প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] রাঙ্গুনিয়া ১৩টি ইউনিয়নে নৌকার মাঝি হতে চান ৭০ জন

আশিক এলাহী: [২] সারাদেশে তৃতীয় দফায় ১ হাজার ৭টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এ ধাপে আগামী ২৮ নভেম্বর চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলার ১৫টি ইউনিয়নের মধ্যে ১৩টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। উপনির্বাচন হওয়ায় অপর দুইটি ইউনিয়নে নির্বাচন হবে না।

[৪] উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান পদে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের দৌড়ঝাঁপ শুরু হয়েছে। প্রার্থীদের ক্ষেত্রে দলীয় মনোনয়ন চালু থাকায় মনোনয়ন প্রত্যাশীরা বাড়িয়ে দিয়েছেন দলীয় কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ। এছাড়া আওয়ামী লীগের নীতিনির্ধারকের মন জেতাতে উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নে ৭০ জন মনোনয়ন প্রত্যাশী চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। নিজেদের অস্তিত্ব জানান দিতে গণসংযোগ, দলীয় নেতাদের ছবি সংবলিত পোস্টার শোভা পাচ্ছে। এবং নেতৃবৃন্দের সাথে সেতুবন্ধন করার চেষ্টার চালাচ্ছেন মনোনয়ন প্রত্যাশীরা।

[৫] রাজানগর ইউনিয়নঃ রাজানগর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন আলোচনায় শীর্ষে আছেন বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো, ইঞ্জিনিয়ার শামসুল আলম তালুকদার। এছাড়া মনোনয়ন দৌড়ে আলোচনায় আছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মো, মনজু।

[৬] জানা যায়, ইঞ্জিনিয়ার শামসুল আলম তালুকদার একজন দক্ষ সংগঠক। এবং কাজের পুরস্কার হিসেবে তিনবার শ্রেষ্ঠ চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। কাজেই হাইকমান্ডের মনোনয়ন যেতে পারে তার পক্ষে।

[৭] হোছনাবাদ ইউনিয়নঃ হোছনাবাদ ইউপি চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন দৌড়ে এগিয়ে আছেন উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি এডভোকেট নুরুল আলম। তিনি দীর্ঘ ৫ বছর সভাপতির দায়িত্ব পালন করে প্রশংসা ও গ্রহণযোগ্যতা পেয়েছেন রাজনীতি অঙ্গনে। তিনি ক্লিন ইমেজ ও স্বচ্ছ রাজনীতির কান্ডারী হিসেবে পরিচিত সবার কাছে। এছাড়া আলোচনায় আছেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজী দানু মিয়া, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মইন উদ্দিন। এবং সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক অসীম বরণ সুশীল। এদিকে বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মির্জা সেকান্দরও মনোনয়ন প্রত্যাশী। তবে ইউনিয়ন সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বয়স এবং বার্ধক্যজনিত কারণে মনোনয়ন দৌড়ে পিছিয়ে পড়তে পারে বলে ধারণা সংশ্লিষ্ট সকলের।

[৮] পারুয়া ইউনিয়নঃ পারুয়া ইউপি চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন প্রত্যাশী ইউনিয়ন সভাপতি মো, একতেহার হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক ইলিয়াস তালুকদার। এছাড়া আলোচনায় আছেন বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগ মন্ডলীর সদস্য জাহেদুল রহমান তালুকদার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য জহুরুল ইসলাম ও মো, মনজু। তবে ইউনিয়ন সভাপতি একতেহার হোসেন মনোনয়ন দৌড়ে এগিয়ে বলে জানা যায়।

[৯] পোমরা ইউনিয়নঃ পোমরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান পদে আলোচনার তুঙ্গে আছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ফজলুল কবির গিয়াসু। এছাড়া মনোনয়ন দৌড়ে আলোচনায় আছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো, জাহেদুল আলম চৌধুরী আইয়ুব ও বর্তমান চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা কুতুব উদ্দিন চৌধুরী। এদিকে উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রবীণ রাজনীতিবীদ ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব জহির আহমদ চৌধুরীর বয়স-বার্ধক্যজনিত কারণ সামনে না আসলে তিনি এগিয়ে থাকতেন বলে ধারণা স্থানীয়দের। তবে আওয়ামী লীগ হাইকমান্ড সূত্রে জানা যায়, উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আলহাজ্ব এমরুল করিম রাশেদ মনোনয়ন না চাইলেও তাকে নৌকার মাঝি উপহার দিতে পারেন।

