প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] বাস কাউন্টারে শুরু হলো টিকিট বিক্রি

সুজিৎ নন্দী: [২] রাজধানীর গাবতলী, সায়েদাবাদ ও মহাখালী টার্মিনালে বিভিন্ন বাস কোম্পানির কাউন্টার খুলেছে, চলছে টিকিট বিক্রি। বুধবার (১৪ জুলাই) থেকেই যাত্রীরা আসছেন টিকিট কিনতে। লকডাউন শিথিল করে আজ রাত থেকে স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালন সাপেক্ষে গণপরিবহন চলাচলের অনুমতি দিয়েছে সরকার। এরপর থেকেই কর্ম চাঞ্চল্য শুরু হয়েছে পরিবহন সংস্থার কর্মীদের মাঝে।

[৩] বাস কাউন্টারগুলোতে যেমন টিকিট বিক্রি হচ্ছে, তেমনই শুরু হয়েছে গাড়ি পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার কাজ। একইসঙ্গে চালক ও হেলপাররা গাড়ির ইঞ্জিন চালু করে দেখছেন সবকিছু ঠিকঠাক আছে কিনা। পাশাপাশি গাড়ি ধোয়া মোছা, ইঞ্জিন পরীক্ষা করাসহ অন্যান্য কাজ করছেন তারা। সরেজমিনে গাবতলী ও মহাখালী টার্মিনাল ঘুরে এরকম চিত্র দেখা গেছে।

[৪] পরিবহন মালিক সমিতির সাধারন সম্পাদক খন্দকার এনায়েত উল্লাহ বলেন, আমরা স্পষ্ট ভাবে জানিয়ে দিয়েছে স্বাস্থ্যবিধি মেনে গাড়ি চালাতে হবে। পাশাপাশি আমাদের টহল টিম থাকবে।

[৫] একাধিক বাস কাউন্টার থেকে জানা যায়, ঈদের জন্য একসঙ্গে চার দিনের টিকিট দেয়া হচ্ছে। সে হিসেবে ১৫, ১৬, ১৭ ও ১৮ জুলাইয়ের টিকিট একসঙ্গে অনলাইনে দেয়া হয়েছে। মানুষ ঈদে বাড়ি যাওয়ার জন্য একসঙ্গে সার্ভারে প্রবেশ করার চেষ্টা করছে। সার্ভার সেই লোড নিতে পারছে না।

[৬] একাধিক পরিবহন শ্রমিক জানান, ঈদে গাড়ি চলবে, মানুষজনের যাতায়াতের ব্যবস্থা হয়েছে। আমরা ঈদের আগে অন্তত কিছু টাকা পয়সা পাবো। গাড়িগুলো ধুয়ে-মুছে রেডি করছি। সব ঠিক থাকলে কাল থেকে আবারো আমরা কাজে ফিরবো।

[৭] কাউন্টার খোলার সঙ্গে সঙ্গে ভ্রাম্যমাণ হকাররাও হাজির হয়েছে টার্মিনালে। তারাও আশাবাদী, ঈদকে কেন্দ্র করে টার্মিনালে তাদের কিছু আয় রোজগার হবে। গাবতলী টার্মিনালে টিকেট কাটতে আসা একাধিক যাত্রী জানান, কাল সকালে বাড়ি যেতে চাই, এজন্য আজকেই টিকিট কাটতে আসলাম। এতো দিন বন্ধ থাকার কারণে ভিড় হতে পারে, পরে হয়তো টিকিট নাও পেতে পারি।

 

 

সর্বাধিক পঠিত