প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] ব্যানার কালচারে সৌন্দর্য আড়াল বরগুনা শহরের

সাগর আকন: [২] বরগুনা শহরের বিভিন্ন স্থাপনা, সড়ক বিভাজক, বৈদ্যুতিক খুঁটি ও গুরুত্বপূর্ণ মোড়গুলো শুভেচ্ছার ব্যানার, ফেস্টুন ও তোরণে ঢেকে আছে। শহরের নাথ পট্টি লেক, শেখ রাসেল স্কয়ার, টাউন হল মোড়ে অগ্নিঝরা ৭১ ভাস্কর্যসহ সৌন্দর্যবর্ধনকারী স্থাপনা ও ভাস্কর্য ব্যানার-ফেস্টুনে মুড়ে রাখা হয়েছে।

[৩] উপলক্ষ বদলালেও এসব ব্যানার-ফেস্টুন সরে না। কিছু সরকারি প্রতিষ্ঠান, ক্ষমতাসীন দল ও এর অঙ্গসংগঠনের নামে তৈরি এসব ব্যানার-ফেস্টুনে সৌন্দর্যহানির পাশাপাশি দুর্ঘটনার শঙ্কাও তৈরি হচ্ছে।

[৪] বরগুনা পৌরবাসী বলছেন, ব্যানার-ফেস্টুনে রাজনৈতিক নেতাদের নাম ব্যবহার করায় এগুলো সরানো যাচ্ছে না বা সরাতে উৎসাহ দেখায় না প্রশাসন এবং পৌর কর্তৃপক্ষ। বরগুনা পৌরসভার ১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর তরিকজ্জামান টিটু হতাশা ব্যক্ত করে বলেন, ‘বিষয়টি খুবই দুঃখজনক। তবে নানা কারণে আমরা সমাধান করতে পারছি না। রাজনৈতিক ব্যক্তিদের সহায়তা ছাড়া এ সমস্যা সমাধান সম্ভব না।

[৫] সরেজমিনে দেখা গেছে, বরগুনা শহরের প্রাণকেন্দ্র নাথ পট্রি লেকের মেন গেটের দু পাশে শেখ রাসেলের স্কয়ারের সামনেসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও রাজনৈতিক ও ক্ষমতাসীন দলের নেতা-কর্মীদের ব্যানারে ঢাকা। ব্যানারে ঢাকা তার চারপাশ। পাশাপাশি বরগুনা শহরের বাসস্ট্যান্ড, বিভিন্ন পয়েন্টসহ ছোট-বড় সড়কের দুই পাশে ও সড়ক বিভাজনেও আছে তোরণ, ব্যানার ও ফেস্টুন।

[৬] টাউন হল মোড়ে চলাচলকারী চর কলোনির বাসিন্দা মো: রাসেল বলেন, সারা দেশের মতো বরগুনাও ‘ব্যানার কালচার’ চালু হয়েছে। কোনো একটা উৎসব বা রাজনৈতিক কর্মসূচি পেলেই শহর জুড়ে রাজনৈতিক নেতা-কর্মীদের ব্যানার ও ফেস্টুনে ভরে যায়। উপলক্ষ বদলালেও সারা বছরই এগুলো থাকে। ব্যানারের কারণে কয়েকটি মোড়ে রাস্তার ওপাশের কিছু দেখা যায় না।

[৭] এ বিষয়ে বিশিষ্ট সমাজসেবক ও সাংবাদিক অ্যাডভোকেট এম মজিবুল হক কিসলু বলেন, যেকোনো ধর্মীয় অনুষ্ঠানসহ রাজনৈতিক প্রোগ্রাম এলেই রাজনৈতিক দলগুলো ফুটপাত, আইল্যান্ডসহ সৌন্দর্যবর্ধনের স্থানগুলো ঢেকে প্রচার-প্রচারণা চালায়। এই কালচার থেকে সবার বেরিয়ে আসা উচিত।

[৮] বরগুনা পৌরসভার মেয়র এ‍্যাডভোকেট কামরুল আহসান মহারাজ বলেন, ‘অনেকেই পৌরসভার অনুমতি না নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা দখল করে এসব করছেন। আমরা খুব তাড়াতাড়ি মাইকিং এর মাধ্যমে গুরুত্বপূর্ণ জায়গা গুলো থেকে ব্যানার-ফেস্টুন এগুলো নামিয়ে ফেলতে সবাইকে অনুরোধ করবো।

[৯] বরগুনা জেলা প্রশাসক মোঃ হাবিবুর রহমান বলেন, পৌরসভার নাথপট্রি লেক, টাউন হল অগ্নিঝরা ৭১ এবং রাসেল স্কয়ারসহ গুরুত্বপূর্ণ এবং সৌন্দর্য বর্ধনকারী স্থানগুলি থেকে ব্যানার-ফেস্টুন বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সাইনবোর্ড অপসারণের দায়িত্ব পৌরসভার তারপরও আমি পৌরসভার মেয়রকে অনুরোধ করবো এগুলো অতি দ্রুত অপসারণ করা হয় সেখানে যদি নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও পুলিশ দিয়ে প্রশাসনিক কোনো সহায়তা লাগে সেটি আমরা করব।

সর্বাধিক পঠিত