[১০] বেতাগী ইউনিয়নঃ বেতাগী ইউপি চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন দৌড়ে আলোচনার শীর্ষে আছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও বেতাগী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এম এ হান্নান চৌধুরী। এছাড়া মনোনয়ন প্রত্যাশী উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও বর্তমান ইউপি সদস্য সৈয়দ আবুল মনছুর। এছাড়া নৌকার মাঝি হতে আলোচনায় আছেন বেতাগী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো, নুরুল আবছার, সহ-সভাপতি মো, শেখ কুতুব উদ্দিন ও সাংগঠনিক সম্পাদক শফিউল আলম। এদিকে প্রবীণ আওয়ামী লীগ মোস্তাফিজুল রহমানের বয়স ও বার্ধক্যজনিত কারণে পিছিয়ে পড়তে পারেন, এমন অভিমত স্থানীয়দের। তবে ক্লিন ইমেজের রাজনীতিবিদ এম এ হান্নান চৌধুরী ২০১৭ সালে ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি চেয়েছিলেন। কিন্তু সবকিছু ঠিকঠাক থাকলেও, শেষে এসে তরী ফিরে যায় অন্যদিকে। সে ক্ষেত্রে সমীকরণ যেতে পারে তার পক্ষে।

[১১] সরফভাটা ইউনিয়নঃ সরফভাটা ইউপি চেয়ারম্যান পদে এগিয়ে আছেন বর্তমান চেয়ারম্যান ও কেন্দ্রিয় যুবলীগের সদস্য শেখ ফরীদ উদ্দিন চৌধুরী। এছাড়া মনোনয়ন দৌড়ে আরও আলোচনায় আছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক চেয়ারম্যান মুজিবুল ইসলাম সরফি, উপজেলা আওয়ামী লীগের স্থাস্থ্য ও জনসংখ্যা সম্পাদক নিজাম উদ্দিন বাদশা, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো, ইউনুস, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবু তাহের। জানা যায়, এদিকে প্রবীণ রাজনীতিবিদ, কবি, শিক্ষাবিদ ও সরফভাটা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো, আবদুর রউফ মাস্টার মনোনয়ন প্রত্যাশী না হলেও তাকে মনোনয়ন দিতে পারেন ক্ষমতাসীন দলের নীতিনির্ধারকরা।

[১২] শিলক ইউনিয়নঃ শিলক ইউপি চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন প্রত্যাশী বর্তমান চেয়ারম্যান ও চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো, নজরুল ইসলাম তালুকদার। এছাড়া আলোচনায় আছেন চট্টগ্রাম উত্তর জেলা কৃষক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও সাবেক চেয়ারম্যান এম এ মান্নান। এদিকে মনোনয়ন দৌড়ে আলোচনায় আছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মো, মাহমুদুল রহমান বাদশা। তিনি শিলক ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি, উপজেলা ছাত্রলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি এবং চট্টগ্রাম উত্তর জেলা ছাত্রলীগের কর্মসূচি ও পরিকল্পনা সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন।

[১৩] এছাড়া আলোচনায় আছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য শহীদুল্লাহ চৌধুরী, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মো, হাসেম মাস্টার, উপজেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী। জানা যায়, মাহমুদুল রহমান বাদশা শিলক ইউপি চেয়ারম্যান পদে বড় চমক হতে পারেন।

[১৪] পদুয়া ইউনিয়নঃ পদুয়া ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে মনোনয়ন দৌড়ে আলোচনার শীর্ষে আছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও তিন বারের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মো, আবু জাফর। এছাড়া আলোচনায় আছেন মো, জাহেদ হাছান তালুকদার, উপজেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য ও সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক নাসির উদ্দিন সেলিম, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মো, শাহজাহান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম তালুকদার ও যুবলীগ নেতা তারেক সোহেল। তবে বর্তমান চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রবীণ রাজনীতিবিদ গোলাম কবির তালুকদার বার্ধক্যজনিত কারণে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবেন না বলে জানা গেছে।

