প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] খিলগাঁওয়ে পুলিশ সোর্স আসিফ হত্যা মামলার মূল হোতা বাদশা আটক

সুজন কৈরী: [২] ঢাকা জেলার আশুলিয়া এলাকা থেকে খিলগাঁওয়ের আসিফ হত্যার প্রধান আসামি, অবৈধ অস্ত্রধারী ও মাদক ব্যবসায়ী জিন্নাত আলী ওরফে বাদশাকে (২৮) আটক করেছে র‌্যাব। সেই সঙ্গে আটক করা হয়েছে বাদশার সহযোগী আলমগীরকেও (৩০)।

[৩] বুধবার (০১ সেপ্টেম্বর) র‌্যাব-৩ এর একটি দল আশুলিয়ার নিশ্চিন্তপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে ওই দুজনকে আটক করে। এ সময় তাদের কাছ থেকে ১টি বিদেশি পিস্তল, ১টি ম্যাগাজিন, ৩ রাউন্ড গুলি এবং ২০০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়েছে।

[৪] র‌্যাব বলছে, অবৈধ অস্ত্রধারী ও সন্ত্রাসী জিন্নাত আলী ওরফে বাদশা খিলগাঁও থানার পুলিশ সোর্স আসিফ হত্যা মামলার মূল হোতা।

[৫] র‌্যাব-৩ এর স্টাফ অফিসার (অপস্ ও ইন্ট শাখা) অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বীণা রানী দাস জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটকরা জানিয়েছেন, রাজধানীর খিলগাঁও ও বাড্ডা এলাকায় মাদক ব্যবসা নিয়ন্ত্রণ ও আধিপত্য বিস্তারের জন্য তারা অবৈধ অস্ত্র ব্যবহার করে মাদক ব্যবসা, চাঁদাবাজি ও সন্ত্রাসমূলক কর্মকান্ড চালাচ্ছিলেন। মাদক ব্যবসায় বাধা সৃষ্টিকারীদের অস্ত্র প্রদর্শন করে ভয়ভীতি প্রদর্শন করতেন আটকরা। খিলগাঁও থানা পুলিশের সোর্স নিহত আসিফ তার কয়েকজন সহযোগীকে পুলিশ দিয়ে ধরিয়ে দেয়। এতে আটক বাদশা ক্ষিপ্ত হয়ে আসিফকে হত্যার পরিকল্পনা করেন। সেই অনুযায়ী চলতি বছরের ১৫ এপ্রিল রাতে খিলগাঁওয়ের মেরাদিয়া নয়াপাড়া এলাকায় বাদশা তার সহযোগীদের নিয়ে অবস্থান নেন। পরে তারা আসিফকে মোবাইলে ডেকে নিয়ে আসেন। মেরাদিয়া নয়াপাড়াস্থ সাকিবুল হাসান ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কশপের সামনে আসা মাত্র আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা বাদশা ও তার সহযোগীরা আসিফকে ঝাপটে ধরে ধারালো চাকু দিয়ে এলোপাতারি আঘাত করেন। আসিফ রক্তাক্ত অবস্থায় মাটিতে পড়ে গেলে তারা ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যান।

[৬] খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার আসিফকে তার আত্নীয়-স্বজনরা ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আসফ মারা যান। এ ঘটনায় ভিকটিমের ভাই বাদি হয়ে বাদশাসহ তার সহযোগীর বিরুদ্ধে খিলগাঁও থানায় মামলা দায়ের করেন।

[৭] র‌্যাব জানায়, আটক বাদশার বিরুদ্ধে আগেও খিলগাঁও, বাড্ডা ও চুয়াডাঙ্গার দামুরহুদা থানায় হত্যা ও মাদকসহ ৭টি মামলা রয়েছে। তার ভাই আলমগীরের বিরুদ্ধে ৪টি মাদক মামলা রয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত