প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

টাংগুয়ার হাওরে অতিথি পাখির গুঞ্জনে মুখরিত

নুর উদ্দিন, ছাতক (সুনামগঞ্জ): শীত মৌসুমে প্রতি বছরের মত এবারও অতিথি পাখির গুঞ্জনে মুখরিত হয়ে উঠেছে দেশের বৃহত্তম মিঠা পানির জলাভূমি টাংগুয়ার হাওরে।

আশপাশের ছোট বড় হাওরগুলোতে অতিথি পাখিদের বিচরণ লক্ষ্যনীয়। শীতের পূর্নিমা আর গোর আঁধার আলোতে পরবাসী বিঙ্গগকুল আর দেশীয় পাখিদের মিলন মেলায় যেন স্বর্গীয় পরিবেশ তৈরি হয়েছে হাওর জুড়ে।

প্রতি বছর নির্দিষ্ট সময়ে নির্দিষ্ট প্রজাতির পাখির আসা যাওয়াকে পরিযায়ী বলে। পৃথিবীর প্রায় ১০হাজার প্রজাতির পাখির মধ্যে ১হাজার ৮শত ৫৫প্রজাতির পাখি পরিযায়ী।

এসব অতিথি পাখিরা সূদুর সাইবেরিয়া, চীন, মঙ্গোলিয়া, নেপাল সহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ থেকে ডানায় বর করে ঝাঁকে ঝাঁকে ছুটে আসে টাংগুয়ার হাওরে। হাওরের জলে ডুব দিয়ে মাছ শিকার করা, শামুক খাওয়া, জলকেলি, খুনটুশি আর কিচিরমিচির কলতান পাড়ের মানুষের ভোরে ঘুম ভেঙ্গে যায়।

হাওরে আগত অতিথি পাখির মধ্যে উল্লেখ্যযোগ্য হল- লেঞ্জা বালি হাঁস, সরালী, প্যালাসেস ঈগর, বড় গ্রে কিংস্টর্ক, মৌলভীহাঁস, পিয়ারী, কাইম, কালাকুড়া, রামকুড়া, মাথারাঙ্গা, চোখা হাঁস চোখাচোখি, বিলাশী শালিকসহ প্রভৃতি। আর অতিথি পাখিদের সঙ্গে মিলে আছে দেশীয় পানকৌরি, জলকবুতর, কালি ডাহুক, মাছরাঙ্গা, গাঙচিল, বক, সারস, শঙখচিলসহ হাজারো রখমের পাখি।

জেলা প্রশাসক মো. সাবিরুল ইসলাম বলেন, টাংগুয়ার হাওরে অতিথি পাখি আসতে শুরু করেছে। পাখি শিকার বন্ধে হাওরে ম্যাজিষ্ট্রেট নিয়োজিত আছে। পাখি শিকার যারা করবে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সর্বাধিক পঠিত