প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] সুনামগঞ্জে পাওনা টাকা চাইতে গিয়ে ব্যবসায়ীর উপর হামলা ও লুটতরাজ

আল হেলাল: [২] সুনামগঞ্জ সদর উপজেলায় পাওনা টাকা চাইতে গিয়ে ব্যবসায়ীর উপর হামলা ও লুটতরাজ চালিয়েছে সন্ত্রাসীরা।

[৩] গত ৭ অক্টোবর বৃহস্পতিবার রাত ১০টায় সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার মোহনপুর ইউনিয়নের জয়নগর বাজারস্থ মর্নিং সান স্কুলের সামনে ত্রিমুখী রাস্তায় এ ঘটনাটি ঘটে। এ ব্যাপারে চিহ্নিত ২ সন্ত্রাসীসহ অজ্ঞাত আরো ৪ জনের বিরুদ্ধে সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানায় একটি মামলার অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

[৪] ঘটনার শিকার জখমী মো. সালেহ আহমদ (৩৭) দক্ষিণ সুনামগঞ্জ (শান্তিগঞ্জ) থানার শিমুলবাক ইউনিয়নের মো. আপিল মিয়ার পুত্র ও জয়নগর বাজারস্থ জুই টেলিকম এন্ড ইলেক্ট্রনিক্স, রুবি এন্টারপ্রাইজ ও রুবি লাইব্রেরীর পরিচালক।

[৫] হামলাকারী সন্ত্রাসীরা হচ্ছে সদর উপজেলার মোহনপুর গ্রামের চেরাগ আলীর পুত্র সুরুজ আলী (৩০) ও একই গ্রামের নুরুল আমিনের পুত্র মো. পারভেজ আহমদ (২৬)।

[৬] অভিযোগে প্রকাশ, সন্ত্রাসী সুরুজ আলী, সালেহ আহমদ এর জুই টেলিকম এন্ড ইলেক্ট্রনিক্স নামের ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান হতে ৪১ হাজার টাকা মূল্যের মালামাল নিয়ে ১১ হাজার টাকা পরিশোধ করে। বাকী ৩০ হাজার টাকা পরিশোধ করার কথা বলে দেই দিচ্ছি করে ১৬ মাস সময় অতিবাহিত করে।

[৭] সুরুজ আলীর কাছে পাওনা টাকা চাইতে গেলে উক্ত সুরুজ আলী দোকান মালিক ছালেহ আহমদ কে প্রাণনাশের হুমকী দেয়। ৬ অক্টোবর বুধবার সন্ধ্যা ৭টায় দোকান বাকীর বকেয়া পাওনা টাকা চাইতে গেলে সুরুজ আলীর সাথে কথা কাটাকাটি হয় পাওনাদার সালেহ আহমদের।

এরই জের ধরে পরদিন ৭ অক্টোবর রাত ১০টার সময় বাড়ীতে যাওয়ার পথে পথিমধ্যে ব্যবসায়ী সালেহ আহমদ এর চলন্ত মোটর সাইকেল এর গতিরোধ করে দাড়ায় ৬ সন্ত্রাসী। তারা প্রাণে হত্যার উদ্দেশ্যে কাঠের রুইল দ্বারা সালেহ আহমদ এর মাথা লক্ষ্য করে বারী মেরে তাকে খুন করার চেষ্টা চালায়। পরে তাকে মোটর সাইকেল হতে মাটিতে ফেলে দিয়ে ১ লাখ ৯৭ হাজার টাকা নগদ ছিনতাই করে নেয় সন্ত্রাসীরা। পরে আহত সালেহ আহমদকে জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসাসেবা দেয়া হয়।

[৯] এলাকাবাসী জানান, গত ১০/২/২০২০ ইং তারিখে দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানার পাগলা বাজার হতে গাজাসহ সুরুজ আলী ও পারভেজ কে আটক করা হয়।এছাড়াও সুনামগঞ্জ সদর থানায় মাদক মামলার আসামি ওই ২ সন্ত্রাসী। বর্তমানে জয়নগর বাজারকে ইয়াবা ব্যবসার আখড়ায় পরিণত করেছে ওই সন্ত্রাসীরা।

[১০] জানতে চাইলে সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানার এসআই কবীর বলেন, ব্যবসায়ীর উপর হামলাকারীরা একাধিক মামলার আসামি। তাদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলাটি শনিবার দুপুরে আমি সরজমিনে তদন্ত করে এসেছি।

[১১] মোহনপুর ইউনিয়ন পরিষদের জনপ্রতিনিধি ও জয়নগর বাজারের ব্যবসায়ীরা ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, পাওনা টাকা চাইতে গিয়ে ব্যবসায়ীর উপর হামলা ও লুটতরাজ চালিয়েছে ৬ থেকে ৭ জন সন্ত্রাসী। এরা একাধারে গাজা ও মাদক মামলার আসামি। এর মধ্যে প্রধান আসামি সুরুজ আলীর পিতা এখনও জেলহাজতে রয়েছেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত