শিরোনাম
◈ সরকারের কাছে 'আট দফা দাবি' কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীদের ◈ শুক্রবারের সহিংসতায় ঢাকায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩২ জনে ◈ এটা অবশ্যই কারফিউ, এটা নিয়ম অনুযায়ীই হবে এবং সেটা শুট অ্যাট সাইট হবে: ওবায়দুল কাদের ◈ কারফিউ’র পরিপত্র জারি ◈ কর্মসূচি চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা কোটা আন্দোলনকারীদের ◈ ওবায়দুল কাদের কারফিউ জারি প্রসঙ্গে যা বললেন ◈ সারা দেশে কারফিউ জারি, সেনা মোতায়েনের সিদ্ধান্ত ◈ নরসিংদীর কারাগারে হামলার পর বের হয়ে গেছে কয়েকশ কয়েদি ◈ বাংলাদেশে সহিংসতা ও মৃত্যুর ঘটনায় জাতিসংঘের উদ্বেগ ◈ রাজধানীর উত্তরা, মোহাম্মদপুর, বাড্ডাসহ বিভিন্ন এলাকায় আন্দোলনকারীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ

প্রকাশিত : ২৯ মার্চ, ২০২৩, ০৬:৫০ বিকাল
আপডেট : ২৯ মার্চ, ২০২৩, ০৬:৫৩ বিকাল

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

আওয়ামী লীগ গণতান্ত্রিক দল হয়ে গণতন্ত্র হত্যা করছে কেন: মঈন খান

বক্ততাকালে ড. মঈন খান

রিয়াদ হাসান: বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. মঈন খান বলেন, বিএনপির জন্ম নাকি ক্যান্টনমেন্টে হয়েছে, জিয়াউর রহমান সৈনিক ছিলেন। তার প্রতিষ্ঠিত দল নাকি ক্যান্টমেন্টের দল। এখন তর্কের খাতিরে ধরে নিলাম বিএনপি জন্ম ক্যান্টনমেন্টে, যদিও সেটা বাস্তব সত্য নয়। আওয়ামী লীগের জন্ম তো ক্যান্টনমেন্টে নয়, যারা নিজেদের গণতান্ত্রিক দল বলে দাবি করে, তারা কেন বাংলাদেশের গণতন্ত্রকে হত্যা করছে? স্বাধীনতার পর বাকশাল করে একবার গণতন্ত্র হত্যা করেছে, আবার এখন গণতন্ত্র হত্যা করেছে।

বুধবার (২৯ মার্চ) গুলশানে চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি। বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ওপর ‘রণাঙ্গনে জিয়া’ প্রামাণ্য চিত্র উদ্বোধন উপলক্ষ্যে ওই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশন।

ড. মঈন খান বলেন, দেশে নতুন করে আবার বাকশাল কায়েম হয়েছে, বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছিল গণতন্ত্রের জন্য, পশ্চিম পাকিস্তানের সঙ্গে পূর্ব পাকিস্তানের অর্থনীতি বৈষম্য দূর করার জন্য, দেশের মানুষের অর্থনৈতিক মুক্তির জন্য। আজকের সরকার যদি গণতন্ত্রকে ধ্বংস করে একদলীয় বাকশাল কায়েম করে থাকে তাহলে দেশের লাখ লাখ মানুষ জীবন দিয়েছিল কেন? আজকের নতুন করে আমাদের এই প্রশ্নগুলো করতে হবে, তুলে ধরতে হবে।

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার দেশ থেকে গণতন্ত্র বিদায় করেছে। দেশের দুর্নীতি ও অর্থনৈতিক বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করেছে, তাতে সাধারণ মানুষের জীবন দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে। নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্যবৃদ্ধি পেয়েছে, যারা ধনী তাদের কথা আলাদা, কিন্তু যে মানুষ মাস শেষে নির্দিষ্ট বেতন পান তাদের সংসার চলছে না।

জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক অধ্যাপক ডাক্তার ফরহাদ হালিম ডোনারের সভাপতিত্বে আরও উপস্থিত ছিলেন, কৃষিবিদ শামিমুর রহমান শামিম, জিয়াউর রহমান ফাউন্ডেশনের রিসার্চ সেলের আহ্বায়ক সৈয়দা তাজনিন ওয়ারিশ চিমকি, রণাঙ্গনে জিয়া প্রামাণ্য চিত্রের লেখক ও সিনিয়ার সংবাদিক আমিনুল ইসলাম কাগজি, ব্যারিস্টার মীর হেলাল, বিএনপি মিডিয়া সেলের সদস্য শায়রুল কবির খান, চেয়ারপারসনের প্রেস উইংয়ের সদস্য শামসুদ্দিন দিদার প্রমুখ।

আরএইচ/একে

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়