প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] রূপপুর প্রকল্প কর্মরতদের টিকাদান

রিয়াদ ইসলাম: [২] ঈশ্বরদীতে নির্মাণাধীন পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্র প্রকল্পে কর্মরত বাংলাদেশিদের স্পুটনিক ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে। প্রকল্প বাস্তবায়নকারী রাশিয়ার রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান ‘রোসাটমের’প্রকৌশল শাখা এটমস্ত্রয়েক্সপোর্ট (এএসই) সাড়ে ৩ হাজার ডোজ স্পুটনিক ভ্যাকসিন দেওয়ার ব্যবস্থা করে। এর আগে আরও ১ হাজার ৭০০ বাংলাদেশিকে এই টিকা দেওয়া হয়।

[৩] বুধবার (১ ডিসেম্বর) রোসাটমের পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

[৪] বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এটমস্ত্রয়েক্সপোর্ট (এএসই) তার নিজস্ব তহবিল থেকে এই সাড়ে ৩ হাজার ডোজ ভ্যাকসিন কিনে রূপপুর প্রকল্পের সাইটে পাঠায়। এরপর বাংলাদেশিদের জন্য সম্প্রতি টিকাদান কর্মসূচি পালিত হয়। বাংলাদেশি চিকিৎসকরা এই কর্মসূচির দায়িত্বে ছিলেন।

[৫] স্থানীয়ভাবে আরও ১০ হাজার ডোজ ভ্যাকসিন সংগ্রহ এবং রূপপুর প্রকল্প এলাকার কাছাকাছি কোনও স্থানে একটি ভ্যাক্সিনেশন সেন্টার স্থাপনের জন্য বাংলাদেশ সরকারের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে আলোচনা চলছে। এর ফলে প্রকল্পে কর্মরতদের মধ্যে ন্যূনতম ৮০ শতাংশ মাত্রার ‘হার্ড ইমিউনিটি’ অর্জন সম্ভব হবে।

[৬] একই সঙ্গে প্রকল্পে কর্মরত রুশ এবং সিআইএস-ভুক্ত দেশগুলোর নাগরিকদের বুস্টার ডোজ প্রদানের কাজও এগিয়ে চলছে। এর জন্য অতিরিক্ত আরও ৭৫০ ডোজ ভ্যাকসিন আনা হয়েছে এবং এ জন্য একটি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দল বাংলাদেশে অবস্থান করছে।

[৭] এএসই ভাইস-প্রেসিডেন্ট এবং রূপপুর এনপিপি নির্মাণ প্রকল্প পরিচালক আলেক্সি দেইরি বলেন, ‘কর্মরতদের সুরক্ষা দেওয়া এবং প্রকল্পের কাজ নিরবচ্ছিন্নভাবে চালিয়ে নিতে এই পদক্ষেপগুলো জরুরি।’ তিনি আরও বলেন, ‘রোসাটমের আন্তর্জাতিক প্রকল্পগুলোর মধ্যে যেখানে প্রথম দিকে (৬ মাসেরও বেশি সময় আগে) টিকাদান কর্মসূচি শুরু হয়, বাংলাদেশ তার মধ্যে অন্যতম। বুস্টার ডোজ দেওয়ার ক্ষেত্রেও আমরা প্রথম সারিতে অবস্থান করছি। বাংলাদেশিদেরও টিকা গ্রহণের সুযোগ করে দিতে পারছি। আমরা আমাদের পেশাগত ও সামাজিক দায়বদ্ধতা সম্পর্কে সম্পূর্ণ সচেতন। প্রতিশ্রুতি রক্ষা করা আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। আমরা মনে করি, প্রকল্পটি নির্ধারিত সময়ে সম্পন্ন করার ক্ষেত্রে টিকাদান অন্যতম ভূমিকা পালন করবে।’ সম্পাদনা: হ্যাপি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত