প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধির জন্য নামমাত্র মূল্যে আন্তর্জাতিকমানের কারিগরি বিশেষজ্ঞ সেবা দেবে এনপিও

স্বপ্না চক্রবর্তী : রাষ্ট্রায়ত্ত ও বেসরকারি শিল্প-কারখানায় উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে নামমাত্র মূল্যে আন্তর্জাতিকমানের কারিগরি বিশেষজ্ঞ সেবা দেবে শিল্প মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন ন্যাশনাল প্রোডাক্টিভিটি অর্গানাইজেশন (এনপিও)। জাপানভিত্তিক এশিয়ান প্রোডাক্টিভিটি অর্গানাইজেশনের (এপিও) সহায়তায় এ কারিগরি সেবা দেয়া হবে। এ লক্ষ্যে শীঘ্রই জাতীয় পত্রিকাগুলোতে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে।

বুধবার শিল্প মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত জাতীয় উৎপাদনশীলতা কার্যনির্বাহী কমিটির ত্রয়োদশতম সভায় এ তথ্য জানানো হয়। শিল্প মন্ত্রণালয়ের সচিব মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ্ এতে সভাপতিত্বে এসময় শিল্প মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোঃ দাবিরুল ইসলাম, বিএসইসির চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান, নাসিব সভাপতি মির্জা নুরুল গণি শোভন, এফবিসিসিআই পরিচালক মোঃ নিজাম উদ্দিন, এনপিও পরিচালক এস.এম আশরাফুজ্জামানসহ কমিটি সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠান ও ট্রেডবডির প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

সভায় বাংলাদেশের জাতীয় অর্থনীতির বিভিন্ন খাত ও উপখাতভিত্তিক উৎপাদনশীলতার স্তর নির্ধারণের বিষয়ে আলোচনায় বক্তারা জানান, বাংলাদেশ পরিসংখ্যা ব্যুরোর তথ্য সহায়তায় শিল্প মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন ন্যাশনাল প্রোডাকটিভিটি অর্গানাইজেশন (এনপিও) এ লক্ষ্যে ইতোমধ্যে একটি খসড়া মূল্যায়ন প্রতিবেদন প্রণয়ন করেছে। চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে এটি চূড়ান্ত করা হবে। সভায় শিল্প ও সেবাখাতে উৎপাদনশীলতা বাড়াতে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে উৎপাদনশীলতা বিষয়ক ধারণা প্রসারের ওপর গুরুত্ব দেয়া হয়। এ লক্ষ্যে জেলা পর্যায়ে বিভিন্ন চেম্বার, ট্রেডবডি ও জেলা প্রশাসনকে সম্পৃক্ত করে উৎপাদনশীলতা বিষয়ক আলোচনা সভা, সেমিনার, সিম্পোজিয়াম ইত্যাদি আয়োজনের সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়।

একই সাথে খাতভিত্তিক উৎপাদনশীলতা বাড়াতে সরকারি-বেসরকারি অংশীদারিত্বে কার্যকর প্রকল্প গ্রহণের সুপারিশ করা হয়। সভায় জানানো হয়, খাত ও উপখাতভিত্তিক চাহিদা অনুযায়ী উৎপাদনশীলতা উন্নয়নে সহায়তার জন্য বিভিন্ন ট্রেড বডি ও এনপিও’র মধ্যে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের কার্যক্রম এগিয়ে চলছে। এফবিসিসিআই, ডিসিসিআই, বিসিআই এবং বাপা’র সাথে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে বলেও জানানো হয়।

সভায় চলতি বছরের সেপ্টেম্বরের মধ্যে ২০১৭সালের জন্য ‘ন্যাশনাল প্রোডাক্টিভিটি অ্যান্ড কোয়ালিটি এক্সিল্যান্স অ্যাওয়ার্ড’ প্রদান সম্পন্ন করার বিষয়ে আলোচনা হয়। এ লক্ষ্যে এনপিওকে সময়মাফিক কর্মপরিকল্পনা প্রণয়ন করে তা দ্রæত বাস্তবায়নের নির্দেশনা দেয়া হয়। পাশাপাশি বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে এনপিও প্রদত্ত কারিগরি সেবা ও প্রশিক্ষণের ফলাফল মূল্যায়ন প্রতিবেদন তৈরির তাগিদ দেয়া হয়।

সভায় শিল্পসচিব বলেন, শিল্পসমৃদ্ধ বাংলাদেশ বিনির্মাণের লক্ষ্য অর্জনে উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধির বিকল্প নেই। কৃষি, শিল্প, সেবাসহ সকল খাত ও উপখাতে যুগপৎ উৎপাদনশীলতা বাড়িয়ে টেকসই উন্নয়নের অভিষ্ট লক্ষ্যে এগিয়ে যেতে হবে। তিনি জাতীয় পর্যায়ে উৎপাদনশীলতা আন্দোলন জোরদারে সরকারি-বেসরকারি যৌথ অংশীদারিত্বে কাজ করে যাওয়ার পরামর্শ দেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