প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

[১] জান্তা সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলনে যোগ দেওয়ার আহবান জানিয়ে রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্ব দেওয়ার ঘোষণা দিল মিয়ানমার ঐক্য সরকার

রাশিদুল ইসলাম : [২] মিয়ানমারের জান্তা সরকার ইতিমধ্যে মিয়ানমার ঐক্য সরকারকে অবৈধ বলে ঘোষণা দেওয়ার পর পাল্টা রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্ব দেওয়ার ঘোষণা এসেছে। মিয়ানমার ঐক্য সরকারের অনেকে জঙ্গলে আশ্রয় নিয়েছে। তাদের ওপর চলছে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নির্যাতন। এর আগে রোহিঙ্গাদের ওপর মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নির্যাতন ও হত্যাযজ্ঞের মতই পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে। ফ্রন্টিয়ার মিয়ানমার

[৩] তাই সামরিক জান্তাকে উৎখাত করে ক্ষমতায় যেতে পারলে বাংলাদেশসহ প্রতিবেশি দেশগুলোতে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গা শরণার্থীদের সসম্মানে ফিরিয়ে নেয়া এবং তাদের নাগরিকত্বের স্বীকৃতি দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে মিয়ানমারের ছায়া সরকার। বৃহস্পতিবার রাতে মিয়ানমারে জান্তাবিরোধী জাতীয় ঐক্য সরকার (এনইউজি) সংখ্যালঘুনীতি নিয়ে তিন পৃষ্ঠার এক বিবৃতিতে সামরিক জান্তাকে ক্ষমতাচ্যুত করতে রোহিঙ্গাদের সাহায্য প্রার্থনা করেছে এনইউজি।

[৪] একই সঙ্গে মিয়ানমারে ১৯৮২ সালের বিতর্কিত নাগরিকত্ব আইন সংশোধন করে মিয়ানমারে বা অন্য যে কোনো দেশে জন্ম নেয়া বার্মিজ নাগরিকের সন্তানদেরও পূর্ণ নাগরিকত্ব দেওয়ার অঙ্গীকার করেছে এনইউজি। রোহিঙ্গাদের জান্তা সরকারের বিরুদ্ধে ঐক্য সরকারের সঙ্গে আন্দোলনে যোগ দেওয়ারও আহবান জানানো হয়।

[৫] মিয়ানমারের রাজনৈতিক দলের অধিকাংশ সদস্য রয়েছেন ওই ছায়া সরকারে। জাতীয় ঐক্য সরকার (এনইউজি) নাম দিয়ে এটিকেই মিয়ানমারের বৈধ সরকার বলে দাবি করেন তারা। তবে সামরিক বাহিনীর সঙ্গে সমঝোতা করে ক্ষমতায় থাকাকালে সু চির গণতান্ত্রিক সরকার রোহিঙ্গাদের ফেরাতে চায়নি। এমনকি তারা ‘রোহিঙ্গা’ শব্দ ব্যবহার না করে ‘রাখাইনে বসবাসকারী মুসলিম’ বলে অভিহিত করতেন সু চি সরকারের নেতারা।

[৬] জান্তা সরকারের হাতে ৮ শতাধিক মানুষ মারা যাওয়ার পর রোহিঙ্গাদের প্রতি মনোভাব অনেকটা পাল্টে গেছে তাদের। নর্দান রাখাইন এস্টেটে ৬ লাখ রোহিঙ্গা নাগরিকত্বের আশায় আছেন। বাংলাদেশে ১০ লাখেরেও বেশি রোহিঙ্গা আশ্রয় নিয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত