প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আওয়ামী লীগে শেখ হাসিনার বিকল্প নেই, এখনই নতুন নেতৃত্ব নয়

উম্মুল ওয়ারা সুইটি: আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জীবদ্দশায় দলের নেতৃত্বেও জন্য অন্য কাউকেই ভাবতে পারছেন না দলের শীর্ষ পর্যায় থেকে তৃণমূলের নেতাকর্মীরা। গত সপ্তাহে গণভবনে দলের কার্যনির্বাহী পরিষদের বৈঠকে শীর্ষ নেতাদের দলের আগামী নেতা বেছে নেওয়ার কথা বলেন শেখ হাসিনা। এর আগেও একাধিকবার দলীয় সভানেত্রী নতুন নেতৃত্ব খোঁজার কথা বলেছেন দলীয় ফোরামে এবং সভা সমাবেশে। কিন্তু গত সপ্তাহে তিনি অনেক জোরালোভাবে বিষয়টি উচ্চারণ করেন।

আওয়ামীয় দলীয় সূত্র জানিয়েছে, প্রধানমন্ত্রীর ওইদিনের আহ্বান অনেক বেশি জোরালো থাকায় জ্যেষ্ঠ নেতাদের মধ্যে আলোচনা শুরু হয়েছে। সিনিয়র নেতারা মনে করছেন, শেখ হাসিনা দলের দায়িত্বে সত্যিই আর থাকতে চাইছেন না। একাদশ সংসদ নির্বাচনের পর হয়তো শেখ হাসিনা আর সংসদ নির্বাচন নাও করতে পারেন। শেখ হাসিনার বক্তব্যেও সেই ইঙ্গিত পাওয়া গেছে। তিনি দলের সিনিয়র এবং যোগ্য কাউকে দায়িত্বে দেখতে চান।

দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও এমপি খারুক খান বলেন, শেখ হাসিনার এই ঘোষণায় নেতাকর্মীরা বিচলিত হয়ে পড়েছেন। কারণ আমরা মনে করি শেখ হাসিনার বিকল্প দলে এখনো কেউ নেই। আমি মনে করি আমাদের নেত্রী (শেখ হাসিনা) যতদিন বেঁচে থাকবেন তিনিই দলের দায়িত্বে থাকবেন। কারণ জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে দেশকে পরিচালনার মতো মতো দক্ষ এবং মেধাবী নেতৃত্ব দলে আর একজনও নেই।

দলের একজন সিনিয়র নেতা বলেছেন, যদি স্বাস্থ্যগত কারণে নেত্রী দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি নিতে চান তাহলেও আমরা নতুন নেতৃত্ব নির্বাচনের দায়িত্ব তাকেই ( শেখ হাসিনা)দেবো। দলের নেতাকর্মীরা দলীয় প্রধান হিসেবে শেখ হাসিনা ছাড়া ভাবতেই পারেন না। শেখ হাসিনার এই ঘোষণার পর থেকে দলের বিভিন্ন পর্যায়ে আলোচনার ঝড় বয়ে যাচ্ছে। এখনো এমন কাউকেই পাওয়া যাচ্ছেনা যিনি শেখ হাসিনার ধারে কাছে অবস্থান করছেন। তবে এর মধ্যে অনেকেই শেখ হাসিনার উত্তরসূরি হিসেবে তার পুত্র সজীব ওয়াজেদ জয়ের কথা ভাবছেন। কেউ কেউ আবার চিন্তা করছেন, বঙ্গবন্ধুর ছোট মেয়ে ও শেখ হাসিনার আদরের ছোট বোন হতে পারেন পরবর্তী কান্ডারি।

এ ব্যাপারে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, শেখ হাসিনার বিকল্প শুধু আওয়ামী লীগেই নয় দেশেও নেই। শেখ হাসিনা যতোদিন বেঁচে থাকবেন দলের দায়িত্ব তার কাছেই থাকবে। তার পরবর্তী নেতৃত্ব তিনি ধীরে ধীরে তৈরি করবেন। যদিও নেত্রী ( শেখ হাসিনা) গত ১০ বছর থেকেই বলছেন, তিনি অবসরে যেতে চান। আমি মনে করি এদেশের উন্নয়নের জন্য এবং গণতন্ত্রের জন্য শেখ হাসিনার বিকল্প কেউ নেই। আমরা তাকেই চাই। সেদিনের বৈঠকের পর দলের শীর্ষ নেতারা সবাই নেত্রীকে অনুরোধ করেছেন, তিনি যেনো এই ধরণের সিদ্ধান্ত না নেন।
দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা বলেছেন, দলকে ঐক্যবদ্ধ রাখতে এখনো শেখ হাসিনার কোনো বিকল্প নেতা তৈরি হয়নি। তার গ্রহণ যোগ্যতা শুধু দলেই নয় আন্তর্জাতিকভাবেও স্বীকৃত। তাছাড়া শেখ হাসিনা দলের দায়িত্ব ছেড়ে দিলে দলে ভাঙ্গন দেখা দেবে। তাই তৃণমূল থেকে কেন্দ্র পর্যন্ত নেতাকর্মীরা প্রধানমন্ত্রীর এই ইচ্ছা প্রকাশে বিচলিত হয়ে পড়েছেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত