শিরোনাম
◈ রসায়নে নোবেল পুরস্কার পেলেন তিন বিজ্ঞানী ◈ বিদ্যুৎ উৎপাদনের নামে দুর্নীতি করে জাতিকে সংকটে ফেলেছে সরকার: মির্জা ফখরুল ◈ বিএনপির রাজনীতি মানেই সাম্প্রদায়িক রাজনীতি: কাদের ◈ দেশে ৫ কোটি ৫৬ লাখ ডোজের বেশি টিকা দেওয়া হয়েছে : স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ◈ জাতীয় গ্রিড বিপর্যয়, দেশ পরিচালনায় সরকারের ব্যর্থতার প্রমাণ: জিএম কাদের ◈ রাঙ্গামাটিতে পাহাড় ধসে যোগাযোগ বন্ধ, আটকা পড়েছেন হাজারো পর্যটক ◈ রাশিয়ার চেয়ে আট গুণ ক্ষতির মুখে পড়বে ইউক্রেনের অর্থনীতি: বিশ্ব ব্যাংক ◈ যুক্তরাজ্য-যুক্তরাষ্ট্র সফর নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন বৃহস্পতিবার ◈ খিলগাঁওয়ে বাসা থেকে গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার ◈ খেরসনের অংশবিশেষ পুনরুদ্ধার করেছে ইউক্রেন (ভিডিও)

প্রকাশিত : ০৫ জুলাই, ২০২২, ০৫:৫৮ বিকাল
আপডেট : ০৬ জুলাই, ২০২২, ০২:৪৮ রাত

প্রতিবেদক : নিউজ ডেস্ক

গ্যাস সংকটে ভয়াবহ লোডশেডিংয়ের কবলে দেশ 

গ্যাস

মনজুর এ আজিজ: রাশিয়া ইউক্রেন যুদ্ধের প্রত্যক্ষ প্রভাব পড়তে শুরু করেছে বাংলাদেশের বিদ্যুৎ উৎপাদনে। বিশ্ব বাজারে পুনরায় তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাস-এলএনজির দাম বেড়ে যাওয়ায় আমদানি বন্ধ রয়েছে। ফলে গ্যাস সংকটে চাহিদার বিপরীতে দৈনিক গড়ে ৮০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন কম হচ্ছে। এতে প্রতিদিনই বাড়ছে লোডশেডিং।

তবে বিশ্ববাজারে জ্বালানির দাম স্বাভাবিক না হলে দেশে লোডশেডিং আরও বাড়বে বলে মনে করছেন জ্বালানি সংশ্লিষ্টরা। এ পরিস্থিতিতে বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

এদিকে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ তার ভ্যারিফায়েড ফেসবুকে দেওয়া এক স্ট্যাটাসে লোডশেডিং সম্পর্কে লেখেন, গ্যাস স্বল্পতার কারণে বিদ্যুৎ উৎপাদন ব্যাহত হচ্ছে। এতে অনেক জায়গাতেই বিদ্যুৎ সরবরাহ বিঘ্নিত হচ্ছে। গ্যাস সরবরাহ স্বাভাবিক হলে বিদ্যুৎ উৎপাদন পুনরায় স্বাভাবিক হবে। যুদ্ধের প্রভাবে আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানির উচ্চমূল্য ও সরবরাহ অন্যান্য সব দেশের মতো আমাদেরও সমস্যায় ফেলেছে। এ পরিস্থিতিতে আপনাদের সাময়িক অসুবিধার জন্য আন্তরিক দুঃখ প্রকাশ করছি।

পিডিবির বিদ্যুৎ উৎপাদনের প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, রোববার দেশের বিদ্যুতের চাহিদা ছিল ১৪ হাজার ২৫০ মেগাওয়াট। এর বিপরীতে সরবরাহ করা হয়েছে ১৩ হাজার ৪৪০ মেগাওয়াট। এদিন বিদ্যুতের ঘাটতি ছিল ৮০০ মেগাওয়াট। এর আগের দিন শনিবার দেশে বিদ্যুতের ঘাটতি ছিল ৫০০ মেগাওয়াট। এরমধ্যে ঢাকায় ১৪০ মেগাওয়াট, চিটাগাং ৪০, খুলনা ৫০, রাজশাহী ৬০, কুমিল্লা ৫০, ময়মনসিংহ ৫০, সিলেট ৪০, রংপুরে ৭০ মেগাওয়াট লোডশেডিং করা হয়েছে। 

বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বলছেন, আমাদের বিদ্যুৎ উৎপাদনে যে পরিমাণ গ্যাসের প্রয়োজন  তার তুলনায় কম পাচ্ছি। আগে যেখানে গড়ে ১৪০০/১৩০০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস পাওয়া পাওয়া যেত, সেখানে এখন ১ হাজারের নিচে পাচ্ছি। আপাতত তেলভিত্তিক কেন্দ্রগুলো চালিয়ে ঘাটতি পূরণের চেষ্টা করা হচ্ছে। তবে গ্যাসের এই ঘাটতির সমাধান না হলে লোডশেডিং করেই পরিস্থিতি সামাল দিতে হবে।

পিডিবির চেয়ারম্যান প্রকৌশলী মো. মাহবুবুর রহমান গণমাধ্যমকে বলেন, আর্ন্তজাতিক বাজারে জ্বালানির দাম বাড়ায় দেশে গ্যাস সংকটের কারণে চাহিদা অনুযায়ী বিদ্যুৎ উৎপাদন করা যাচ্ছে না। এই অবস্থায় আমরা বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়ে সংকট কিছুটা কমানোর চেষ্টা করছি। তবে তেলভিত্তিক কেন্দ্রগুলো চালানোর ফলে পিডিবির লোকসান বাড়ছে।  

পেট্রোবাংলা সুত্রে জানা গেছে, বিদ্যুৎ উৎপাদনে চাহিদামতো গ্যাস সরবরাহ করা যাচ্ছে না। রোববার বিদ্যুৎ উৎপাদনে ২ হাজার ২৫২ মিলিয়ন ঘনফুট চাহিদার বিপরীতে গ্যাস সরবরাহ করা হয়েছে ৯৬০ মিলিয়ন ঘনফুট। এর আগের দিন একই চাহিদার বিপরীতে সরবরাহ করা হয়েছিল ৯৯২ মিলিয়ন ঘনফুট। 
আন্তর্জাতিক বাজারে এলএনজির দাম বেশি হওয়ায় আমরা আপাতত কেনা বন্ধ রয়েছে। যতদিন দাম না কমে অথবা দেশীয় উৎপাদন না বাড়ে ততদিন লোড ম্যানেজমেন্ট করেই আমাদের চলতে হবে। 

এ প্রসঙ্গে পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান নাজমুল আহসান গণমাধ্যমকে বলেন, যুদ্ধের প্রভাবে জ্বালানির বাজার এখন অস্থির। বিশ্বের অন্যান্য দেশের চেয়ে আমাদের অবস্থা আলাদা নয়। সুতরাং পরিস্থিতি সামাল দিতে আমরা দেশীয় উৎপাদন বাড়ানোর চেষ্টা করছি।

এদিকে রাজধানীসহ সারাদেশ ভয়াবহ লোডশেডিংয়ের কবলে পড়ায় বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। মঙ্গলবার ঢাকা সেনানিবাসে পিজিআর সদর দফতরে প্রেসিডেন্ট গার্ড রেজিমেন্টের (পিজিআর) ৪৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি এ আহবান জানান। প্রধানমন্ত্রী তার সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এতে যুক্ত হন।

তিনি বলেন, বিশ্বব্যাপী বিদ্যুৎ উৎপাদন খরচ বেড়েছে, কয়লা প্রায় পাওয়া যাচ্ছে না তাই সবাইকে বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হতে হবে। রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে সারা বিশ্বেই তেলের দাম বৃদ্ধি পেয়েছে। এখন আন্তর্জাতিক বাজারে বিদ্যুৎ উৎপাদনের উপকরণগুলোর দাম অত্যাধিক বেড়েছে। অনেক দেশেই এখন বিদ্যুতের জন্য হাহাকার তৈরি হয়েছে। অনেক উন্নত দেশেও কিন্তু দুর্ভিক্ষ শুরু হয়ে গেছে। বিদ্যুৎ উৎপাদনে বড় অংকের ভর্তুকি দিচ্ছে সরকার। তাই বিদ্যুৎ ব্যবহারে সাশ্রয়ী হতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান তিনি।

  • সর্বশেষ
  • জনপ্রিয়