প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] করোনায় একদিনে আরও ২৩৭ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১০,৪২০ জন

শাহীন খন্দকার, সাজিয়া আক্তার: [২] বুধবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো করোনাবিষয়ক বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে। এপর্যন্ত দেশে করোনায় মোট মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়ালো ২৩ হাজার ৩৯৯ জনে। এপর্যন্ত করোনায় মোট শনাক্ত সংখ্যা দাড়াঁলো ১৩ লাখ ৮৬ হাজার ৭৪২ জন। বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়েছে গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ্য হয়েছেন, ১৩ হাজার ৩১৩ জন। এপর্যন্ত সুস্থ্য হয়েছেন ১২ লাখ ৮৪ হাজার ৭৫ জন। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯০ শতাংশ।

[৩] গত ২৪ ঘণ্টায় (অ্যান্টিজেন টেস্টসহ) ৪৪ হাজার ৪৩০টি নমুনা পরীক্ষায় ১০ হাজার ৪২০ জন এই ভাইরাসে শনাক্ত হয়েছেন। এই সময়ে পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ২৩ দশমিক ৪৫ শতাংশ। তবে শুরু থেকে মোট পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার ১৬ দশমিক ৮০ শতাংশ। সরকারি ব্যবস্থাপনায় এখন পর্যন্ত ৬১ লাখ ৪৫৭টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে, বেসরকারী ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা হয়েছে ২১ লাখ ৫৬ হাজার ১৪টি নমুনা। অর্থাৎ, মোট পরীক্ষা করা হয়েছে ৮২ লাখ ৫৬ হাজার ৪৭১টি নমুনা।

[৪] গত ২৪ ঘণ্টায় ২৩৭ জন মৃত্যুবরণ করেছেন তাদের মধ্যে ১৩৪ জন পুরুষ ও ১০৩ জন নারী। সরকারি হাসপাতালে ১৭৪ জন, বেসরকারি হাসপাতালে ৬০জনসহ বাড়িতে ৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। তারাসহ মৃতের মোট সংখ্যা ২৩ হাজার ৩৯৮ জন। মোট শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুহার এক দশমিক ৬৯ শতাংশ। এখন পর্যন্ত সরকারি হাসপাতালে মারা গিয়েছেন ১৯ হাজার ৯৩০ জন, যার শতকরা হার ৮৬ দশমিক ৫ শতাংশ। বেসরকারি হাসপাতালে মারা গিয়েছেন দুই হাজার ৫২৪ জন, যার শতকরা হার ১০ দশমিক ৯০ শতাংশ। বাসায় ৬৭৮ জন মারা গিয়েছেন, যার শতকরা হার দুই দশমিক ৯৩। এছাড়াও মৃত অবস্থায় হাসপাতালে এসেছেন ২৯ জন, যার শতকরা হার দশমিক ১৩ শতাংশ।

[৫] স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্যমতে, এখন পর্যন্ত ১৫ হাজার ৫১৮ জন পুরুষ মারা গেছেন যা মোট মৃত্যুর ৬৬ দশমিক ৩২ শতাংশ এবং ৭ হাজার ৮৮০ জন নারী মৃত্যুবরণ করেছেন যা মোট মৃত্যুর ৩৩ দশমিক ৬৮ শতাংশ। বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা গেছে, ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত ২৩৭ জনের মধ্যে শূন্য থেকে দশ বছর বয়সী একজন, একুশ থেকে ত্রিশ বয়সী দু’জন, ত্রিশোর্ধ্ব চারজন, চল্লিশোর্ধ্ব ১৪ জন, পঞ্চাশোর্ধ্ব ২৪ জন এবং ষাটোর্ধ্ব ৮৪ জন, সত্তরোর্ধ্ব ৪৫ জন, আশি উর্ধ্ব ১৫ এবং নব্বই ঊর্ধ্ব দু’জন। বিভাগওয়ারী হিসাবে ঢাকা বিভাগে ১০৫ জন, চট্টগ্রাম বিভাগে ৫৪ জন, রাজশাহী বিভাগে ১০ জন, খুলনা বিভাগে ২০ জন, বরিশাল বিভাগে আটজন, সিলেট বিভাগে ২৩ জন, রংপুর বিভাগে ছয়জন ও ময়মনসিংহ বিভাগে ১১ জন।

[৬] এছাড়া ১০ আগস্ট করোনায় মৃতের সংখ্যা ছিল ২৬৪ জন এবং শনাক্তের সংখ্যা ছিল ১১ হাজার ১৬৪ জন। এছাড়া দেশে গত ৭ জুলাই প্রথমবারের মতো করোনায় মৃতের সংখ্যা দুইশ’ ছাড়ায়। এদিন মৃত্যু হয় ২০১ জনের।

[৭] ২০২০ সালের ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয় এবং এর ১০ দিন পর ১৮ মার্চ প্রথম এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে একজনের মৃত্যু হয়। উল্লেখ্য ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীন থেকে সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর বিশ্বব্যাপী ছড়িয়েছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস। গত বছরের ১১ মার্চ করোনাভাইরাস সংকটকে মহামারি ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

 

 

সর্বাধিক পঠিত