[১৫] চন্দ্রঘোনা ইউনিয়নঃ বর্তমান চেয়ারম্যান ও চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের কৃষি বিষয়ক সম্পাদক মো, ইদ্রীছ আজগর। তিনি এবারও মনোনয়ন প্রত্যাশী। তবে চন্দ্রঘোনা ইউপি নির্বাচনে আলোচনার শীর্ষে আছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক মো, আবু তাহের। এছাড়া আরও আলোচনায় আছেন যুবলীগ নেতা ইলিয়াস কাঞ্চন চৌধুরী ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জালাল উদ্দিন।

[১৬] কোদালা ইউনিয়নঃ কোদালা ইউপি চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন প্রত্যাশী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো, বদিউল আলম তালুকদার, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক কাউসার নুর লিটন। তবে বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আবদুল কাইয়ুম তালুকদারও প্রত্যাশী। এছাড়া মনোনয়ন চান উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মো, নাসির উদ্দিন। এদিকে কাউসার নূর লিটন উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্টাতা সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা মো, নুরুল হকের। তিনি হতে পারেন নৌকার মাঝি এমনটাই জানান দায়িত্বশীল মহল।

[১৬] ইসলামপুরঃ বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো, ইকবাল হোসেন চৌধুরী মিল্টন। তিনি এবারও আলোচনায় আছেন। তবে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সিরাজ উদ্দীন চৌধুরী মনোনয়ন দৌড়ে এগিয়ে থাকবেন বলে জানা যায়। এছাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও দূর্যোগ বিষয়ক সম্পাদক কামাল উদ্দিন চৌধুরী, চট্টগ্রাম উত্তর জেলা ছাত্রলীগের তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক তৌহিদুল ইসলাম চৌধুরী, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মো, হোসেন তালুকদার ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম চৌধুরী বাবলা।

[১৭] দক্ষিণ রাজানগরঃ বর্তমান চেয়ারম্যান আহমদ সৈয়দ তালুকদার। তিনি এবারও মনোনয়ন প্রত্যাশী। মনোনয়ন দৌড়ে আলোচনায় আছেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জামাল উদ্দিন। তবে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ওমর গণি চৌধুরী কাঞ্চন মনোনয়ন প্রত্যাশী। এছাড়া সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য এনামুক হক মিয়া ও এডভোকেট আবু বকর চৌধুরী, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুর রহমান সাধন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলমগীর কবির রোকন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক ইস্কান্দর মিয়া মাস্টার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আলমগীর হোসেন তালুকদার ও ব্যাংকার এস এম ইদ্রিস। তবে ইউপি চেয়ারম্যান পদে জামাল উদ্দিনকে নিয়ে কল্পনা জল্পনা বেশি সচেতন মহলের।

[১৮] লালানগর: লালানগর ইউপি চেয়ারম্যান পদে আলোচনার শীর্ষে আছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক জসিম উদ্দিন তালুকদার। তবে বর্তমান চেয়ারম্যান মীর তৌহিদুল ইসলাম কাঞ্চন এবারও মনোনয়ন প্রত্যাশী। এছাড়া হোছনাবাদ-লালানগর উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও কেন্দ্রীয় ছাত্রনেতা সিরাজুল করিম বিপ্লব, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি কাজী আতাউর রহমান ও আবদুল মান্নান তালুকদার।

[১৯] এ বিষয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার শামসুল আলম তালুকদার জানান, ইউপি চেয়ারম্যান পদে অনেকেই মনোনয়ন চাইতে পারেন। তবে যাদের নেতৃত্বের গুণ, গ্রহণযোগ্যতা ও জনপ্রিয়তা শীর্ষে। তাদের মধ্য ৩ জন বা তারও অধিক নাম চট্টগ্রাম জেলা আওয়ামী লীগে দেয়া হবে। এরপর দলীয় নীতিনির্ধারক যাকে মনোনয়ন দিবেন, সে হবে নৌকার মাঝি।

[২০] উপজেলার ইউপি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে কিনা জানতে চাইলে রাঙ্গুনিয়া উপজেলা বিএনপি’র সদস্য সচিব প্রফেসর মো, মোহসিন জানান, রাঙ্গুনিয়া উপজেলার ইউপি নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহণ করবেন না।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত