শিরোনাম

প্রকাশিত : ২৪ জানুয়ারী, ২০২৩, ০৭:৫৬ বিকাল
আপডেট : ২৫ জানুয়ারী, ২০২৩, ০৭:৩৯ সকাল

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

পুলিশের বিরুদ্ধে ডিএনসিসি কর্মকর্তাদের গ্রেপ্তারের হুমকির অভিযোগ

ডিএনসিসি

নিউজ ডেস্ক: ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি) কর্মকর্তারা আজ (মঙ্গলবার) রাজধানীর আসাদগেট মোড়ে নির্মাণাধীন একটি ট্রাফিক পুলিশ বক্স উচ্ছেদ করতে অভিযানে গিয়েছিলেন। এ সময় ট্রাফিক পুলিশের সদস্যরা বাধা দেওয়ায় তারা উচ্ছেদ অভিযান না করেই ফিরে যান। অভিযোগ পাওয়া গেছে, এ সময় পুলিশ সদস্যরা সিটি করপোরেশনের কর্মকর্তাদের গ্রেপ্তারেরও হুমকি দিয়েছেন। প্রথম আলো, সমকাল

উচ্ছেদ অভিযানে যাওয়া উত্তর সিটির কর্মকর্তাদের অভিযোগ, পুলিশের সদস্যরা উচ্ছেদের কাজে তাদের শুধু বাধা–ই দেননি, তাদের গ্রেপ্তার করার এবং উচ্ছেদ অভিযানে ব্যবহৃত ডাম্প ট্রাক ও পে-লোডার জব্দ করে ডাম্পিংয়ে পাঠানোর হুমকিও দিয়েছেন।

ডিএনসিসি অঞ্চল-৫ এর নির্বাহী কর্মকর্তা ও ম্যাজিস্ট্রেট মোতাকাব্বীর আহমেদ সংবাদমাধ্যমকে জানান, গতকাল সোমবার তিনি মোহাম্মদপুর থেকে ফেরার পথে আসাদগেটে আসাদ ফলকের সামনে সড়ক বিভাজকে একটি স্থাপনা নির্মাণ করতে দেখেন। এ সময় গাড়ি থেকে নেমে নির্মাণকর্মী ও ঠিকাদারদের স্থাপনা নির্মাণ করতে নিষেধ করেন তিনি।

উত্তর সিটির উপপ্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা মফিজুর রহমান গণমাধ্যমে অভিযোগ করে জানান, গতকাল (সোমবার) আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা মোতাকাব্বীর আহমেদসহ তারা মোহাম্মদপুরের আসাদগেট থেকে একটি সভা শেষে ফিরছিলেন। এ সময় দেখতে পান, আসাদগেটে সড়ক বিভাজকের মধ্যে ট্রাফিক পুলিশের বসার জন্য এক কক্ষের ঘর করেছে। পাকা ওই ঘর তৈরির কাজ চলছে। বিষয়টি দেখে আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা নেমে পুলিশ সদস্যদের বলেন, এটি নির্মাণের আগে কেন তারা অনুমতি নেননি।

মফিজুর রহমান বলেন, এ সময় পুলিশের সদস্যরা আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা মোতাকাব্বীরকে বলেন, তারা মেয়রের কাছ থেকে অনুমতি নিয়েছেন। পরে মোতাকাব্বীর তাৎক্ষণিক উচ্ছেদের উদ্যোগ নিয়ে পরে আবার সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে পরেরদিন (মঙ্গলবার) ভোররাতে অভিযান চালানোর সিদ্ধান্ত নেন।

সিটির কর্মকর্তারা বলেন, সিটি কর্মকর্তাদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আজ সকালে পে-লোডার, ডাম্প ট্রাক প্রস্তুত করে অভিযানে যান উত্তর সিটির কর্মকর্তারা। এ সময় সেখানে তিন থেকে চারজন পুলিশ সদস্য ছিলেন। তারা মুঠোফোনে ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তাদের ডেকে আনেন। পুলিশের কর্মকর্তারা এসেই বলতে শুরু করলেন, ‘ওদের অ্যারেস্ট করেন, পে-লোডার ডাম্পিংয়ে নিয়ে যান।’

সিটি কর্মকর্তারা অভিযোগ করে জানান, পুলিশের সদস্যরা তাদের উদ্দেশ্য করে বলেন, তারা ভোররাতে আসছে চুরি করতে, তারা কি এখানে উচ্ছেদ করতে আসছে? উচ্ছেদ করতে আসার আগে কেন পুলিশকে জানায়নি। তারা সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট করতে এগুলো করছেন। তাদের সবাইকে গ্রেপ্তার করেন।

সিটির কর্মকর্তারা বলেন, বিষয়টি তাৎক্ষণিক আঞ্চলিক নির্বাহী কর্মকর্তা মোতাকাব্বীর আহমেদকে জানানো হলে তিনি পুলিশের ঊধ্বর্তন কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলেন। কিছুক্ষণ পর তিনি অভিযান না করে সবাইকে চলে যেতে বলেন। পরে তারা সকাল সাড়ে সাতটার দিকে সেখান থেকে চলে যান।

এ প্রসঙ্গে ডিসি ট্রাফিক শাহেদ আল মাসুদ বলেন, এখানে হুমকির কিছু নেই। আসাদগেটে নির্মাণ নয়, ট্রাফিক পুলিশ বক্স সংস্কার করা হয়েছে। আর কোনো স্থাপনা ভাঙতে হলে তো ম্যাজিস্ট্রেটসহ কিছু প্রক্রিয়া আছে। হুট করে কেউ এসে একটা ঘর ভেঙে দিয়ে গেল, এভাবে তো সম্ভব নয়। রিপোর্ট: নাহিদ হাসান

এনএইচ/এসএ 

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়