ধিতসভায় গুলি চালিয়েছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বর্তমান সংসদ সদস্য বীরমুক্তিযুদ্ধা ও জাতীয় প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি সাংবাদিক শফিকুর রহমানের সমর্থক জানান, বর্ধিত সভায় চাঁদপুর-৪ (ফরিদগঞ্জ) আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য বীরমুক্তিযুদ্ধা সাংবাদিক শফিকুর রহমানকে দাওয়াত না দেয়ায় তার সমর্থকরা বর্ধিতসভায় বাঁধা প্রদান করে।

চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল বলেন, সংঘর্ষের কারণ আমার জানা নেই। তবে আজকে বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে।

সাবেক এমপি ড. মোহাম্মদ শামসুল হক ভূইয়া জানান, যে ঘটনাটি ঘটেছে তা আওয়ামীলীগের জন্য লজ্জাজনক ব্যাপার। এর চাইতে বেশী কিছু আমি বলতে পারবো না।

এ বিষয়ে চাঁদপুরের পুলিশ সুপার (এসপি) জিহাদুল কবির পিপিএম বলেন, ফরিদগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা চলছিলো। সভায় বর্তমান সাংসদ শফিকুর রহমানকে আমন্ত্রন জানানো হয়নি। ওই কারণে তার সমর্থকরা সভা স্থলে গিয়ে মারামারিতে লীপ্ত হয়। পুলিশ উভয় পক্ষকে নিয়ন্ত্রণে আনতে গুলি নিক্ষেপ করে। বর্তমানে অবস্থা পুলিশের নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত