প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মানিকগঞ্জ-২
আবারো ডিগবাজি দিলেন গোলাম সারোয়ার মিলন

সিরাজুল ইসলাম, সিংগাইর(মানিকগঞ্জ) : মানিকগঞ্জ-২ (সিংগাইর-হরিরামপুর-সদর) আসন থেকে মহাজোটের প্রার্থী হওয়ার জন্য আবারো ডিগবাজি দিয়েছেন সাবেক শিক্ষা-উপমন্ত্রী গোলাম সারোয়ার মিলন। তিনি গত শুক্রবার বিকেলে সাবেক রাষ্ট্রপতি বি.চৌধুরীর বিকল্প ধারায় যোগ দিয়ে আবারো আলোচনার কেন্দ্র বিন্দুতে এসেছেন। এ নিয়ে তিনি কয়েক দফায় বিভিন্ন দলের খোলস পাল্টালেন।

মিলন জাতীয় পাটির শাসনামলে অধুনালুপ্ত মানিকগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়ে শিক্ষা উপমন্ত্রী হন। অবকাঠামোগত বেশ কিছু উন্নয়ন তার নির্বাচনী এলাকায় দৃশ্যমান রয়েছে। তিনি কয়েক বার দল বদলের কারণে তার নিজস্ব ভোট ব্যাংকে ধস নামে। বিএনপির শাসলামলে প্রয়াত শিল্পমন্ত্রী সামসুল ইসলাম খান নয়া মিয়ার মৃত্যুর পর ক্ষমতাসীন ওই দলে যোগদানের চেষ্টায় ব্যর্থ হন মিলন।

পরবর্তীতে বিগত ২০০৬ সালের ১৯ এপ্রিল অনুষ্ঠিত উপ-নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্ব›িদ্বতা করলে তার ভোটের অংক দাঁড়ায় মাত্র ৮ হাজার। পূনরায় তিনি জাতীয় পাটিতে যোগদান করে মহাজোট থেকে মানিকগঞ্জ-২ আসনের মনোনয়ন পান। এদিকে আওয়ামীলীগ সরকারের দাবির মুখে রাষ্ট্রপতি ইয়াজ উদ্দিন আহম্মেদ পদত্যাগ করলে সেনা সমর্থিত তত্ত¡াবধায়ক মঈনুদ্দিন-ফখরুদ্দীন সরকার ক্ষমতায় আসেন। তখন গোলাম সারোয়ার মিলন জাতীয় পার্টি বাদ দিয়ে ফেরদৌস আহম্মেদ কোরশীর প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক পাটিতে (পিডিপি) যোগদেন। সেই সময় বিভিন্ন চ্যানেলের টক-শোতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন তিনি। বঞ্চিত হন জাতীয় পাটি তথা মহাজোটের মনোনয়ন থেকে। বিশিষ্ট ব্যবসায়ি এসএম আব্দুল মান্নান জাতীয় পাটিতে যোগদান করে মহাজোটের কোটায় সেই মনোনয়নটি ভাগিয়ে নেন। ২০০৮ সালের নির্বাচনে এসএম আব্দুল মান্নান সংসদ সদস্যও নির্বাচিত হন।

এবার একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সম্ভাব্য প্রার্থী হিসেবে গোলাম সারোয়ার মিলন বিভিন্ন সময় মহাজোটের প্রার্থীতা ঘোষণা দেন । মত বিনিময় সভা ও গণসংযোগ কালে এত দিন দলীয় পরিচয় দেননি তিনি। তবে তার সাথে জাতীয় পাটির নেতা-কর্মীদের দেখা গেছে। অবশেষে গত শুক্রবার বিকল্প ধারায় গোলাম সারোয়ার মিলনের ডিগবাজি দেয়া কতটুকু সফল হতে পারবেন এটাই দেখার বিষয় !

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