প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সংস্কার না ক্ষমতা কুক্ষিগত করতে চান সৌদি যুবরাজ?

ডেস্ক রিপোর্ট : মোহাম্মদ বিন সালমানসৌদি রাজপরিবারের অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্ব বেশ কিছুদিন থেকেই সামনে আসছে। চলতি বছরের জুনে সিংহাসনের পরবর্তী উত্তরাধিকারী মোহাম্মদ বিন নায়েফকে সরিয়ে যুবরাজের দায়িত্ব নেন বর্তমান রাজার পুত্র মোহাম্মদ বিন সালমান (৩২)। গৃহবন্দি হন নায়েফ। সে সময়ই আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো একে নিরব অভ্যুত্থান হিসেবে আখ্যায়িত করেছিল। তবে চলতি মাসে রাজপরিবারের অস্থিরতা লক্ষ্যণীয়ভাবে সামনে আসে। ৪ নভেম্বর ২০১৭ শনিবার রাতে দেশটির ১১ জন প্রিন্স, চারজন বর্তমান মন্ত্রী এবং ১০ জন সাবেক মন্ত্রীকে আটক করা হয়। এছাড়া দুই প্রিন্স নিহত হওয়ার খবর এসেছে। ব্যাপক রদবদল করা হয়েছে মন্ত্রিসভায়। সবগুলো ঘটনায় উঠে আসছে যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের নাম। যুবরাজের দাবি, তিনি দেশে সংস্কার করতে চান। তবে সমালোচকরা বলছেন, তিনি আসলে ক্ষমতা কুক্ষিগত করতে চান। নিজের একচ্ছত্র আধিপত্য কায়েমের পথে যাদেরই অন্তরায় বলে মনে করছেন; তাদেরই তিনি সরিয়ে দিচ্ছেন।

ক্ষমতা কুক্ষিগত করতে যুবরাজ সমাজের সর্বস্তরে ঝাঁকুনি দিচ্ছেন। এমনকি এতোদিন যাদের ধরাছোঁয়ার বাইরে বলে মনে করা হতো; তারাও আর ধরাছোঁয়ার বাইরে থাকছেন না। ৪ নভেম্বর আটক হওয়া ব্যক্তিদের প্রত্যেক্যেই রাজপরিবারে খুবই প্রভাবশালী। আর নিহত প্রিন্স মানসুর বিন মাকরিন অন্যদের সরিয়ে মোহাম্মদ বিন সালমানের সিংহাসনে আরোহণের বিরোধী ছিলেন। আর এ কারণেই এ প্রশ্ন জোরালো হচ্ছে যে, যুবরাজ কি তাদের প্রভাববলয়কে নিজের ক্ষমতা কুক্ষিগত করার পথে প্রতিবন্ধক মনে করছেন? সে কারণেই বাধা সরিয়ে দিতে উদ্যোগী হয়েছেন তিনি?

সমালোচকদের মতে, মোহাম্মদ বিন সালমান চরমভাবে একজন ক্ষমতালিপ্সু যুবরাজ। দুই বছর আগেও সিংহাসনের দৌড়ে তার অবস্থান ছিল তিন নম্বরে। কিন্তু রাজা বয়োবৃদ্ধ বাবার প্রশাসনে তিনিই হয়ে উঠেছেন এককভাবে সর্বময় ক্ষমতার অধিকারী। সিংহাসনের দৌড়েও তার অবস্থান এখন এক নম্বরে। অর্থাৎ, বর্তমান রাজার মৃত্যু হলেই তার স্থলাভিষিক্ত হবেন মোহাম্মদ বিন সালমান।

সৌদি আরবের রক্ষণশীল ভাবমূর্তি থেকেও বেরিয়ে আসতে চাইছেন মোহাম্মদ বিন সালমান। তার ভাষায়, ‘অতীতে আমরা এই রকম রক্ষণশীল ছিলাম না। আমরা যেখানে ছিলাম ফের সেখানেই ফিরতে চাই— উদার ইসলামে ফিরতে চাই।’

দ্য গার্ডিয়ান’কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, ইরানের ইসলামি বিপ্লবের পর সৌদি আরবেও কট্টরপন্থী ইসলামের শেকড় বিস্তৃত হয়। পুরো আমরা জানতাম না, কিভাবে এটা মোকাবিলা করতে হতো। সমস্যা হচ্ছে এটা পুরো বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে। এখন সময় এ থেকে মুক্তি পাওয়ার।

লোহিত সাগরের সৈকতে বিচ রিসোর্টের পরিকল্পনার কথাও ঘোষণা করেছেন যুবরাজ। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য টেলিগ্রাফ জানিয়েছে, সেখানে নারীদের বিকিনি পরার সুযোগ দিতে বিশেষ আইন প্রণয়ন করা হবে। আগামী বছর থেকে গাড়ি চালানো এবং স্পোর্টস স্টেডিয়ামে গিয়ে কনসার্ট উপভোগের সুযোগ পাবেন নারীরা। সৌদি যুবরাজ গত সেপ্টেম্বরে ইসরায়েল সফর করেছেন বলেও খবর বেরিয়েছে। তবে ইসরায়েলি সূত্রের বরাত দিয়ে প্রকাশিত ওই খবরের সত্যতা নিশ্চিত করা সম্ভব হয়নি।

সূত্র : বাংলাট্রিবিউন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত