প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] শেখ রাসেল বেঁচে থাকবে নতুন প্রজন্মের অনুপ্রেরণার উৎস হয়ে: প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী

শরীফ শাওন: [২] শেখ রাসেলের মত আর কাউকে যেন এভাবে ঘাতকের গুলিতে অকালে প্রাণ হারাতে না হয় জানিয়ে প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী ইমরান আহমদ বলেছেন, শেখ রাসেল আমাদের স্মৃতি, স্বাধীনতা ও সমৃদ্ধিতে মিশে আছে।

[৩] সোমবার বিকেলে শহীদ শেখ রাসেলের ৫৮তম জন্মদিন উপলক্ষে রাজধানীর মিরপুরে শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মহিলা কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে নবনির্মিত ‘শেখ রাসেল মঞ্চ’ উদ্বোধন, আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

[৪] ইমরান আহমেদ বলেন, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর কারিগরি প্রশিক্ষণকেন্দ্র থেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে কর্মীরা বৈদেশিক কর্মসংস্থানের উদ্দেশ্যে অভিবাসী হয়ে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে ছড়িয়ে পড়ে। এই প্রক্রিয়ায় প্রশিক্ষণার্থীরা যাতে শেখ রাসেলের পুণ্যস্মৃতি বিদেশে বয়ে নিয়ে যেতে পারে, এজন্য তাদের দেশেপ্রেমে উদ্বুদ্ধ করতে দেশের ৬৪টি কারিগরি প্রশিক্ষণকেন্দ্র এবং ৬টি ইনস্টিটিউট অব মেরিন টেকনোলজিতে (আইএমটি) যথাযোগ্য মর্যাদায় শহীদ শেখ রাসেলের জন্মদিন পালন করা হচ্ছে। এই আয়োজনের মাধ্যমে প্রশিক্ষণার্থীরা বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধকে জানতে পারবে।

[৫] মন্ত্রী বলেন, এই দিবসটিকে মহিমান্বিত করতে জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরো প্রবাসী সেবা সহজীকরণে একটি বিশেষ ওয়ান স্টপ সার্ভিস চালু করতে যাচ্ছে। যেখান থেকে ২১টি দেশে গমনকারী কর্মীরা বিএমইটির স্মার্ট কার্ডসহ সরাসরি সার্ভিস পাবে।

[৬] জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের মহাপরিচালক শহিদুল আলম বলেন, আজ সারাদেশের ৭০টি টেকনিক্যাল ট্রেনিং ইনস্টিটিউটে শেখ রাসেলের জন্মদিন উৎসব পালন করা হয়েছে। প্রতিটি ইনস্টিটিউটে ১২ হাজার শিক্ষার্থী সহ মোট ১৫ হাজার এবং অভিভাবক হিসেব করলে আরও ২ লাখ মানুষ, অর্থাৎ আজকের এই আয়োজনের মধ্য দিয়ে কমপক্ষে ৫ লাখ লোক সরাসরি শেখ রাসেলের জন্মদিনের অনুভতি পেয়েছে।

[৭] মহাপরিচালক বলেন, জাতির পিতার প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে তার পুরো পরিবারের প্রতি সমর্থন জানাতে হবে। কারণ বঙ্গবন্ধুর আন্দোলন সংগ্রাম থেকে শুরু করে জেল খাটা পর্যন্ত বিষয়গুলোর সঙ্গে পুরো পরিবারের কষ্ট জড়িত ছিল। জীবন দেওয়ার সময়ও পরিবারসহ জীবন দিতে হয়েছে। শেখ রাসেল বেঁচে থাকলে এই সুবর্ণ জয়ন্তিতে আমাদের আরো অনেক কিছু দিতে পারতো।

[৮] অভিবাসনে আমরা মর্যাদা ও নৈতিকতা চাই জানিয়ে তিনি বলেন, এখান থেকে ট্রেনিং নিয়ে শুধু বাংলাদেশ নয়, এরা সমগ্র পৃথিবিতে যাবে। তারা যেখানে যাবে সেখানে বাংলাদেশের সংস্কৃতি পৌছে দেবে। এতে বাংলাদেশের ব্রান্ডিং হবে। আমরা শ্রম বিক্রি করি আবার আমাদের সংস্কৃতি ও ইতিহাস প্রমোট করি। একারণেই আমা কালচারাল প্রোগ্রাম করেছি। এছাড়াও বিএমইটির ৭১টি ক্রিয়া কমিটি করেছি। এতে উপযুক্ত মানুষ তৈরি হবে।

[৯] শহিদুল আলম জানান, প্রতিষ্ঠানটি বঙ্গবন্ধু শেখ ফজিলতুন্নেছার নামে, শেখ রাসেল মঞ্চ করছি, তার মায়ের নামও এখানে আছে। আমরা চেয়েছি বঙ্গবন্ধুর পরিবারের পরিপূর্ণ একটি অবয়ব এখানে রাখতে। মূলত বঙ্গবন্ধুর পরিবারের স্মৃতির একটি হাব হবে। যেখান থেকে এমন হতে পারে তাদের নামে বৃত্তি হবে।

[১০] জনশক্তি কর্মসংস্থান ও প্রশিক্ষণ ব্যুরোর মহাপরিচালক মো. শহীদুল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ডের মহাপরিচালক মো. হামিদুর রহমান, মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. জয়নাল আবেদীন মোল্লা, বোয়েসেলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. বিল্লাল হোসেন, প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. জাহিদুল হক প্রমুখ। সম্পাদনা : রশিদ

 

সর্বাধিক পঠিত