শিরোনাম
◈ বিএনপি নেতাদের জামিন বিষয়ে আমাদের কিছু করার নেই: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ◈ ‘কিছু ভালো লাগে না’ গ্রুপ দেশের নামে দুর্নাম রটায়: প্রধানমন্ত্রী ◈ বিদেশি ঋণের সুদ পরিশোধে কিছুটা চাপে আছে দেশের অর্থনীতি: অর্থমন্ত্রী ◈ সমালোচনা হবেই, এটা দেখাটা জরুরি না: নান্নু ◈ প্রতিবেশীদের সাথে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বজায় রেখে ‘সামুদ্রিক সম্পদ’ আহরণ করুন: প্রধানমন্ত্রী ◈ ২০০ ইউনিটের বেশি ব্যবহার করলে বিদ্যুতের দাম ৫ শতাংশ বাড়বে, ১ মার্চ থেকে কার্যকর ◈ ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় রাশিয়ার ‘৬০ সেনা নিহত’ ◈ দোষী প্রমাণিত হলে অবহেলাকারী ও চিকিৎসকদের বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা: স্বাস্থ্যমন্ত্রী  ◈ খুলনাকে ৬৫ রানে হারিয়ে প্লে-অফে চট্টগ্রাম ◈ এরশাদ সর্বস্তরে বাংলাভাষা প্রচলনে আইন করেন: জি এম কাদের 

প্রকাশিত : ২৪ মার্চ, ২০২৩, ০৫:৫০ বিকাল
আপডেট : ২৫ মার্চ, ২০২৩, ০৫:৩৮ বিকাল

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

ইসলাম গ্রহণ করে যা বললেন জবি শিক্ষার্থী

অর্ণব দাস থেকে আহমাদ কাবীর

শিমুল চৌধুরী ধ্রুব: হিন্দু ধর্ম ত্যাগ করে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) এক শিক্ষার্থী। ইসলাম গ্রহণের পর তার নতুন নাম রাখা হয় আহমাদ কাবীর। তার আগের নাম ছিল অর্ণব দাস। এর মাধ্যমে আড়াই বছর আগে করা ইসলাম ধর্ম গ্রহণের প্রতিজ্ঞা অবশেষে পূরণ করতে সক্ষম হয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃবিজ্ঞান বিভাগের ১ম বর্ষের এই শিক্ষার্থী।

সদ্য ইসলাম গ্রহণ করা আহমাদ কাবীর গণমাধ্যমে বলেন, ‘২০১৬ সালে মেজো বোনের ইসলাম গ্রহণের পর ইসলামের প্রতি ভালোবাসা সৃষ্টি হতে থাকে। এরপর মুসলিম বন্ধুদের কাছ থেকে ইসলাম ধর্ম সম্পর্কে জানার আগ্রহ জন্মায়। সেখান থেকেই ২০২০ সালের মাঝামাঝি সময়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করার সিদ্ধান্ত নিই। কিন্তু পরিবেশ অনুকূলে না থাকায় নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করার পর সিদ্ধান্ত নেওয়ার চিন্তা-ভাবনা করতে থাকি। অবশেষে আল্লাহর ওপর ভরসা রেখে গত ১০ মার্চ ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করি।’

ইসলাম গ্রহণের পর আহমাদ কাবীর তার জন্মস্থান রাজধানীর বেরাইদেই এক বন্ধুর বাসায় আছেন। তাকে তার এলাকার মুরব্বি, বন্ধু ও বিশ্ববিদ্যালয়ের বড় ভাইয়েরা সব রকমের সহযোগিতা করছেন বলে জানান তিনি।

কাবীর আরও বলেন, ‘আমার বোন ইসলাম গ্রহণ করার পরপরই আমার মধ্যে একটা কৌতুহল জাগে। আমি ইসলাম সম্পর্কে জানার জন্য অনেক বই, কিতাব পড়ি। আল্লাহ ও তার প্রেরিত রাসূল সম্পর্কে জানি। আমি সত্যতা পাই ইসলাম ধর্মের। এরপর ইসলাম সম্পর্কে আরও জানতে ওয়াজ শুনতাম। একপর্যায়ে ইসলামের প্রতি ভালোবাসা জন্মে। তখন থেকেই লুকিয়ে নামাজ পড়তাম আমি। প্রায় দুই বছর এলাকার বাইরে গিয়ে লুকিয়ে নামাজ পড়েছি।’

তিনি বলেন, ‘আনুষ্ঠানিকভাবে ইসলাম ধর্ম গ্রহণের আগে থেকেই নামাজ পড়তাম। ধর্মীয় নিয়ম-কানুন মানতাম। গত তিন মাস আগে আমি পরপর তিন দিন ঘুমন্ত অবস্থায় স্বপ্নে দেখেছি যে, আমি নামাজরত অবস্থায় আছি এবং সালাত আদায় করছি।’

পরিবারের মতামত প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘ইসলাম গ্রহণের পর আমার বাবা ও বোনদের সঙ্গে যোগাযোগ করেছি। কিন্তু তারা আমাকে আগের ধর্মে ফিরে যেতে বলে। আমি সবার কাছে দোয়া চাই, আল্লাহ যেন আমাকে যেকোনো পরিস্থিতি মোকাবিলা করতে সাহায্য করেন এবং আমি যেন আল্লাহর প্রিয় একজন মানুষ হতে পারি।’

এসসিডি/এনএইচ

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়